বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

রাঁচির সভায় একজোট ‘ইন্ডিয়া’,  গণতন্ত্র ধ্বংস হতে দেব না, বার্তা বিরোধীদের

রাঁচি: কেন্দ্রীয় এজেন্সির অপব্যবহার, বিজেপির স্বৈরতন্ত্র, গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ— একাধিক ইস্যুতে রবিবার রাঁচিতে ‘উলগুলান ন্যায় র‌্যালি’র আয়োজন করল ‘ইন্ডিয়া’ জোট। ব্রিটিশের বিরুদ্ধে আন্দোলনে বীরসা মুন্ডা এই শব্দ ব্যবহার করেছিলেন। উলুগুলান শব্দের অর্থ বিপ্লব। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনের গ্রেপ্তারির প্রতিবাদে আওয়াজ তুলল ২৮ দলের বিরোধী মঞ্চ। তবে ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা (জেএমএম) আয়োজিত এই মেগা সভায় উপস্থিত থাকতে পারলেন না রাহুল গান্ধী। শারীরিক অসুস্থতার কারণে শেষ মুহূর্তে সফর বাতিল করতে হল তাঁকে। যদিও কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়্গে উপস্থিত ছিলেন। 
এদিন দুপুরে কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশ এক্স হ্যান্ডেলে রাহুলের অসুস্থতার খবর দেন। লেখেন, ‘রাহুল সাতনার ও রাঁচির সমাবেশের জন্য প্রস্তুত ছিলেন। কিন্তু আচমকা তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাই দিল্লি ছেড়ে বেরনো তাঁর পক্ষে সম্ভব নয়।’ 
দিল্লির রামলীলা ময়দানে ‘ইন্ডিয়া’ জোটের সমাবেশে নজর কেড়েছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়ালের স্ত্রী সুনীতা কেজরিওয়াল ও হেমন্ত সোরেনের স্ত্রী কল্পনা সোরেন। এদিন রাঁচির মঞ্চেও সকলের নজর ছিল তাঁদের উপর।  অরবিন্দ ও হেমন্তের জন্য প্রতীকী ফাঁকা চেয়ার রাখা হয়েছিল মঞ্চে। দ্বিতীয় দফার ভোটের আগে বিরোধী জোটের পায়ের মাটি শক্ত করতে এই সভা তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। প্রভাত তারা মাঠে আয়োজিত সভায় সুনীতা, কল্পনা ছাড়াও ছিলেন জেএমএম সুপ্রিমো শিবু সোরেন, ফারুক আবদুল্লা, তেজস্বী যাদব, অখিলেশ যাদব, ভগবন্ত মান সহ আরও অনেকে। সমাবেশ থেকে কেজরিওয়াল পত্নীর হুঙ্কার, ‘আমরা একনায়কতন্ত্রের বিরুদ্ধে লড়ব।’ ইনসুলিন প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, ‘বিজেপি সরকার অরবিন্দকে মেয়ে ফেলতে চাইছে। তাই তাঁকে ইনসুলিন দেওয়া হচ্ছে না।’ আর হেমন্ত-পত্নী কল্পনা পাঠ করেন জেল থেকে পাঠানো স্বামীর বার্তা। বলেন, বিরোধীদের দমাতে সিবিআই ও ইডির মতো এজেন্সি ব্যবহার করতে চাইছে বিজেপি। কিন্তু ঝাড়খণ্ড থেকে এই শক্তিকে হটিয়ে দেওয়া হবে। কল্পনা বলেন, সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতেই কেজরিওয়াল ও হেমন্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মল্লিকার্জুন খাড়্গে বলেন, ‘আদিবাসীদের এমন ক্ষোভ অব্যাহত থাকলে বিজেপি নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। আমরা মানুষকে ভয় পাই। নরেন্দ্র মোদিকে নয়।’ ফারুকের বক্তব্য, ‘আপনি যদি ভারতকে সম্মান করেন, তাহলে ইন্ডিয়া জোটে ভোট দিন।’ তেজস্বী যাদবও বলেছেন, ঝাড়খণ্ডের মানুষ বিজেপিকে যথাযথ জবাব দেবে।  
অন্যদিকে, এদিন রাঁচির সভার একটি ভিডিও টুইট করেন বিজেপির আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য। সেখানে দেখা গিয়েছে, দুই গোষ্ঠীর মধ্যে বাদানুবাদ চলছে। অমিত লিখেছেন, ‘আসনরফা নিয়েই ওদের মধ্যে যা অশান্তি, সেখানে এই ঘটনা কিছুই নয়।’ বিরোধীদের অবশ্য দাবি, অন্য কোনও ইস্যু না পেয়ে এমন ভিডিও ছড়িয়ে কুৎসা রটানোর চেষ্টা করছে বিজেপি।

22nd     April,   2024
 
 
অক্ষয় তৃতীয়া ১৪৩১
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ