বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

কাঠফাটা রোদ সত্ত্বেও সিতাইয়ে অভিষেকের রোড শো জনসমুদ্র

মনসুর হাবিবুল্লাহ, সিতাই: শনিবার বিকেলে কোচবিহারের সিতাইয়ে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী জগদীশচন্দ্র বর্মা বসুনিয়ার সমর্থনে রোড শো করলেন দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি হেলিকপ্টার থেকে নেমে দত্তপাড়া মোড় থেকে রোড শো শুরু করেন। বিকেল ৩টায় তখন কাঠফাটা রোদ। সেইসঙ্গে প্রচণ্ড গরম। এসবকে উপেক্ষা করে রাস্তার দু’ধারে সারি সারি মানুষের লাইন। বাড়িতে বাড়িতে ‘উই লাভ অভিষেক’ ফ্লেক্সের ছড়াছড়ি। দোতালার বারান্দা থেকে মহিলারা হাত নাড়ছেন। হুডখোলা গাড়িতে অভিষেক এগিয়ে চলছেন। পিছনে ঢল নেমছে মানুষের। গাড়ির সামনে পিছনে বিশাল মিছিল। সিতাইয়ের দত্তপাড়া থেকে বিডিও অফিসের মোড় পর্যন্ত যেন জনসমুদ্র। চারদিকে সবুজ পতাকায় মোড়া। 
উচ্ছ্বসিত অভিষেক মিছিলে গোলাপের পাপড়ি ছুড়ে দেন। রোড শো শেষে সিতাই বিডিও অফিস মোড়ে তিনি জনতার উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, কোচবিহারে এবার জয় নিশ্চিত। বিজয় মিছিল করতে আমি ফের আসব। তৃণমূলকে ভোট না দিলে বঞ্চিত হবে বাংলা। পাঁচ বছর আগে ভোট নিয়ে যে বেইমানি করেছে বিজেপি, তাদের এবার উচিত শিক্ষা দেওয়ার ভোট। বিদায়ী বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিকের নাম উল্লেখ না করে তিনি বলেন, সাধারণ মানুষের আশীর্বাদে নেংটি ইঁদুর বাঘে পরিণত হয়েছিল। এবার সেই বাঘকে ফের ইঁদুরে পরিণত করতে হবে। 
চৈত্র সেলে উপচে পড়েছিল মহিলাদের ভিড়। জনতার কাছে অভিষেক জানতে চান এত ভিড় কেন? মহিলারা জানিয়ে দেন, লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের ভাতা বৃদ্ধির জন্য। কোচবিহারের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের খতিয়ান এদিন তুলে ধরেন অভিষেক। সেই খতিয়ান প্রতি বুথে ১০ জনের কাছে পৌঁছে দেওয়ার আহ্বান জানান প্রতিটি কর্মীকে। ইভিএমের ১ নম্বর বোতামের জগদীশচন্দ্র বর্মা বসুনিয়াকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। কোচবিহারের উন্নয়নের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন অভিষেক। তিনি বলেন, নির্বাচনে জেতার পরে নিশীথ প্রামাণিককে কোচবিহারে দেখা যায়নি। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার এসেছেন। তাই কানে শুনে নয়, এবার চোখে দেখা উন্নয়ন দেখেই তিনি ভোট দিতে বলেন মানুষকে। তিনি আরও বলেন, কোচবিহার জেলায় ৭ লক্ষ ৯২ হাজার মহিলা লক্ষ্মীর ভাণ্ডার পাচ্ছেন। ৩০ লক্ষ ৫৯ হাজার ২৯২ জন রেশন পাচ্ছে। তৃণমূল ভোটে জিতলেই ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সকলেই আবাস যোজনার ঘর পাবেন। কেন্দ্রের বিএসএফ রাজবংশী যুবকদের গুলি করে মেরেছে সীমান্তে। ভোটের সময় শীতলকুচিতে তরতাজা যুবকদের গুলি করে মেরেছে সিআইএসএফ। বাংলার মানুষের সঙ্গে পাঁচ বছর যা করেছে, তার জবাব দেওয়ার ভোট এটা। সিতাইয়ের বিজেপির কনভেনর দীপক রায় বলেন, ভয়-ভীতি দেখিয়ে লোক নিয়ে আসা হয়েছে। অনেকেই হেলিকপ্টার দেখতে এসেছেন। ভোটে  এর প্রভাব পড়বে না।  -নিজস্ব চিত্র

14th     April,   2024
 
 
অক্ষয় তৃতীয়া ১৪৩১
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ