Bartaman Patrika
আমরা মেয়েরা
 

আবাসনের পুজোয় মেয়েরাই সর্বেসর্বা 

পার্ল অ্যাপার্টমেন্টের পুজোয় মহালয়ায় দেবীর চক্ষুদান
‘জাগো দুর্গা জাগো দশপ্রহরণধারিণী অভয়া শক্তি
বলপ্রদায়িনী জাগো, জাগো মা...’
ভোরের আকাশে তখনও আলো ফোটেনি। বেতারের সুর তরঙ্গে ছড়িয়ে পড়ছে মায়ের আগমনবার্তা। বুকের মধ্যে আনন্দের বাদ্যি বাজতে শুরু করেছে। ‘ঠিক এই সময়টাতেই আমাদের মায়ের চক্ষুদান হয়। মহালয়ার পুণ্য প্রভাতে মায়ের চক্ষুদানের প্রথা ছিল আমাদের ব্যান্ডেলের বড়াল বাড়ির পুজোতে। বনেদি বাড়ির বউ হওয়ার সুবাদে মাতৃপুজোর খুঁটিনাটি অনেক কিছুই আমার জানা। মহালয়ার দিন মায়ের চক্ষুদানের পর একটা পুজো হয়। এরপর মায়ের সাজগোজ চলতে থাকে। আমাদের আবাসনের দুর্গাপুজোতেও এই রীতিই মানা হয়’, বলছিলেন সুমিত্রা বড়াল। উত্তর কলকাতার সুকিয়া স্ট্রিটের পার্ল অ্যাপার্টমেন্ট কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট সুমিত্রা। তিনি আরও জানালেন, তাঁদের এই আবাসনের পরিচালন সমিতিতে আছেন শুধুই মেয়েরা। পুজোর জয়েন্ট সেক্রেটারি বৈশাখী মুখোপাধ্যায় ও উত্তরা বর্মন। ট্রেজারার দিশারী গুঁইন। পুজোর বাজেট, কোন খাতে কী খরচ করা হবে তার ফর্দ, পুজোর প্যান্ডেল, ব্যবস্থাপনা, খাওয়া-দাওয়ার তদারকি সবই করেন আবাসনের মহিলারা। ছেলেরা শুধু মাঝেমধ্যে সহযোগিতা করেন। পুজোর সেক্রেটারি বৈশাখী মুখোপাধ্যায় জানালেন, এবার তাঁদের পুজো চোদ্দো বছরে পড়ল। এই আবাসনের নীচেই কমন স্পেসে প্রতিমা তৈরি হয়। প্রতিমা কিনে আনা হয় না। বাড়ির পুজোর মতোই ভক্তি সহকারে প্রতিটি ধর্মীয় রীতি মেনে পুজো হয়। বিশেষ করে সন্ধিপুজোর সময় মাথায় ও দুই হাতে মাটির মালসা নিয়ে ধুনো পোড়ানো একটি ঐতিহ্যপূর্ণ প্রথা। এইটিও পালন করেন মেয়েরা। কলাবউ স্নান করাতে গঙ্গায় যাওয়া, লরিতে করে প্রতিমা বিসর্জনে যাওয়া প্রতিটিতেই মেয়েরা মুখ্য ভূমিকা নেন। পঞ্চমীর দিন আগমনি গানের মাধ্যমে পুজোর উদ্বোধন হয়। সুমিত্রা দেবী আরও জানালেন, পুজোর প্রতিদিনই সন্ধেবেলা নানারকম অনুষ্ঠান থাকে। প্রদীপ জ্বালানো, শাঁখ বাজানো প্রতিযোগিতা, গানের লড়াই। তবে আমার ছেলে (কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়) এলে জমে ওঠে ঢাকের বাদ্যির সঙ্গে ধুনুচি নাচ। আবাসনের সবাই মিলে খুব আনন্দ করি পুজোর ক’টা দিন।
৩৬ বছরে বিধান নিবাসের পুজো
সল্টলেকের পুরনো আবাসনগুলোর মধ্যে বিধান নিবাসের দুর্গাপুজোর বেশ নামডাক। ছত্রিশ বছর ধরে প্রায় একই নিয়ম মেনে এখানে পুজো হচ্ছে। নির্দিষ্ট মাপের প্রতিমা আনা হয় কুমোরটুলি থেকে। পঞ্চমীর দিন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মায়ের পুজো শুরু হয়। প্রত্যেক দিন সন্ধেবেলা অনুষ্ঠান হয় বিধান নিবাসে। ১১৮টি ফ্ল্যাটের আবাসিকরা সানন্দে অংশ নেন অনুষ্ঠানে। মাসখানেক আগে থেকেই চলতে থাকে রিহার্সাল। নাচ, গান, আবৃত্তি, নাটক নিয়ে জমজমাট পুজো সন্ধ্যা। কথা হচ্ছিল পুজোর অন্যতম কর্ণধার মঞ্জরী ঘোষের সঙ্গে। মঞ্জরী বললেন, আজকের দিনে আমাদের আবাসনের সবথেকে বিস্ময়কর ঘটনা হল, এ প্রজন্মের ছেলেমেয়েরাও পুজোয় এবং অনুষ্ঠানে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে থাকে। কলকাতা ঘুরে ঠাকুর দেখে বেড়ানোর থেকে আবাসনের পুজো মণ্ডপে বসে গল্প করা তাদের কাছে অনেক পছন্দের। এমনকী যে সব ছেলেমেয়ে পড়াশোনা বা চাকরির জন্য দূরদেশে থাকে তারাও সারা বছর ছুটি জমিয়ে রাখে পুজোর সময় বাড়ি আসবে বলে। পঞ্চমী থেকে দশমী তারা পুজো প্রাঙ্গণ ছেড়ে কোথাও যেতে চায় না।
বিধান নিবাসের পুজোর আরও কয়েকটি বিশেষত্ব আছে। যেমন এখানে শুধু মা দুর্গারই নয়, প্রত্যেক দেবদেবীরই সোনার গয়না, রুপোর গয়না, রুপোর অস্ত্রশস্ত্র আছে। এত বছর ধরে বিভিন্ন সময়ে আবাসিকরাই এগুলো দিয়েছেন। সারা বছর এগুলো তুলে রাখা হয়। পঞ্চমীর দিন দেবদেবীকে সাজানো হয় রত্ন অলংকারে। আর একটি বিশেষত্ব হল, পুজোর পর ভোগ খাওয়ার বন্দোবস্ত তো থাকেই, তাছাড়াও এই ১১৮টি ফ্ল্যাটে ভোগ পাঠানো হয়। এই সব দায়িত্বই পালন করেন আবাসনের মেয়ে-বউরা। সকাল সন্ধে পুজোর যাবতীয় কাজকর্মের ভার নেন আবাসনের বয়স্ক মহিলারা। আর বিসর্জন? সেখানেও মেয়েরাই থাকেন অগ্রণী ভূমিকায়।
তিরুপতি গার্ডেন্সের পুজো দশ বছরে
দক্ষিণ কলকাতার নিউ বালিগঞ্জ অঞ্চলে তিরুপতি গার্ডেন্স রেডিডেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের পুজোটি হয় একেবারে বাড়ির পুজোর মতো নিয়ম-নিষ্ঠা মেনে। এই আবাসনে শুধু বাঙালিই নয়, বহু অবাঙালি পরিবারও থাকেন। প্রত্যেকেই পুজোয় সাগ্রহে অংশ নেন। কুমোরটুলি বা কালীঘাটের পোটোপাড়া থেকে প্রতিমা আসে। আবাসনের ছোটরাই মণ্ডপসজ্জা, আলপনা সহ পুজোর বিভিন্ন কাজকর্ম করে। তিন্নি, কুহু, রাই, রাজ, সুনেহা, সোমদত্তা, ইস্মিত, সরসীজ, স্বপ্ননীল, হারমান, গুরমানদের হইহই শব্দে পুজো মণ্ডপ ভরে ওঠে চতুর্থীর রাত থেকেই। পুজোর পর আবাসনের বাচ্চারাই আয়োজন করে বিজয়া সম্মেলনীর। নাচ, গান, আবৃত্তি, ছোট নাটক ইত্যাদি নানারকম সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। এবার দশ বছর পূর্তি উপলক্ষে ফ্ল্যাটে বিশেষ আলোকসজ্জার ব্যবস্থা হচ্ছে। ঠাকুরও এবার এক চালার নয়, একটু বড় মাপের প্রতিমা আসবে এবছর। ঠাকুরের ভোগ, খাওয়া-দাওয়ার আয়োজন সব কিছুই করেন আবাসনের মহিলা সদস্যরা। দুর্গাপুজোর পর লক্ষ্মীপুজোতেও আবাসনের মহিলাদের অংশগ্রহণ লক্ষণীয়।
দশ বছরের পুজোর উদ্বোধন করবেন নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের সহ সম্পাদক মহারাজ। আগামী ২ অক্টোবর তিরুপতি গার্ডেন্সের প্রতিমা উদ্বোধন হবে সন্ধেবেলা। দশ বছরে পুজোর আয়োজনটা একটু অন্য তারে বাঁধার চেষ্টা করছেন পুজো কমিটির সদস্যারা। অষ্টমীর ভোগ বা অন্যান্য দিনের খাওয়াদাওয়ার অয়োজন তো থাকছেই, তাছাড়াও এবছর প্যান্ডেলসজ্জাতেও অভিনব ভাব আনা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আবাসনের বাসিন্দারা। এই আবাসনের পুজোর এক পরিচালিকা জানালেন, বারোয়ারিপুজোর ভিড়ে গা ভাসাতে সব সময় মন চায় না। ভিড় এড়িয়ে ঘরোয়াভাবে মাতৃ আরাধনার আনন্দ পেতেই তাঁদের এই পুজোর আয়োজন।
পাওয়ার টাওয়ারের পুজোর উদ্বোধনে স্বামী বিমলাত্মানন্দ
নিউটাউনে সিইএসসি কর্পোরেশন হাউজিং সোসাইটি লিমিটেডের আবাসন ‘পাওয়ার টাওয়ার’-এর পুজো এবার চার বছরে। দুর্গাপুজো কালচারাল কমিটির জয়েন্ট প্রোগ্রাম কনভেনার ঋতা সরকার জানালেন, একমাস আগে থেকেই শুরু হয়ে যায় আমাদের তোড়জোড়। পঞ্চমী থেকে নবমী প্রতিদিন সন্ধেবেলা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। নাচ, গান, আবৃত্তি, গীতিনাট্য ইত্যাদিতে অংশ নেন আবাসনের ছোট থেকে বড় সবাই। আমাদের জনা চল্লিশের মহিলা বিগ্রেডই সামলায় পুরো পুজোটা।
পঞ্চমীর দিন পাওয়ার টাওয়ারের পুজোর উদ্বোধন করেন রামকৃষ্ণ মিশনের কোনও একজন স্বামীজি। এবার উদ্বোধন করবেন কাঁকুড়গাছি যোগোদ্যান মঠের স্বামী বিমলাত্মানন্দ। সমস্ত ধর্মীয় প্রথা মেনেই পুজোর আয়োজন করেন মেয়েরা। ঠাকুর আসবে বেলেঘাটার পটুয়াটোলা থেকে। পুজোর চাঁদা তো আছেই, সেই সঙ্গে আবাসিকদের স্পনসরশিপও থাকে। এইভাবেই মায়ের আরাধনায় মগ্ন থাকেন আবাসনের প্রত্যেকে। ছোটরাও পুজোর কাজে হাত লাগায়।
যেয়ো না নবমী নিশি
প্রতিটি আবাসনের পুজোই যেন মিলনমেলা। বছরে একবারই তো আসে এই পুজোর ক’টা দিন। এমন আনন্দ ফুরিয়ে এলে সকলেরই চোখটা ছলছল করে। মন বলে, যেয়ো না রজনী আজি লয়ে এই তারাদলে...। তাই মাকে বিসর্জন দিয়ে আসার পরেও নিজেদের ফ্ল্যাটে পা রাখতে মন চায় না। মিষ্টিমুখ, সৌহার্দ্য বিনিময় আর আলতায় বেলকাঠি ডুবিয়ে ‘শ্রীশ্রী দুর্গা সহায়’ লিখে শেষ হয় প্রতিবারের পুজো। মনে মনে সবাই বলেন, আসছে বছর আবার হবে। 
28th  September, 2019
বিজয়া দশমী 

দশমী তিথিতে সকাল বেলায় নির্ঘণ্ট অনুযায়ী পুরোহিত আচমন ভূতাপসারণ প্রভৃতি করে পঞ্চোপচারে দেবীর পুজো করেন। ওই দিন দেবীকে পান্তাভাত, কচুর শাক (নুন ছাড়া) ভোগ দেওয়া হয়। যাঁরা অন্নভোগ দেন না তাঁরা চিঁড়ে, মুড়কি, খই, বাতাসা, দই প্রভৃতি ভোগ দেন।  
বিশদ

05th  October, 2019
চণ্ডীতে দেবী দুর্গার প্রকাশময়ী মূর্তি 

দেবী বন্দনার সামগ্রিক বিকাশটি নিহিত আছে শ্রীশ্রীচণ্ডীতে। প্রথম, মধ্যম ও উত্তর ভেদে আদ্যাশক্তি মহামায়া চণ্ডিকা তিন রূপে প্রকাশিতা। গুণ ও কর্ম ভেদে তিনি কখনও মহাকালী, কখনও মহালক্ষ্মী, কখনও বা মহাসরস্বতী রূপে প্রকাশিতা।
বিশদ

05th  October, 2019
সেকালের পুজো 

সে ছিল এক অন্য কলকাতা— সেখানে কলুপাড়া, ডোমপাড়া, হাঁড়িপাড়া, গয়লাপাড়া, হাতিবাগান, বাদুড়বাগান, চালতাবাগান, হালসীর বাগান— ছিল অঞ্চলের নাম। সেই সাবেক কলকাতাতেও ছিল দুর্গাপুজো। সমাজের ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষকে না শামিল করলে সেকালের দুর্গাপুজো পূর্ণতা পেত না। 
বিশদ

05th  October, 2019
মহিলা মৃৎশিল্পী
মনের টানে ঠাকুর গড়েন মালা পাল 

কুমোরটুলির এক জায়গায় বসে সবাই যখন ঠাকুর গড়ত, মুগ্ধ হয়ে দেখত মেয়েটি। আর মনে মনে ভাবত সেও একদিন ঠাকুর গড়বে। সেই মতো মেয়েটির যখন চোদ্দো বছর বয়েস, তখন সে বাবার স্টুডিওতে এসে বাবার সঙ্গে ঠাকুর গড়া শুরু করে।  বিশদ

28th  September, 2019
ম হা ল য়া র মধুর সুর 

মহালয়া মানে পিতৃপক্ষের সমাপ্তি আর দেবীপক্ষের সূচনা। শারদীয়া দুর্গোৎসবের পুণ্যলগ্ন হল মহালয়া। মহালয়ার ভোর মানেই দূরত্ব ছাপিয়ে আসা আলো। প্রত্যেক বাঙালিরই মহালয়া নিয়ে নানা স্মৃতি। আজ এই প্রযুক্তি অধ্যুষিত সময়ে দাঁড়িয়েও এই একটা দিনেই আমবাঙালি রেডিওতে মাতে। আগের রাতে ধুলো ঝেড়ে বের হয় বাবা বা ঠাকুরদার পুরনো রেডিও সেটটি।   বিশদ

28th  September, 2019
পার্লারে পার্লারে পুজোর প্যাকেজ 

পুজোর আগে লাস্ট মিনিটে সাজ-সাজেশনে রয়েছে বিভিন্ন পার্লারের আকর্ষণীয় অফার। পুজোর পাঁচটা দিন তাক লাগিয়ে দিন বন্ধুদের। হয়ে উঠুন পুজোর সেরা সুন্দরী। আর যাঁরা এখনও পার্লারমুখো হননি তাঁরাও করে নিন মেকওভার।  বিশদ

28th  September, 2019
মহাপূজার আঙিনায় হোম 

যজ্ঞানুষ্ঠান বৈদিক কর্মের অঙ্গ। অগ্নিকে প্রতীকরূপে উপাসনার প্রথা আদিকাল থেকে। এর উৎপত্তিস্থল ঋগ্বেদ। দেবতার অভিলাষে হব্যাদি যে কোনও অর্ঘ্যদান করতে গেলে অগ্নিতেই তা উৎসর্গ করতে হয়।   বিশদ

28th  September, 2019
মহাষ্টমী পুজো

 মহাষ্টমী পুজোর দিন সকালে পুরোহিত আচমন করে মায়ের পুজো শুরু করেন। আসনশুদ্ধি, ভূতশুদ্ধি, মাতৃকান্যাস, প্রাণায়াম, পীঠন্যাস সমাপ্ত করে মাকে দন্তকাষ্ঠ নিবেদন করেন। তারপর শুরু হয় মায়ের মহাস্নান।
বিশদ

21st  September, 2019
মহাপূজার আঙিনায়
বলিদান

 মহাপূজার অন্যতম অঙ্গ বলিদান। বলি শব্দের অর্থ উপহার। দেবীভাগবতের মতে, একমাত্র দেবী পূজাতেই বলিদান সম্মত। অন্যত্র নয়। কারণ ব্রহ্মবিদ্যাস্বরূপিণী দেবী আমাদের স্বরূপনিরোধক এই ঘোর জীববুদ্ধি নাশ করে ব্রহ্মকারা বৃত্তিতে প্রকাশমান হন। তাই মহাদেবী বলিপ্রিয়া।
বিশদ

21st  September, 2019
সেকাল একালের
আগমনী আড্ডা

দুর্গা পুজো মানেই নতুন পোশাক, খাওয়া-দাওয়া, রাত জেগে ঠাকুর দেখা আর নির্ভেজাল আড্ডা। আড্ডা পরিকল্পনাও থাকে নানারকম। আড্ডাবাজ বাঙালির আড্ডার আসর বসে পাড়ার পুজো, বাড়ির পুজো, বা আবাসনের পুজোমণ্ডপে। নব্য প্রজন্মের কেউ বা পছন্দ করে ঘুরে বেড়িয়ে আড্ডা দিতে। বিশদ

21st  September, 2019
মহিলা মৃৎশিল্পী
ঠাকুর গড়েন চায়না পাল

 ছোটবেলায় আঁকতে ভীষণ ভালোবাসতেন চায়না। পেন বা পেন্সিল দিয়ে পাতার পর পাতা ঠাকুর দেবতার ছবি আঁকতেন তিনি। টানা টানা চোখওয়ালা সাবেকি ঠাকুরের মুখ ভরে যেত তাঁর খাতার পাতায়। বাবা যখন ঠাকুর গড়তেন সেটাও হাঁ করে দেখতেন চায়না। বিশদ

21st  September, 2019
উৎসবের ভোজ, ভোজের উৎসব 

ভোরের প্রথম আলোয় শিউলি ফুলের মন মাতানো মিষ্টি গন্ধই শুধু নয়, ভোরের বাতাসেও অকারণ পুলকের স্পন্দন। পাড়ায় পাড়ায় বাঁশ আর কাপড়ের স্তূপ। যেন উৎসবের আর উৎসাহের জোয়ার। মায়ের আগমনী বার্তা বয়ে নিয়ে আসে এইসব খুঁটিনাটির অনুষঙ্গগুলো।   বিশদ

14th  September, 2019
মহিলা মৃৎশিল্পী 

সুস্মিতা রুদ্রপাল মিত্র: এক দশক মানে প্রায় বারো বছর হয়ে গেল সুস্মিতা রুদ্রপাল মিত্র প্রতিমা তৈরি করা শুরু করেছেন। সুস্মিতার বেড়ে ওঠা কুমোরটুলির এক মৃৎশিল্পীর পরিবারে। বাড়িতে বাবা-দাদাদের কাজ দেখতে দেখতে বড় হয়েছেন সুস্মিতা।  বিশদ

14th  September, 2019
মহাসপ্তমী পুজোর রীতি ও আচার 

দুর্গাপুজোর মহাসপ্তমী। এই দিন প্রথমে গৃহকর্তা পুরোহিতকে কাপড় ও নানা দ্রব্য দিয়ে বরণ করে নেবেন। তারপর নবপত্রিকা স্নান। গঙ্গা বা কোনও জলাশয়ে নবপত্রিকাকে স্নান করিয়ে নতুন কাপড় পরিয়ে যথাযথ মন্ত্র উচ্চারণ করে দুর্গামণ্ডপে প্রতিষ্ঠা করা হয়।   বিশদ

14th  September, 2019
একনজরে
স্টকহোম, ৯ অক্টোবর (এপি ও এএফপি): লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি তৈরির স্বীকৃতি। ২০১৯ সালে রসায়নে নোবেল পুরস্কার জিতে নিলেন তিন বিজ্ঞানী। আমেরিকার জন গুডএনাফ, ব্রিটেনের স্ট্যানলি হোয়াটিংহ্যাম ও জাপানের আরিকা ইয়োশিনো। বুধবার রয়্যাল সুইডিশ অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেসের তরফে একথা জানানো হল।  ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: নিজাম প্যালেসে সিবিআই দপ্তরে হঠাৎ হাজির হলেন ম্যাথু স্যামুয়েল। বুধবার সকালে তিনি নিজেই চলে আসেন এখানে। তাঁর দাবি, আইফোনের পাসওয়ার্ড জানতে চেয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। সেই জন্যই তিনি এসেছেন। ...

পুনে, ৯ অক্টোবর: ভারতের মাটিতে ‘টিম ইন্ডিয়া’কে হারানো কতটা কঠিন, তা বিলক্ষণ টের পেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। কারণ, প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ভারতীয় দলের ৫০২ রানের ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পুজো যত এগিয়েছে, ততই কমেছে বিদ্যুতের সর্বোচ্চ চাহিদা। সিইএসসি সূত্রের খবর, মূলত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ছুটি থাকায় এবং মাঝে-মধ্যে বৃষ্টির জেরে বিদ্যুতের সর্বোচ্চ চাহিদা ক্রমশ কমেছে।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীদের বেশি শ্রম দিয়ে পঠন-পাঠন করা দরকার। কোনও সংস্থায় যুক্ত হলে বিদ্যায় বিস্তৃতি ঘটবে। কর্মপ্রার্থীরা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

মানসিক স্বাস্থ্য দিবস
১৯৫৪: অভিনেত্রী রেখার জন্ম
১৯৬৪: অভিনেতা ও পরিচালক গুরু দত্তের মৃত্যু
২০১১: গজল গায়ক জগজিৎ সিংয়ের মৃত্যু  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৩৪ টাকা ৭২.০৪ টাকা
পাউন্ড ৮৫.৩৯ টাকা ৮৮.৫৪ টাকা
ইউরো ৭৬.৬০ টাকা ৭৯.৫৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৭৭৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৭৯০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,৩৪০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,৮৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৫,৯৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১০ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, দ্বাদশী ৩৫/৪৩ রাত্রি ৭/৫২। শতভিষা ৫১/৩৮ রাত্রি ২/১৪। সূ উ ৫/৩৪/৩৩, অ ৫/১৩/১৭, অমৃতযোগ দিবা ৭/৮ মধ্যে পুনঃ ১/২২ গতে ২/৫৪ মধ্যে। রাত্রি ৬/৩ গতে ৯/২১ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৮ গতে ৩/৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৫ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ২/১৯ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/২৪ গতে ১২/৫৭ মধ্যে। 
২২ আশ্বিন ১৪২৬, ১০ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, দ্বাদশী ৩৫/৪৭/৪২ রাত্রি ৭/৫৩/৫২। শতভিষা ৫৪/১৮/১৬ রাত্রি ৩/১৮/৫, সূ উ ৫/৩৪/৪৭, অ ৫/১৪/৪৭, অমৃতযোগ দিবা ৭/১৩ মধ্যে ও ১/১৩ গতে ২/৪৪ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৫০ গতে ৯/১৩ মধ্যে ও ১১/৪৬ গতে ৩/১৫ মধ্যে ও ৪/১ গতে ৫/৩৫ মধ্যে, বারবেলা ৩/৪৭/১৭ গতে ৫/১৪/৪৭ মধ্যে, কালবেলা ২/১৯/৪৭ গতে ৩/৪৭/১৭ মধ্যে, কালরাত্রি ১১/২৪/৪৭ গতে ১২/৫৭/১৭ মধ্যে। 
মোসলেম: ১০ শফর 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
২০১৮ সালে সাহিত্যে নোবেল পাচ্ছেন পোল্যান্ডের ওলগা তোকারজুক এবং ২০১৯ সালে সাহিত্যে নোবেল পাবেন অস্ট্রিয়ার পিটার হ্যান্ডকা

05:15:00 PM

দ্বিতীয় টেস্ট, প্রথম দিন: ভারত ২৭৩/৩ 

04:43:00 PM

সিউড়ি বাজারপাড়ায় পরিত্যক্ত দোতলা বাড়ির একাংশ ভেঙে পড়ল, চাঞ্চল্য 

04:27:12 PM

মুর্শিদাবাদে গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মঘাতী বৃদ্ধ 
রোগ যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে গায়ে আগুন লাগিয়ে ...বিশদ

03:34:00 PM

পাঁশকুড়ায় তৃণমূল নেতা খুনের ঘটনায় গ্রেপ্তার ১ 
পাঁশকুড়ায় তৃণমূল নেতা কুরবান শাহ খুনের ঘটনায় খালেক শেখ নামে ...বিশদ

03:32:26 PM

ফের সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন পাকিস্তানের, পুঞ্চ সীমান্তে পাক সেনার গোলাগুলি 

01:49:47 PM