কলকাতা

আমিই কি সল্টলেকের রাস্তা ঝাঁট দিতে নামব? কাউন্সিলারদের প্রশ্ন মমতার

নিজস্ব প্রতিনিধি, বিধাননগর: ‘রাস্তা ঝাঁট দেয় না। এবার কি আমায় রাস্তা ঝাঁট দিতে বেরতে হবে।’ সোমবার নবান্নের বৈঠক থেকে সল্টলেকের বেহাল পুর পরিষেবা নিয়ে ক্ষোভ জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে টাকার বিনিময়ে সল্টলেকে সরকারি জমি জবরদখল হচ্ছে বলেও উষ্মা প্রকাশ করেন তিনি। বৈঠকে সরাসরি দমকলমন্ত্রী সুজিত বসুর নাম উল্লেখ করে বলেন, ‘সল্টলেকে ইচ্ছেমতো সুজিত বসু লোক বসাচ্ছে’। এই উপনগরীর বেহাল দশা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী যে তিতিবিরক্ত তা এদিন তাঁর কথাতেই স্পষ্ট হয়েছে। তিনি এও বলেন, ‘সল্টলেকের জন্য আমার লজ্জা লাগছে’। 
কলকাতা শহরের পাশেই অবস্থান অভিজাত সল্টলেক উপনগরীর। বিধাননগর পুরসভার ৪১টি ওয়ার্ডের মধ্যে চারটি সংযুক্ত এলাকা। সল্টলেকের মধ্যে রয়েছে ১৪টি ওয়ার্ড। এই ১৪টি ওয়ার্ড বিধাননগর বিধানসভার অন্তর্গত। গত লোকসভা নির্বাচনে সল্টলেকের ১০টি ওয়ার্ডেই হেরেছে তৃণমূল। এদিন নবান্নের সভাগৃহে বিধাননগরের বিধায়ক তথা মন্ত্রী সুজিত বসু, বিধাননগরের মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী এবং চেয়ারম্যান সব্যসাচী দত্ত উপস্থিত ছিলেন। সেখানে সকলের সামনেই মুখ্যমন্ত্রী জবরদখল নিয়ে বলেন, ‘সল্টলেকে ইচ্ছে মতো সুজিত বসু লোক বসাচ্ছে। কম্পিটিশন করে। কেন বাইরের লোক বসবে? এআরডি অফিসের বিপরীতে যদি আপনাদের ছবি দেখাই তাহলে নিজেরাই লজ্জা পাবেন। এর জন্য কত দিতে হয়েছে? একটা ত্রিপল লাগাচ্ছে আর বসে পড়ছে। কেন? কেন? কেন? আমি জানতে চাই, কত টাকার বিনিময়ে, কারা নিয়েছে টাকা?’
এরপরই পুর পরিষেবার প্রসঙ্গ তুলে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সল্টলেকের কাউন্সিলাররা কাজ করেন না। তাঁরা তো নির্বাচিত। কেন কাজ করেন না? রাস্তায় ঝাঁট দেয় না। এবার কী আমাকে রাস্তায় ঝাঁট দিতে বেরতে হবে? শুধু উপরের দিকে তাকালে হবে? নীচের দিকে তাকাতে হবে না? এলাকার লাইট দেখে না, রোড দেখে না, জল দেখে না, মানুষের সমস্যা দেখে না।’ সেই সঙ্গে রাজারহাটেও জবরদখল শুরু হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। বেআইনি নির্মাণে বিদ্যুৎসংযোগও পেয়ে যাচ্ছে তারা বলে আক্ষেপও করেন।
সল্টলেকের বাসিন্দারা এদিন বলেন, মুখ্যমন্ত্রী তো হাতে ছবি নিয়ে সল্টলেক জবরদখলের কথা বলেছেন। পাড়ার চুনোপুঁটি নেতা থেকে বড় নেতা, সবার মদতেই জবরদখল হচ্ছে। কোথাও প্রশাসনের লোকজনকেও বকশিস দেওয়া হচ্ছে। কয়েকজন কর্মী সংগঠনের নেতাও এর সঙ্গে যুক্ত। কোনও নেতা আবার মান্থলির বিনিময়ে অস্থায়ীভাবে লোকজন বসিয়ে দিচ্ছেন।
বৈঠক প্রসঙ্গে মন্ত্রী সুজিত বসু বলেন, ‘আমি কোনও মন্তব্য করব না। তবে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত হোক। তাহলেই সত্য বেরিয়ে আসবে’। বিধাননগরের মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী বলেন, ‘পুর পরিষেবা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী ঠিকই বলেছেন। মোল্লার ভেড়িতে এখনও আবর্জনা ফেলতে পারি না। ধাপায় পাঠাতে হয়। গাড়ির ঘাটতি রয়েছে। আমরা কাউন্সিলারদের সচেতন করব। মুখ্যমন্ত্রী যে যে দিকগুলি তুলে ধরেছেন, সেগুলি কীভাবে আরও ভালো করা যায় আমরা তার চেষ্টা করব।’
সল্টলেকে ইন্দিরা ভবনের পিছনে উন্মুক্ত ভ্যাট। রাস্তায় ছড়িয়ে পড়ছে আবর্জনা।-নিজস্ব চিত্র
25d ago
রাজ্য
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

গুরুজনের থেকে অর্থকড়ি লাভ হতে পারে। স্বার্থান্বেষী আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দূরত্ব রেখে চলুন। মনে চাঞ্চল্য।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৮১ টাকা৮৪.৫৫ টাকা
পাউন্ড১০৬.৫৫ টাকা১১০.০৬ টাকা
ইউরো৮৯.৫৫ টাকা৯২.৭১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা