বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

মমতার দীর্ঘায়ু কামনায় লাইন দিয়ে শিবের মাথায় জল ঢাললেন জবকার্ডধারীদের স্ত্রীরা

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: ১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা দেওয়ায় উপবাস করে, লাইন দিয়ে শিবের মাথায় জল ঢাললেন জবকার্ডধারীদের স্ত্রীরা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সুস্থতা, দীর্ঘায়ু কামনাও করলেন। তাঁরা চান, রাজ্যে যেন ফের ১০০ দিনের কাজ চালু হয়। সোমবার এমনই ছবি ধরা পড়ল বামাক্ষ্যাপার জন্মস্থান রামপুরহাটের আটলা গ্রামের প্রাচীন শিবমন্দিরের সামনে।
দু’বছরের বেশি সময় ধরে এরাজ্যে ১০০ দিনের কাজ বন্ধ রেখেছে কেন্দ্রীয় সরকার। তার উপরে লক্ষ লক্ষ শ্রমিক কাজ করেও মজুরি পাননি। বকেয়া মেটানোর বিষয়ে উদ্যোগী হয়নি কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। অবশেষে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গ্রামবাংলার অসহায় মানুষের দুর্দশার কথা উপলব্ধি করে শ্রমিকদের বকেয়া মেটাতে শুরু করেছেন।
এবার রামপুরহাট-১ ব্লকের খরুণ গ্রাম পঞ্চায়েতের আটলায় একাধিক গ্রামের জবকার্ডধারীদের স্ত্রীরা বামদেব স্মৃতি মন্দিরে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি-সংবলিত ফ্লেক্স হাতে হাজির হন। তাঁরা লাইন করে মুখ্যমন্ত্রীর শুভকামনায় উপোস থেকে শিবের মাথায় জল ঢাললেন। কেউ কেউ শিবের মাথায় ফুল, মালা ও ফল চড়ালেন। ওই মহিলারা জানান, হিন্দুধর্ম অনুসারে সোমবার পরমেশ্বর ভগবান শিবের প্রিয় বার। এই দিনে অনেক হিন্দু শিবের ব্রত পালন করেন। তাই এই শুভক্ষণে শিবের মাথায় জল ঢেলে দিদির প্রতি শুভকামনা জানালেন।
আটলা গ্রামের বাসিন্দা পুজা লেট। স্বামী সুখেন লেট দিনমজুর। তাঁর জবকার্ডের বকেয়া হিসেবে চার হাজার টাকা ঢুকেছে। এদিন পূজা শিবের মাথায় জল ঢেলে বেরিয়ে এসে বলেন, বাড়ির রোজগেরে ব্যক্তি বলতে স্বামী। দিনমজুরের কাজ তো রোজ জোটে না। তার উপর কাজ করেও টাকা না পাওয়ায় ছোট ছেলেমেয়েদের নিয়ে অভাব-অনটনে দিন কাটাতে হচ্ছে। এসময়ে বকেয়া টাকা যে কত উপকারে লাগল-তা বলে বোঝানো যাবে না। মুদিখানার দোকানে ধার মিটিয়ে চিন্তামুক্ত হয়েছি। দিদি পাশে দাঁড়ানোয় এটা সম্ভব হয়েছে। মহাদেবের কাছে এরকম একজন মুখ্যমন্ত্রীর সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করলাম।
রাজখণ্ড গ্রামের বাসিন্দা লিপিকা লেট। স্বামী কৈলাসপতির জবকার্ডের অ্যাকাউন্টে ১২ হাজার টাকা ঢুকেছে। লিপিকা বলেন, মূল্যবৃদ্ধির বাজারে দিনমজুরের কাজ করে সংসার চলে না। ছেলেমেয়েদের টিউশনের টাকা বাকি পড়ে গিয়েছিল। বকেয়া টাকা পেতেই টিউশন বাবদ আট হাজার টাকা মিটিয়েছি। বাকি চার হাজার টাকা দিয়ে ছাগল কিনে পুষব। দিদির সুস্থতার পাশাপাশি ফের জবকার্ডে কাজ চালু হোক-এই কামনায় শিবের মাথায় জল ঢাললাম। স্বামীর কাজের বকেয়া টাকা পেয়ে দিদিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কবিচন্দ্রপুরের রীতা মণ্ডল সহ আরও অনেকে।

5th     March,   2024
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ