Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

মুক্ত হও

স্বর্গীয় পিতা যেমন পূর্ণ, তোমরাও সেরূপ পূর্ণতা লাভ কর। এই বাক্যে যীশু শৈলোপদেশের মূল বক্তব্য তুলে ধরেছেন। মানবজীবনের উদ্দেশ্য কি?— তা এখানে বলা হয়েছে। সকল ধর্মের এই একই মর্মবাণীঃ পূর্ণতার সন্ধান কর, ভগবান লাভ কর।
দৈহিক, বৌদ্ধিক বা নৈতিক ক্ষেত্রে পূর্ণতা কি হওয়া উচিত, সে বিষয়ে আমাদের ধারণা আছে— যদিও প্রতি মানুষে তা বিভিন্ন। কিন্তু আধ্যাত্মিক পূর্ণতা কি? যতক্ষণ আমাদের মন স্থান-কাল ও কার্য-কারণ সম্বন্ধযুক্ত আপেক্ষিক জগতে রয়েছে, আমরা ততক্ষণ এ পূর্ণতা জানতে পারব না, কারণ এ হচ্ছে অব্যক্ত। আমাদের একটা অস্পষ্ট ধারণা আছে যে পূর্ণতা বলতে বোঝায় কোন কিছুর সমাপন, একটা স্থায়ী শান্তি বা সিদ্ধিলাভ। অন্য মানুষের তুলনায় প্রত্যেক মানুষ তার কর্মে ও জীবনের প্রতিক্ষেত্রে চায় সিদ্ধি ও পরাকাষ্ঠা। কিন্তু যখন সে জাগতিক লক্ষ্যে পৌঁছায়, তখনও সে তৃপ্ত হয় না। সুন্দর পরিবার, বিশ্বস্ত বন্ধু, স্বাস্থ্য-সম্পদ, যশ ও সৌন্দর্যের দ্বারা পরিবেষ্টিত থাকা সত্ত্বেও মানুষ অভাববোধ ও নৈরাশ্যের দ্বারা পীড়িত হয়।
এ কথা সত্য যে আমাদের জাগতিক বাসনা সাময়িকভাবে তৃপ্ত হয় এবং আমরা কিছু পরিমাণ ভোগ ও সফলতা লাভ করি। কিন্তু আমরা সর্বদা ভুলে যাই যে এগুলি অস্থায়ী। আমরা যদি ভোগ ও সফলতা গ্রহণ করি তবে আমাদের যন্ত্রণা ও ব্যর্থতা গ্রহণের জন্যও প্রস্তুত থাকতে হবে।
প্রাচীন ভারতের দার্শনিক কপিল এই পূর্ণাবস্থাকে নেতিবাচক শব্দে প্রকাশ করেছেন: ‘‘দুঃখের আত্যন্তিক বিরতি’’। বৈদিক ঋষিরা ইতিবাচক শব্দে এভাবে বোঝাতে চেয়েছেন: সৎ বা অমর জীবন; চিৎ বা অনন্ত জ্ঞান; এবং আনন্দ বা শাশ্বত প্রেম ও পরমসুখ। প্রত্যেক মানবিক প্রচেষ্টার লক্ষ্য (যদিও তা অজ্ঞাতভাবে ও ভ্রমপথে চালিত) হচ্ছে সচ্চিদানন্দ লাভ। ভগবৎদর্শনই যে জীবনের উদ্দেশ্য— আমরা অধিকাংশই এ বিষয়ে ওয়াকিবহাল নই, তাই বার বার একই ভোগ এবং তার ফলস্বরূপ যন্ত্রণা পাই। অস্থায়ী জাগতিক বস্তু প্রাপ্তির জন্য আমরা শক্তির অপচয় করি এবং সসীমের মধ্যে অমরতা খুঁজি। নানাবিধ ভোগ ও যন্ত্রণার ভেতর দিয়ে অভিজ্ঞতা লাভের পর আমাদের বিবেকবুদ্ধির উদয় হয়। তখন আমরা বুঝি যে এ জগতে কোন বস্তু আমাদের চিরস্থায়ী শান্তি দিতে পারে না, এবং শাশ্বত সুখ ও আনন্দ রয়েছে একমাত্র ঈশ্বর।
পূর্ণতা লাভের জন্য আমাদের সংগ্রাম করতেই হবে, কারণ উহাই আমাদের আধ্যাত্মিক উত্তরাধিকার। সেন্ট পলের কথায়: ‘‘চৈতন্য নিজেই আমাদের আত্মাতে প্রতিভাত হয়ে সাক্ষ্য দিচ্ছে যে আমরা ঈশ্বরের সন্তান। যেহেতু সন্তান সেহেতু উত্তরাধিকারী— ভগবানের উত্তরাধিকারী এবং এ উত্তরাধিকারে আমরা খ্রীস্টের মতো সমান অংশীদার।
কিন্তু কোথায় পূর্ণতা? কোথায় ঈশ্বর? বেদান্ত মতে এই নামরূপাত্মক জগতের অন্তরালে একটা দৈবী ভূমি আছে এবং তা হচ্ছে ব্রহ্ম। ব্রহ্ম সর্বব্যাপী; সুতরাং তা জগতের প্রতি প্রাণী ও বস্তুতে বিদ্যমান, আবার সব কিছুর পারেও। বিশ্বব্যাপিতার প্রতি লক্ষ্য করে ব্রহ্মকে বলা হয় আত্মা; এটা একটা নাম মাত্র। প্রকৃতপক্ষে ব্রহ্ম ও আত্মার মধ্যে কোন পার্থক্য নেই— একই বস্তু। মন যখন সাধনার দ্বারা নির্মল হয়ে অন্তর্জগৎ দেখতে সক্ষম হয়, তখন মানুষ উপলব্ধি করে যে, তার স্বরূপ ব্রহ্মই। মানুষের অন্তর্নিহিত প্রকৃত সত্তা বা দেবত্বের বিকাশই হচ্ছে পূর্ণতালাভ। সমস্ত অতীন্দ্রিয় সাধনার এইটাই লক্ষ্য।
খ্রীস্ট নিজেই আমাদের শিক্ষা দিচ্ছেন ভিতরে ভগবানকে খুঁজতে। সেন্ট লুক রচিত বাইবেলে আমরা পাই: ‘‘ক্রিয়াদি অনুষ্ঠানের দ্বারা স্বর্গরাজ্য পাওয়া যায় না। কেউ বলতে পারে না যে ‘এখানে দেখ’ বা ‘সেখানে দেখ’। লক্ষ্য কর—স্বর্গরাজ্য তোমার ভিতরে রয়েছে।’’ এই উক্তি সময় সময় এভাবে ব্যাখ্যা করা হয় যে খ্রীস্ট এ জগতে তাঁর শিষ্যদের মধ্যে বিরাজ করছেন।
স্বামী প্রভবানন্দের ‘বেদান্তের আলোকে খ্রিস্টের শৈলোপদেশ’ থেকে
 মহাশক্তি

যে মহাশক্তি অসীম, অগম্য, তিনিই এই যুগে ভক্তগণের কাছে সুলভ হবার জন্যে রামকৃষরূপে অবতীর্ণ। শ্রীরামকৃষ্ণের ফটোকে ফটো মাত্র মনে করো না, উহা তাঁর জীবন্ত মূর্তি। তিনি প্রেম ও দয়ার অবতার। তাঁর চেয়ে দয়াবান আর কেউ নেই। যিনি ঠাকুরের দেহধারণ করেছিলেন, তিনি মা কালী ভিন্ন অন্য কেহ নন। বিশদ

11th  January, 2019
 শ্রীশ্রীঠাকুর ও মা

শ্রীশ্রীঠাকুর মা অভেদ। সাঙ্গোপাঙ্গগণ তাঁদের অঙ্গের হস্তপদাদি অবয়বের ন্যায়। মা আর ঠাকুর যে ঘরে বসেছেন, তাদের আবার ভয় কি?
আমাদের মা সরস্বতী, লক্ষ্মী, দুর্গা, কালী ইত্যাদি সব। বিশদ

10th  January, 2019
 ‘উগ্র’

 ‘উগ্র’ মানে কী? মহাবিষ্ণুকে কেন ‘উগ্র’ বলা হচ্ছে? কেন নম্র নয়? ‘উগ্র’ মানে আদর্শের সামনে যে আর কোনও কিছুরই সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে চলতে রাজি নয় অর্থাৎ আদর্শ নিয়ে যখন এগিয়ে চলছি তখন অন্য কোনও প্রতিকূল ব্যষ্টি বা বিরোধী শক্তির সঙ্গে মানিয়ে চলার কোনও প্রশ্ন ওঠে না, আমি আদর্শের পথে চলব।
বিশদ

09th  January, 2019
এগিয়ে যাও

একটি ছোট্ট গল্প—কিন্তু ব্যঞ্জনা গভীর। কথামালার মতো এক সরল কাহিনী। দক্ষিণেশ্বরে তাঁর ছোট ঘরে বসে গল্প বলছেন শ্রীরামকৃষ্ণ। শ্রোতা—জিজ্ঞাসু তরুণদল। অধ্যাত্মজগতে এঁরা নবাগত। সত্যান্বেষণের প্রেরণা দুর্বার, এই যাত্রার শেষ কোথায়? শ্রীরামকৃষ্ণ বলছেন—‘এগিয়ে যা’।
বিশদ

08th  January, 2019
সমুদ্র-মণ্ডল

সমুদ্রবিজ্ঞানের অনুরাগীরা একবার সবাই মিলে ঠিক করলেন, ভূমণ্ডলের নাম পাল্টে সমুদ্র-মণ্ডল করা উচিত। কারণ এই গ্রহের ৭৮ ভাগই জল, মাত্র ২২ ভাগ স্থল। অনুরূপ নজির তুলে কোয়ান্টাম বিজ্ঞানীরাও সঙ্গত দাবি তুলতে পারেন যে, এই বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের নাম হওয়া উচিত অতিপরমাণুময় আকাশমণ্ডল।
বিশদ

07th  January, 2019
সাধন

সাধন বহু প্রকার আছে এবং সাধকের অধিকার অনুসারে প্রত্যেকটি সাধনার সার্থকতা আছে। সাধকের যেমন যোগ্যতার তারতম্য আছে, তেমনি তদনুসারে সাধনের ফলগত তারতম্যও আছে। যাঁহারা সাধনার ইতিহাস আলোচনা করেন তাঁহারা তটস্থ দৃষ্টি গ্রহণ করিতে পারে না বলিয়া ইহা ধারণা করিতে পারে না। বিশদ

06th  January, 2019
ভাব

শ্রীরামকৃষ্ণের শরণ নিলে তার পরিত্রাণের আর ভাবনা নেই, নিশ্চয় জানবে। যে তাঁর আশ্রয় এক মুহূর্তের জন্য সমস্ত প্রাণের সঙ্গে গ্রহণ করেছে, সে তাঁকে ছাড়তে চেলেও, তিনি তাকে ছাড়বেন না—এ নিশ্চিত জেনো। বিশদ

05th  January, 2019
 শ্রীশ্রীমা

 শ্রীশ্রীমা ও ঠাকুর অভেদ। শ্রীশ্রীমাকে দেখাও যা, ঠাকুরকে দেখাও তাই। তাঁর অসীম কৃপা জীবের ওপর। আমরা এক কণা পেলেই পূর্ণ হয়ে যাব। শ্রীশ্রীমার অপ্রাকৃত ভাগবতী তনু, যদিও তিনি মনুষ্যদেহ-ধারিণী। কোটি কোটি জন্মের ফলে শ্রীশ্রীমার দর্শন হয়।
বিশদ

04th  January, 2019
মহাপূজার উপচার  

 জা তন্ত্রশাস্ত্রের এক অভিনব দান। পৃথিবীর অন্য কোন ধর্মে এই অনুষ্ঠানের অনুরূপ অনুষ্ঠান নাই। পূজা কথাটির ঠিক অনুবাদ অন্য ভাষায় চলে না।
বিশদ

03rd  January, 2019
সাধু ও গৃহস্থ

সকলেই যদি সাধু হবে, তো গৃহস্থ হবে কে? সাধু হওয়া সহজ কথা নয়; লক্ষ লক্ষ গৃহস্থের মধ্যে একজন সাধু হয়। গেরুয়া পরলেই সাধু হওয়া যায় না। ঠিক ঠিক বৈরাগ্য চাই, সংযম, ত্যাগ, তপস্যা চাই—তবে সাধু হওয়া যায়। তেমনি, গৃহস্থ হলেই হলো না। বিয়ে করে কতকগুলো ছেলে-পিলে হলে, আর খুব টাকা কামাতে পারলেই গৃহস্থ হল না।
বিশদ

02nd  January, 2019
স্বামীজীর শিক্ষার আলোকে শ্রীরামকৃষ্ণ

শ্রীরামকৃষ্ণ যে আমার একান্ত নির্ভর ও গতি! তাঁর ওপর সম্পূর্ণ নির্ভর করে আমি চলেছি। শ্রীরামকৃষ্ণ সাধারণ বুদ্ধির জ্ঞানগোচর হবার নন, তিনি এতই মহান্‌। তিনি স্বামী বিবেকানন্দের মধ্যে দিয়ে জগতে প্রকট হয়েছেন।
বিশদ

01st  January, 2019
সর্বতোমুখী প্রতিভা

নিবেদিতার প্রতিভা ছিল সর্বতোমুখী। কী তিনি ছিলেন না! শিল্পী, বৈজ্ঞানিক, সাংবাদিক, সাহিত্যিক, স্বদেশসেবক, সকলেই তাঁর মধ্যে নিজ নিজ জীবনের আদর্শ দেখতে পাবেন।
বিশদ

31st  December, 2018
বিজ্ঞানময়-কোশ

বুদ্ধি যখন পঞ্চজ্ঞানেন্দ্রিয়ের সহিত যুক্ত, অহংকারাদি বৃত্তির এবং ‘আমি কর্তা’ এই অনুভবের সহিত বর্তমানে থাকে, তখন তাহা বিজ্ঞানময়-কোশ নামে অভিহিত হয়। এই বিজ্ঞানময়-কোশই জীবের সংসার-বন্ধনের কারণ।
বিশদ

30th  December, 2018
চণ্ডীর ত্রিমূর্ত্তি

বেদান্ত-দর্শনের প্রথম অধ্যায়ে একটি সূত্র আছে ‘‘কম্পনাৎ’’। পরব্রহ্ম শ্রীহরিপুরুষের ভয়ে বিশ্বজগৎ প্রকম্পিত। কণ্ঠ শ্রুতিতে আছে, ‘‘মহদ্ভয়ং বজ্রমুদ্যতম্‌’’, উদ্যত বজ্রের মত তিনি মহাভয়ঙ্কর। তাঁহার ভয়ে সূর্য্য উঠে, অগ্নি জ্বলে, বাতাস বহে, যম পর্য্যন্ত কাঁপে। ব্রহ্মের এই ভয়ঙ্করী শক্তিই চণ্ডী। চড়ি ধাতুর অর্থে কোপ করা। চণ্ডী অর্থ কোপময়ী।
বিশদ

29th  December, 2018
জ্ঞান

যথার্থ জ্ঞানের দ্বারা জীবের অবিদ্যারূপ উপাধির বিনাশ হয়, অন্য কোন উপায়ে ইহার নাশ হয় না। ব্রহ্মের সহিত আত্মার একাত্বানুভবই জ্ঞান, শ্রুতি ইহা বলেন। আত্মা কি, অনাত্মাই বা কি, এই বিচার যথাযথ ভাবে করিতে পারিলে আত্মজ্ঞানের উৎপত্তি হয়। অতএব জীব ও ব্রহ্মের স্বরূপ বিচারের দ্বারা নির্ণয় করা কর্তব্য। বিশদ

28th  December, 2018
ভক্তের শ্রেষ্ঠত্ব

আমার মনে হয়, প্রপত্তি সম্পর্কে আমার কিছু বলা দরকার। বোধ হয়, সেটা আমার সামাজিক ও আধ্যাত্মিক দায়িত্ব ও কর্ত্তব্যও। সংস্কৃতে প্র—পত+঩ক্তিন প্রত্যয় করে ‘প্রপত্তি’ শব্দটি নিষ্পন্ন। প্রপত্তির পেছনে মূল ভাবটা, মূল তাৎপর্যটা হচ্ছে এই যে আমাদের এই বিশ্বব্রহ্মাণ্ডে যা কিছু ঘটে চলেছে সবই পরমপুরুষের ইচ্ছার অভিপ্রকাশ।
বিশদ

27th  December, 2018
একনজরে
 মুম্বই, ১১ জানুয়ারি (পিটিআই): বেতন বৃদ্ধি, ‘বেস্ট’ ও ‘বিএমসি’র বাজেট মিশিয়ে দেওয়া সহ একাধিক দাবিতে শুক্রবার চতুর্থ দিনে পড়ল মুম্বইয়ের বাস ধর্মঘট। যার জেরে চরম ...

সংবাদদাতা, মালদহ: সঙ্গীতের তিনটি বিভাগে সর্বভারতীয় প্রতিযোগীদের পেছনে ফেলে সেরার খেতাব ছিনিয়ে নিল মালদহের কিশোরী রাফা ইয়াসমিন। ৯ জানুয়ারি কলকাতায় এই মেধা অনুসন্ধান সঙ্গীত প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিল সর্বভারতীয় সঙ্গীত ও সংস্কৃতি পরিষদ।  ...

বিএনএ, চুঁচুড়া: বামেদের ডাকা ধর্মঘটের দিন কলেজে ঢুকতে বাধা দেওয়ার প্রতিবাদ করায় দলীয় কর্মীকে মারধরে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে শুক্রবার উত্তরপাড়া থানার কানাইপুর ফাঁড়ি ঘেরাও করল তৃণমূল। ...

 ইসলামাবাদ, ১১ জানুয়ারি (পিটিআই): প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারি, সিন্ধ প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী মুরাদ আলি শাহ সহ পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)-এর একাধিক নেতার বিদেশ ভ্রমণের উপর নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখল পাক সরকার। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিতর্ক বিবাদ এড়িয়ে চলা প্রয়োজন। প্রেম পরিণয়ে মানসিক স্থিরতা নষ্ট। নানা উপায়ে অর্থ উপার্জনের সুযোগ। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

জাতীয় যুব দিবস
১৮৬৩: স্বামী বিবেকানন্দের জন্ম
১৯৩৪: মাস্টারদা সূর্য সেনের ফাঁসি
১৯৫০: কলকাতায় চালু হল চিত্তরঞ্জন ক্যানসার হাসপাতাল  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৬০ টাকা ৭১.২৯ টাকা
পাউন্ড ৮৮.২২ টাকা ৯১.৪৩ টাকা
ইউরো ৭৯.৬৯ টাকা ৮২.৭০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২,৬৬৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩০,৯৯০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩১,৪৫৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৯,৩০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৯,৪০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

আজ স্বামী বিবেকানন্দের ১৫৭তম আবির্ভাব দিবস
২৭ পৌষ ১৪২৫, ১২ জানুয়ারি ২০১৯, শনিবার, ষষ্ঠী ৩৯/১৫ রাত্রি ১০/৫। নক্ষত্র- পূর্বভাদ্রপদ ৫/৫০ দিবা ৮/৪৩, সূ উ ৬/২২/৫৮, অ ৫/৬/৩০, অমৃতযোগ দিবা ঘ ৭/৬ মধ্যে পুনঃ ৭/৪৯ গতে ৯/৫৭ মধ্যে পুনঃ ১২/৬ গতে ২/৫৮ মধ্যে পুনঃ ৩/৪০ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১/৪ গতে ২/৫০। বারবেলা ঘ ৭/৪৩ মধ্যে পুনঃ ১/৪ গতে ২/২৪ মধ্যে পুনঃ ৩/৪৪ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ঘ ৬/৪৫ মধ্যে পুনঃ ৪/৪৩ গতে উদয়াবধি।
আজ স্বামী বিবেকানন্দের ১৫৭তম আবির্ভাব দিবস
২৭ পৌষ ১৪২৫, ১২ জানুয়ারি ২০১৯, শনিবার, ষষ্ঠী রাত্রি ৫/৫১/২৯। উত্তরভাদ্রপদনক্ষত্র অহোরাত্র। সূ উ ৬/২৪/১, অ ৫/৪/৪২, অমৃতযোগ দিবা ঘ ৭/৬/৪৪ মধ্যে ও ঘ ৭/৪৯/২৮ থেকে ঘ ৯/৫৭/৩৮ মধ্যে ও ১২/৫/৪৮ থেকে ২/৫৬/৪২ মধ্যে ও ৩/৩৯/২৫ থেকে ৫/৪/৫২ মধ্যে এবং রাত্রি ১/৪/২২ থেকে ঘ ২/৫০/৫৫ মধ্যে। বারবেলা ১/৪/৩৩ থেকে ২/২৪/৩৯ মধ্যে, কালবেলা ৭/৪৪/৭ মধ্যে ও ঘ ৩/৪৪/৪৫ থেকে ৫/৪/৫২ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/৪৪/৪৬ মধ্যে ও ঘ ৪/৪৪/১৬ থেকে ৬/২৪/১০ মধ্যে।
 
এই মুহূর্তে
ভর সন্ধ্যায় শ্যুটআউট পার্কসার্কাসে
ভর সন্ধ্যায় পার্কসার্কাস স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় গুলি করে খুন করা ...বিশদ

09:59:38 PM

কলকাতায় চিতা বাঘের চামড়া সহ ধৃত ২

শনিবার বিকালে উত্তর কলকাতার একটি বাড়ি থেকে চিতা বাঘের চামড়া ...বিশদ

06:20:00 PM

আইলিগ: নেরোকাকে ১-০ গোলে হারাল মোহন বাগান 

04:09:04 PM

পথ দুর্ঘটনায় জখম উঃদিনাজপুরের জেলাশাসক
পথ দুর্ঘটনায় জখম হলেন উঃদিনাজপুরের জেলাশাসক অরবিন্দ কুমার মিনা। তবে ...বিশদ

04:05:22 PM

৩৪ রানে হারল ভারত 
ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজের প্রথম একদিনের ম্যাচ ৩৪ রানে জিতল অস্ট্রেলিয়া  ...বিশদ

03:56:27 PM

 প্রথম ওয়ান ডে: ভারত ২১৪/৬ (৪৫ ওভার)

03:31:36 PM