বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

চালকহীন মালগাড়ি ঊর্ধ্বশ্বাসে ছুটল ৭০ কিমি, আতঙ্কে রেল

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: ‘আত্মনির্ভর ভারত’—মোদি সরকারের প্রিয় স্লোগান। তা নিয়ে গালভরা প্রতিশ্রুতি কম দেওয়া হয় না। তাই কি এবার ‘আত্মনির্ভরতা’র পাঠ নিচ্ছে মালগাড়িও? রবিবার এমন এক ঘটনার সাক্ষী রইল গোটা দেশ। সাতসকালে পাঞ্জাবে প্রায় ৭০ কিলোমিটার রেলপথ ঊর্ধ্বশ্বাসে ছুটে যায় একটি পণ্যবাহী ট্রেন। সেটিতে ছিলেন না কোনও চালক, সহ-চালক এবং গার্ড! না, কোনও অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে এমন বেনজির কাণ্ড ঘটায়নি ভারতীয় রেল। পুরোটাই হয়েছে ‘দুর্ঘটনাবশত’। আর তার অভিঘাত এত বেশি ছিল যে, চালকবিহীন মালগাড়ির গতি উঠে যায় ঘণ্টায় প্রায় ১০০ কিলোমিটার। ফলে ভয়াবহ দুর্ঘটনা যে ঘটতে পারত, তা অস্বীকার করার কোনও উপায় নেই। সেক্ষেত্রে কী হতো? ভেবেই শিউরে উঠছেন আধিকারিকরা। গোটা ঘটনায় আবারও বেআব্রু রেলের নিরাপত্তা ব্যবস্থার বেহাল দশা। যদিও রাত পর্যন্ত এব্যাপারে সরকারিভাবে কোনও মন্তব্য করেনি রেল বোর্ড। মন্ত্রক সূত্রে খবর, বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 
জানা গিয়েছে, এদিন সকাল সাড়ে ৭টা নাগাদ জম্মুর কাঠুয়া স্টেশন থেকে ছাড়ে ৫৩টি ওয়াগনের স্টোন-চিপস ভর্তি মালগাড়িটি। এরপর সেটি পাঠানকোট স্টেশনে দাঁড়ায়। সূত্রের খবর, চালক, সহ-চালক এবং গার্ড পরিবর্তনের জন্য এই হল্ট। কিন্তু নামার আগে হ্যান্ডব্রেক দিতে ভুলে যান চালক। আর জায়গাটি ছিল ঢালু। তার জেরে আচমকাই মালগাড়ির চাকা গড়াতে শুরু করে দেয়। প্রথমে বিষয়টি স্টেশনের রেলকর্মীদের নজরে আসেনি। যতক্ষণে তা নজরে পড়ে, ততক্ষণে স্পিড বেড়ে গিয়েছে চালকহীন ট্রেনটির। রেল সূত্রের দাবি, ভয়াবহ দুর্ঘটনা এড়াতে তড়িঘড়ি বন্ধ করে দেওয়া হয় পরবর্তী সবক’টি লেভেল ক্রসিংয়ের গেট। থামিয়ে দেওয়া হয় অন্যান্য ট্রেন। এভাবেই মালগাড়িটি দৌড়য় প্রায় ৭০ কিলোমিটার। ঠিক যেন ২০১০ সালের হলিউড সিনেমা ‘আনস্টপেবেল’-এর চিত্রনাট্য! পাঞ্জাবের হোশিয়ারপুরের কাছে উঁচি বাসিতে যখন সেটিকে ‘নিয়ন্ত্রণে’ আনা সম্ভব হয়, তখন সকাল প্রায় ৯টা। অর্থাৎ, প্রায় দেড় ঘণ্টা পর। সূত্রের খবর, লাইনে পরপর কাঠের গুঁড়ি ফেলে প্রথমে মালগাড়িটির গতি কমানো হয়। তারপর কিছু মেকানিক্যাল পদ্ধতি প্রয়োগ করে এমার্জেন্সি ব্রেকের সাহায্যে কোনওমতে সেটিকে থামানো হয়। 
রেলের সুরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই প্রশ্ন উঠছে। কিন্তু কর্ণপাত করেনি মোদি সরকার। আসন্ন লোকসভা ভোটের কথা মাথায় রেখে প্রধানমন্ত্রী ব্যস্ত নতুন নতুন প্রকল্পের উদ্বোধনে। কিন্তু রেলযাত্রী নিরাপত্তার কী হবে? সেই উত্তর মিলছে কই!

26th     February,   2024
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ