বিকিকিনি

বৈঠকখানার আসবাব

কেমন আসবাবে সাজিয়ে তুলবেন আপনার লিভিং রুম? রইল স্বরলিপি ভট্টাচার্যের পরামর্শ।

কথায় আছে, মুখ হল মনের আয়না। মুখ দেখেই মনের ভাব খানিক আন্দাজ করা যায়। তেমনই বৈঠকখানা বাড়ির আয়না। যাকে আধুনিক সময়ে লিভিং রুম হিসেবে চেনেন আপনি। বাড়িতে ঢুকেই অতিথির প্রথম পরিচয় ঘটে বৈঠকখানা বা লিভিং রুমের সঙ্গেই। তা পেরিয়ে একে একে বেডরুম, রান্নাঘর, পড়ার ঘর, অতিথির জন্য নির্দিষ্ট কামরার দেখা মেলে। ফলে লিভিং রুম কেমন সাজানো, তা দেখে বাড়ির মালিকের নান্দনিক বোধের পরিচয় পাওয়া যায়। 
একসময় ছড়ানো বৈঠকখানার আমেজে বাঁচত বাঙালি। কর্তাদের আড্ডা বসত সাদা ফরাসের উপর। তাকিয়া দিয়ে সাজানো সে বিছানায় গোল হয়ে বসতেন অভ্যাগতরা। হাতলওয়ালা চেয়ারও থাকত খানকয়েক। কেতাবি টেবিলের উপর ফুলদানিতে সাজানো রজনীগন্ধার স্টিক। বর্ষায় ছাতা রাখার জন্য আলাদা র‌্যাক দরজার একপাশে মজুত থাকত। এ চিত্র এখন বদলেছে। কারণ স্কোয়ার ফুটের হিসেবে জীবন মাপা। ফলে লিভিং রুমের আসবাব কেনার আগে পরিকল্পনা করে নিন।
সোফা সেট: লিভিং রুমের প্রাথমিক আসবাব হল সোফা সেট। কত বড় ঘর, অর্থাৎ জায়গা অনুযায়ী কত বড় সোফা রাখবেন, সেটা নির্ভর করবে। চারটে বা ছ’টা সোফার সেট রাখতে পারেন। কাঠ, বেত, বাঁশের তৈরি সোফা বেছে নিন বাজেট অনুযায়ী। সঙ্গে কয়েকটা ছোট মোড়া রাখুন কুশনে সাজিয়ে। রকমারি নকশাদার কাঠের ছোট টুল খুব ট্রেন্ডি। শিশুদের বসার জন্য কার্টুন প্রিন্টের বিন ব্যাগ রাখতে পারেন। এমনকী জমাটি আড্ডার পরিবেশে বড়দের জন্যও বিন ব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন।
টি টেবিল: সনাতনী ডিজাইনের কাঠের টি টেবিল অত্যন্ত মার্জিত রুচির পরিচায়ক। সোফা সেট বেতের তৈরি হলে, বেত দিয়েই তৈরি টি টেবল সেট হিসেবে ব্যবহার করুন। একটু অন্য কায়দায় সাজাতে চাইলে ঠাকুরমা, দিদিমার আমলের পুরনো ট্রাঙ্ক একরঙা সিল্ক বা কাঁথা কাজের সুতির কাপড়ে ঢেকে টি টেবিল হিসেবে ব্যবহার করুন।  
স্ট্যান্ডিং ল্যাম্প: বসার ঘরের এক কোণে রাখুন স্ট্যান্ডিং ল্যাম্প। অনলাইন বা অফলাইন দু’ভাবেই সংগ্রহ করতে পারেন। সোফার একপাশে বসে বই পড়ার সময় যেমন কাজে দেবে এই আলো, তেমনই আড্ডার পরিবেশে নরম মায়া ছড়িয়ে রাখবে ঘর জুড়ে।
আরামকেদারা: দাদুর আমলের আরামকেদারা উত্তরাধিকার সূত্রে যাঁরা পেয়েছেন, তাঁরা একদিক থেকে ভাগ্যবান। কারণ এমন অ্যান্টিক আসবাব এখন হয়তো বহু অর্থ খরচ করলেও পাওয়া যাবে না। এমন একখানি আরামকেদারা আপনার সংগ্রহে থাকলে সেটাই আপনার লিভিং রুমের সেরা ঐশ্বর্য। হোক না ফ্ল্যাট, তাতে তার জৌলুস কমবে না। দিনের শেষে বাড়ি ফিরে আরামকেদারায় বসে এক কাপ কফি খাওয়া বা পছন্দের বই পড়ার স্বাদ সহজে মেলে না।
ক্লাব চেয়ার: আপনার লিভিং রুমে কোন ধরনের অতিথি আসেন, তার উপর নির্ভর করে ক্লাব চেয়ার দিয়ে সাজান। যদি লিভিং রুমে বসেই পেশাগত কাজ খানিক সামলাতে হয়, অথবা একের পর এক অনলাইন মিটিংয়ের স্বার্থে ভিডিও কলে ব্যস্ত থাকতে হয়, তাহলে ক্লাব চেয়ার দিয়ে সাজান বসার ঘর।
টিভি স্ট্যান্ড: দেওয়াল জোড়া ক্যাবিনেট, মাঝে টিভি রাখার বড় জায়গা— সম্পন্ন মধ্যবিত্ত বাড়ির লিভিং রুমের চেনা ছবি। জায়গা এবং বাজেট থাকলে বড় ক্যাবিনেট করিয়ে তার মধ্যেই টিভি রাখার ব্যবস্থা করুন। আর বাজেট এবং জায়গায় টান পড়লে হাল ফ্যাশনের টিভি স্ট্যান্ড খুঁজে নিন। সেক্ষেত্রে ঘরের এক কোণে অল্প জায়গাতেই বড় টিভি রাখতে পারবেন। 
বইয়ের র‌্যাক: দিনভর বই, ম্যাগাজিন, খবরের কাগজে হয়তো ডুবে থাকেন আপনি। তা পেশার তাগিদ হতে পারে, অথবা ব্যক্তিগত ভালোলাগার বহিঃপ্রকাশ। ছোট ফ্ল্যাটে অনেক বই একসঙ্গে রাখার জায়গার অভাব হয়। সেক্ষেত্রে লিভিং রুমেই বড় বইয়ের র‌্যাক তৈরি করে নিন। আলাদা তাকে গুছিয়ে রাখুন ফাইল, হিসেবের খাতার মতো টুকিটাকি জিনিসও। 
হ্যাঙ্গিং ক্যাবিনেট: ডোকরা, মাটির পুতুল, শাঁখের শো-পিস, প্রাদেশিক মুখোশ দিয়ে ঘর সাজাতে পছন্দ করেন অনেকে। আপনার এই শখ থাকলে তা বসার ঘরের হ্যাঙ্গিং ক্যাবিনেটে গুছিয়ে রাখুন। বহু মানুষ নিজের অথবা সন্তানের পুরস্কার পাওয়া নানা ট্রফি, মেডেল, মেমেন্টো সাজিয়ে রাখেন। সেক্ষেত্রেও এই ধরনের ঝুলন্ত ক্যাবিনেট কাজে লাগবে। আপনার শখ বা আপনার কৃতিত্বের স্বীকৃতি পাওয়া নানা পুরস্কারের সঙ্গে অতিথিরা এভাবেই পরিচিত হওয়ারও সুযোগ পাবেন।
স্টোরেজ ক্যাবিনেট: ছোট একটা স্টোরেজ ক্যাবিনেট বৈঠকখানায় রাখতে পারেন। কাঠ, বাঁশ, বেত নানা ধরনের জিনিস দিয়ে তৈরি করাতে পারেন এই ক্যাবিনেট। ছোটখাট অথচ প্রয়োজনীয় নানা জিনিস এর মধ্যে রেখে দরজা টেনে দিন। এতে প্রয়োজনীয় জিনিস আপনার হাতের কাছেই থাকবে অথচ তা অতিথির নজরেও পড়বে না।
শ্যু র‌্যাক: ফ্ল্যাটের বাইরে শ্যু র‌্যাক রাখতে অনেকে আপত্তি করেন। যেহেতু ফ্ল্যাটে ঢুকে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই প্রথমে থাকে লিভিং রুম তাই শ্যু র‌্যাক এই ঘরেরই এক কোণে রাখতে হবে। স্লাইডিং ডোরের ব্যবস্থা করুন। এর পাশেই স্বল্প জায়গায় ছাতার স্ট্যান্ড রেখে দিন। র‌্যাকে সুদৃশ্য বোতলে মানিপ্ল্যান্ট বা ছোট টেবিল ল্যাম্প দিয়ে সাজিয়ে রাখতে পারেন।
1Month ago
কলকাতা
রাজ্য
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

পারিবারিক সম্পত্তি সংক্রান্ত আইনি কর্মে ব্যস্ততা। ব্যবসা সম্প্রসারণে অতিরিক্ত অর্থ বিনিয়োগের পরিকল্পনা।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৮৫ টাকা৮৪.৫৯ টাকা
পাউন্ড১০৬.৪৩ টাকা১০৯.৯৫ টাকা
ইউরো৮৯.৬৩ টাকা৯২.৭৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা