বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

আসরে শিবকুমার, হিমাচলে মুখ্যমন্ত্রী বদলে কং ড্যামেজ কন্ট্রোল?

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: রাজ্যসভা ভোটে কংগ্রেসের ঘরে ‘সিঁধ কাটা’র পরও কি সফল হচ্ছে না ‘অপারেশন লোটাস’? কর্ণাটকের ক্রাইসিস ম্যানেজার ডি কে শিবকুমার আসরে নামার পর এই ব্যাপারে অনেকটাই আত্মবিশ্বাসী কংগ্রেস। কাটতে সফল হলেও হিমাচল প্রদেশে বিজেপির ‘অপারেশন লোটাস’কে আপাতত ব্যর্থ করে দিতে পারবে বলেই আত্মবিশ্বাসী কংগ্রেস। অথচ বুধবার দিনের শুরুতেই পরিস্থিতি এমন ছিল না। টালমাটাল ছয় বিধায়ক এবং বেঁকে বসা বিক্রমাদিত্য সিং—এই দুই মিলিয়ে হিমাচলে সরকার পড়ে যাওয়া নিয়ে জল্পনা শুরু হয়ে যায়। অনাস্থা ডাকার প্রস্তুতি নিতে শুরু করে রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি। শিবকুমার সিমলায় আসার পরই অবশ্য বদলায় ছবি। নয়া স্ট্র্যাটেজিতে বিজেপির ১৫ বিধায়ককে সাসপেন্ড করে বাজেট পাশ করিয়ে নেয় সুখবিন্দর সিং সরকার। সভাও মুলতুবি করে দেওয়া হয় অনির্দিষ্টকালের জন্য। অর্থাৎ, বিজেপির অনাস্থা প্রস্তাব আনার সুযোগ ছেঁটে ফেলা হয় গোড়াতেই। তারপর শুরু হয় দলের অন্দরের ক্ষোভ নিরসনের উদ্যোগ। এই ড্যামেজ কন্ট্রোলের প্রধান পদক্ষেপ কি মুখ্যমন্ত্রী বদল? এই জল্পনা কিন্তু এখন দেশজুড়ে।
দলীয় সূত্রের খবর, সুখুকে সরিয়ে মুকেশ অগ্নিহোত্রীকে মুখ্যমন্ত্রী এবং বিক্রমাদিত্য সিংকে উপ-মুখ্যমন্ত্রী করা হতে পারে। রাজ্যসভায় হারের পরই আচমকা হিমাচলের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বীরভদ্র সিংয়ের পুত্র বিক্রমাদিত্য মন্ত্রিপদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন। সঙ্গে সঙ্গে রাজ্য এবং জাতীয় স্তরে তুমুল রাজনৈতিক চাঞ্চল্য শুরু হয়। জল্পনা চলে, লোকসভা ভোটের আগে কি আবার একটি বিরোধী রাজ্যকে ঘুরপথে দখল করছে বিজেপি? কিন্তু দুপুর গড়াতেই ফের নাটকীয় পরিবর্তন। বিক্রমাদিত্য সিংয়ের ইস্তফা গ্রহণ না করে তাঁকে ও তাঁর অনুগামীদের তুষ্ট করার পাল্টা অপারেশনে নেমে পড়ে কংগ্রেস। নেতৃত্বে শিবকুমার। আর সঙ্গে কংগ্রেসের দুই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী—হরিয়ানার ভূপেন্দ্র হুডা এবং ছত্তিশগড়ের ভূপেশ বাঘেল।
জানা যাচ্ছে, সরকার বাঁচানোর স্ট্র্যাটেজি হিসেবে বিজেপিকে ভোট দেওয়া ছ’বিধায়কের সদস্যপদ খারিজ হতে পারে। দলের ‘হুইপ’ অমান্য করেছেন তাঁরা। ফলে দলবিরোধী কাজের জন্য সদস্যপদ খারিজ হওয়া অসম্ভব নয়। আর সেটি হলে ৬৮ আসন বিশিষ্ট বিধানসভার শক্তি কমে দাঁড়াবে ৬২। কংগ্রেসের রয়েছে ৩৪ বিধায়ক। তিন নির্দলকে সঙ্গে নিলেও বিজেপির সংখ্যা দাঁড়াচ্ছে ২৮। অনাস্থা ভোট হলে সরকার বাঁচাতে প্রয়োজন ৩২। ফলে কংগ্রেসের পক্ষে বিজেপির অপারেশন লোটাস রুখে দেওয়া সম্ভব। কিন্তু কংগ্রেসের আরও কিছু বিধায়ককে ভাঙিয়ে বিজেপি যদি সরকার গড়ার দাবি জানায়? রাজনীতির পাশা খেলায় কংগ্রেসের সামনে সেই ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে। 
বুধবার এআইসিসির প্রধান মুখপাত্র জয়রাম রমেশ প্রত্যয়ের সঙ্গে জানিয়েছেন, ‘বিজেপির অপারেশন লোটাস সফল হতে দেব না।’ যদিও আত্মবিশ্বাসের আড়ালে অতীত অভিজ্ঞতার সিঁদুরে মেঘও রয়েছে। লোকসভা ভোটের আগে হিমাচল হাতছাড়া হলে উত্তর ভারত কংগ্রেস-মুক্ত হয়ে যাবে। পূর্ব, পশ্চিম এবং উত্তর-পূর্ব ভারতের কোথাও কংগ্রেস এককভাবে ক্ষমতায় নেই। ভারতের মানচিত্রে সেক্ষেত্রে কংগ্রেসের শেষ দুই প্রদীপ টিমটিম করে জ্বলবে দক্ষিণের দু‌ই রাজ্যে। 

29th     February,   2024
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ