বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
চারুপমা
 

ঐতিহ্যের ছোঁয়া

ব্যতিক্রমী স্টাইলে ব্ল্যাক প্রিন্সকোটে ভরাট এমব্রয়ডারির কাজ, কটন চান্দেরি পাঞ্জাবিতে লাল সুতোর কাজ, সঙ্গে মানানসই লাল নকশাদার ধুতি, ঘন নীল সিল্ক পাঞ্জাবিতে অ্যান্টিক গোল্ড এমব্রয়ডারি  কাজ। সঙ্গে আছে ম্যাচিং চুড়িদার। মডেল: গৌরব রায়চৌধুরী, পোশাক: বহুরূপী শান্তিনিকেতন, যোগাযোগ: ৯৩৩০৩৭৪৬৪৭

প্রেমের দিনে মনের মানুষ

ভালোবাসার দিনটা আসতে আর দেরি নেই। তার আগে একালের জনপ্রিয় জুটি, অভিনেত্রী স্বস্তিকা দত্ত এবং গায়ক শোভন গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথায় অন্বেষা দত্ত। 

বাতাসে এখন এই গরম, আবার এই এক ঝলক ঠান্ডা হাওয়া। ভালোবাসাও তো এমনই এক মরশুমি খামখেয়ালিপনার গপ্প। এই কাছে আসা তো এই ঝগড়াঝাটি-ভুল বোঝাবুঝি! সব কিছুর শেষে জেগে থাকে ভালোবাসা। প্রজন্মের অন্তরে ভালোবাসা জ্ঞাপনের ধরন যতই বদলাক, এই চাওয়া পাল্টায় না। তাই প্রেমের ‘ঘোষিত’ দিনটা যতবার ফিরে আসে, তখনই প্রশ্নটা ঘুরপাক খায় মনে। প্রেমের জন্য স্রেফ একটা দিন? সম্ভব নাকি বাস্তবসম্মত?

একদিনের ভালোবাসা 
প্রশ্নটা শুনেই স্বস্তিকা জানালেন একটা স্পষ্ট কথা। তথাকথিত ভ্যালেন্টাইন’স ডে নিয়ে তাঁদের দু’জনের ভাবনা একরকম নয়। তাঁর কথায়, ‘যখন থেকে ভ্যালেন্টাইন’স ডে-র কথা শুনেছি বা বুঝেছি, কোনওদিন সে অর্থে দিনটা উদ্‌যাপন করিনি। অনেককে দেখেছি নানাভাবে সেলিব্রেট করতে...বলছি না সেগুলো খারাপ।’ এই সময়ে একটু খেই ধরিয়ে দিয়ে শোভন বলে ওঠেন, ‘সরস্বতী পুজো...?’ তখন স্বস্তিকার জবাব, ‘হ্যাঁ আমরা সরস্বতী পুজোটাই উদ্‌যাপন করি, ভ্যালেন্টাইন’স ডে নয়। ভালোবাসার মানুষের সঙ্গে যদি এক ছাদের তলায় থাকি, তাহলে রোজই তো ভ্যালেন্টাইন’স ডে। একটা দিন কেন বেছে নিতে হবে? শোভনের বক্তব্য আমি জানি না...।’ তিনি হেসে কথা শেষ করতেই শোভন বললেন, ‘আমার বক্তব্য কিছুটা স্বস্তিকার মতো। আবার কিছুটা আলাদাও। কারণ আমাদের দু’জনের বড় হয়ে ওঠা দু’রকমভাবে। আমি ছোটবেলায় ভ্যালেন্টাইন’স ডে দেখিনি। সরস্বতী পুজোর প্রেমটাই দেখেছি। ওই সময়েই প্রেম করেছি। স্বস্তিকাও করেছে। সরস্বতী পুজোটাই আমাদের কাছে বেশি আপন। আমরা খুব প্র্যাক্টিকাল দু’জন মানুষ। ভ্যালেন্টাইন’স ডে বলতে আমরা সরস্বতী পুজোই বুঝি। তাই ভ্যালেন্টাইন’স ডে-র আলাদা করে কোনও গুরুত্ব নেই।’

প্রেমের জন্য কতটা সময়
এই প্রজন্মের তো সব কিছুই ভারি দ্রুতবেগে ধায়। কোথাও বেশিক্ষণ মন বসাতে পারে না তারা। শোনা যায়, সার্বিকভাবে ‘অ্যাটেনশন স্প্যান’ নাকি কমে যাচ্ছে। তাই জানতে চাই এই প্রজন্মের ভালোবাসার জন্য হাতে সেভাবে সময় আছে? শোভন বললেন, ‘সময়ের সঙ্গে একটা বড় জিনিস আমার কাছে সমার্থক। সেটা হল তাগিদ। যদি তাগিদটা থাকে, তাহলে হাতে সময় কম থাকলেও ঠিক ম্যানেজ হয়ে যায়। এটা ব্যক্তিভেদে আলাদা হতে পারে। যে দুটো মানুষ একসঙ্গে থাকছে, তাদের  জীবনযাপন, তারা কীভাবে সম্পর্কটা বয়ে নিয়ে যেতে চায়, তারা কীভাবে দু’জন দু’জনকে কাছে রাখতে চায়, সেটার উপর নির্ভর করে সম্পর্কটা টিকে থাকে। সেদিন একটা কোনও সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে শুনলাম ‘ওপেন ম্যারেজ’-এর কথা। এটা নাকি হচ্ছে আজকাল। আসলে সম্পর্কের সংজ্ঞা অনেকটা ওয়েব সিরিজের মতো হয়ে যাচ্ছে এখন। বেশ কিছু পর্ব, অনেক ট্যুইস্ট-ক্লাইম্যাক্স ঘিরে থাকছে...। আমি শুধু আমাদের সম্পর্কের কথা বলতে পারি। এটা আমাদের মতোই সাধারণ। সাধারণ হয়ে থাকাটাই উপভোগ করি। সেভাবেই চলতে চাই।’ স্বস্তিকা কী বলবেন? ‘এটার উত্তর শোভন দিয়ে দিয়েছে! ভীষণ কঠিন প্রশ্ন। আমি খুব বোকা প্রেমিকা। অত কিছু বুঝি না। সত্যি কথা বলতে কি বেশি দিন শোভনের সঙ্গে দেখা না হলে আমার সমস্যা শুরু হয়। একটা জিনিস খুব গুরুত্বপূর্ণ— যেটা ওকে সবসময় বলি, যে কথা বল। যা মনে হচ্ছে বলে ফেল, সব সলভ হয়ে যাবে। গুমরে গুমরে বিষয়টাকে চেপে রাখলাম। তারপর একদিন অনেক পক্ষ তাতে জড়িয়ে গেল। সম্পর্ক ভেঙে গেল। আমার মনে হয় না এমন কোনও সমস্যা তৈরি হতে পারে যার সমাধান হয় না। শোভন নিজের মতো করে বলল। ও আমার চেয়ে অনেক পরিণত। তাই ও সেভাবে বলতে পারে। আমি আবারও বোকা প্রেমিকার মতো বলব, এই প্রজন্মের সবচেয়ে বড় সমস্যা— কিছু একটা হলেই কথা বলব না। সব বন্ধ! মাঝে মাঝে আমিও হয়তো এটা করে ফেলি। কিন্তু দিনের শেষে সেই ব্লকটা ভেঙে দিতে পারি। কথা বলা, খাওয়াদাওয়া করা সব কিছুর মধ্যে সমস্যাকে আর জিইয়ে রাখি না। তাই ভুল বোঝাবুঝি রাগারাগি যাই হোক, এক-দু’দিনের মধ্যে শেষ করে দাও। ওটা বাড়াতে থাকলে কিন্তু সেই তৃতীয়-চতুর্থ-পঞ্চম অনেক ব্যক্তি ঢুকে পড়বেই। তখন কিছু করার থাকে না।’  

মোবাইল কখন অন্তরায়
ভালোবাসা মানে আর্চিজ গ্যালারির জায়গা এখন নিয়েছে মুঠোফোন। যোগাযোগ রাখার বাইরে মোবাইল-আসক্তি কি প্রেম বা সম্পর্কে বাধা? প্রেমিকার কথা প্রেমিকের কান পর্যন্ত পৌঁছচ্ছেই না! ‘এটা তো তুইও করিস শোভন!’ প্রশ্নটা প্রায় লুফে নিয়ে স্বস্তিকা বললেন, ‘ও মোবাইল দেখছে দেখুন এখনও (হাসতে হাসতে)! এটা বলছি বটে, তবে আমাদের যখন কথা বলার সত্যিই দরকার হয়, তখন দু’জনের ফোন দু’প্রান্তে থাকে। আমরা জানি কোন সময়টা সোশ্যাল মিডিয়াকে দিতে হবে, কখন কাজকে দিতে হবে, কখন বন্ধুবান্ধবকে দিতে হবে, কখন নিজেদের জন্য রাখতে হবে। দু’জনের দু’জনকে স্পেস দিতে হবে। প্রেম করছি মানে নিজের বন্ধুবান্ধব থাকবে না, নিজের মতো কাটানোর মুহূর্ত থাকবে না তা নয়। আবার একান্তে সময় যখন কাটাব, তখন একজন সারাক্ষণ ফোন দেখে গেল, এমনটা আমাদের হয় না। (শোভনের উদ্দেশে) আমরা কি করি এরকম...?’ তারপর নিজেই বলেন, ‘না করি না। সেটা কেউ করলে মুশকিল। আমরা একসঙ্গে একঘরে থেকেও দু’জন দু’জনের স্পেসে থাকতে পারি। তাকে অ্যাভয়েড করা বলে না। দু’জন দু’জনের পৃথক অবস্থানকে সম্মান করছি। আমি কথা বলছি, আর ও ফোনে গেম খেলছে, এসব আমাদের হয় না।’ ফস করে শোভন বলে ওঠেন, ‘এটা খানিকটা মেয়েদের স্বভাবের উপর নির্ভর করে। আর ছেলেরা বেশি চাপ নেবে না বলে চুপ করে থাকে!’ শুনে স্বস্তিকা বলেন, ‘হ্যাঁ শোভন চুপ করে থাকে। ও তো নাম্বার ওয়ান ভিতু। ওকে যদি    জিজ্ঞেস করি, কী রে কথা বলছিস না কেন? ও তাতেও চুপ। আমি যদি কোনও ভুল করে থাকি, তাতেও ও কিছু বলবে না। ভীষণ চাপা স্বভাবের।’ তাহলে এভাবেই শান্তি বজায় থাকে? হেসে স্বস্তিকা বলেন, ‘হ্যাঁ ও ওইরকমই!’

একরকম না ভিন্ন ভালোলাগা    
চুম্বকের মতো প্রেমেও বিপরীত মেরু পরস্পরকে আকর্ষণ করে। কিন্তু আবার কিছু ‘কমন’ ভালোলাগাও তো থাকতে হয়। সেটা যদি একেবারেই না থাকে, চলে কি? স্বস্তিকা বললেন, ‘আমি জানি ওর কী ভালো লাগে। আর ও জানে আমার কী ভালো লাগে। ফলে দু’জনের ভালোলাগা আলাদা হলেও ও চেষ্টা করে দু’দিন আমার প্রিয় রেস্তরাঁয় খেতে যেতে। পরের দু’দিন আমি ওর প্রিয় রেস্তরাঁয় গেলাম। প্রেমে দু’জনের আলাদা ভালোলাগাগুলোকে সম্মান করতে হয়। দু’জন মানুষ ‘কমপ্যাটিবল’ হতেও পারে আবার না-ও পারে। শোভন কী বলবি?’ গায়ক-প্রেমিকের মত, ‘দু’জন  ‘কমপ্যাটিবল’ মানুষ একসঙ্গে থাকার চেয়ে দু’জন ‘আনকমপ্যাটিবল’ একসঙ্গে থাকলে ভালো। ঝগড়া, আনন্দ, বন্ধুত্ব সবটাই বেশি বেশি হয়! সেটাই ভালো লাগে।’

সহজ প্রেম 
সহজ পথে প্রেম বাঁচিয়ে রাখতে চায় যারা, তাদের কী বুদ্ধি দেবেন? স্বস্তিকার আশ্বাস, ‘হাল ছেড়ো না বন্ধু!’ শোভন একটু ভেবে বলেন, ‘রিল-এর থেকে রিয়্যাল-এ বেশি সময় দেওয়া শুরু করো।’
সহজ সম্পর্কে থাকা সত্যিই কি  কঠিন? স্বস্তিকা-শোভনের রসায়ন কিন্তু সে কথা বলছে না। ভালোবাসার জন্য একটি মুহূর্তই যথেষ্ট যখন, তখন সহজ কথা সহজে বলে ফেললেই  তো হয়! 
ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া
গ্রাফিক্স: সোমনাথ পাল
 

11th     February,   2023
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ