বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

সোনিয়া গান্ধীকে রাজ্যসভায় প্রার্থী করতে চলেছে কংগ্রেস, রায়বেরিলিতে প্রিয়াঙ্কার দাঁড়ানো নিয়ে জল্পনা

সন্দীপ স্বর্ণকার, নয়াদিল্লি: উত্তরপ্রদেশে কংগ্রেসের কুল একা রক্ষা করছেন সোনিয়া গান্ধী। ৮০ আসনের উত্তরপ্রদেশে তিনিই কংগ্রেসের একমাত্র এমপি। তবে এবার ভোটে সেই  রায়বেরিলি আসনও টিকিয়ে রাখা  যাবে কি না, তা নিয়ে সন্দেহ দানা বেঁধেছে। নরেন্দ্র মোদির দাপট, অযোধ্যায় রামলালার মন্দির, দলের সাংগঠনিক দুর্বলতা—এহেন অবস্থায় সোনিয়ার পক্ষে রায়বেরিলির গড় সামলানো কঠিন বলেই মত কংগ্রেসের একাংশের। তাঁদের অভিমত, রায়বেরিলিতে সোনিয়ার বদলে দাঁড়ান প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। তাহলে বিজেপিকে মোকাবিলা করা অনেক সহজ হবে। সম্ভবত সেই দাবি মেনে নিতে চলেছে কংগ্রেস হাইকমান্ড। প্রিয়াঙ্কা নিজেও তৈরি। সেক্ষেত্রে এবারই ভোট ময়দানে অভিষেক হতে পারে সোনিয়া-কন্যার। সোনিয়া গান্ধীকে কংগ্রেস চাইছে রাজ্যসভা থেকে জিতিয়ে আনতে। কারণ ১০ জনপথ বাংলোটিকে ধরে রাখতে চান সোনিয়া। ওটি লাকি। এখনও পর্যন্ত ওই বাংলো থেকেই জিতেছেন পাঁচবার। আজ-কালের মধ্যেই কংগ্রেসের রাজ্যসভার প্রার্থীতালিকা ঘোষণা হতে পারে। 
তবে প্রার্থী হলেও কোন রাজ্য? চলছে আলোচনা। দলের সিংহভাগের মতে, তেলেঙ্গানা থেকেই তাঁর আসা উচিত। কারণ, সম্প্রতি পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনে একমাত্র তেলেঙ্গানায় জিতেছে কংগ্রেস। ভার্চুয়াল হলেও স্রেফ তেলেঙ্গানার জন্যই প্রচার করেছেন সোনিয়া গান্ধী। সবচেয়ে বড় কথা, তেলেঙ্গানার তিন আসনের মধ্যে দু’টিতে কংগ্রেসের জয় নিশ্চিত। ওদিকে, কর্ণাটকের চার আসনের মধ্যেও দু’টি পাবে কংগ্রেস। তাই সেখান থেকেও সোনিয়াকে প্রার্থী করার দাবি উঠছে। হিমাচল প্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র থেকেও একটি করে আসন কংগ্রেসের পাওয়ার সুযোগ রয়েছে। ২৭ ফেব্রুয়ারি ১৫ রাজ্যের ৫৬টি রাজ্যসভার আসনে ভোটের মধ্যে কংগ্রেস ন’টি পেতে পারে। 
যদিও গোল বেঁধেছে রাজস্থান নিয়ে। হাইকমান্ডের বিশ্বস্ত আইনজীবী অভিষেক মনু সিংভি, নাকি এআইসিসির মিডিয়া বিভাগের চেয়ারম্যান পবন খেরা? উভয়ের মধ্যে চলছে টানাটানি। দু‌’জনেই রাজস্থানি। এতদিন সিংভি তৃণমূল কংগ্রেসের সমর্থনে পশ্চিমবঙ্গ থেকে কংগ্রেসের এমপি ছিলেন। তাঁর মেয়াদ শেষ হচ্ছে এপ্রিলে।  গতবার রাজস্থান থেকে পবন খেরাকে পাঠানোর সুযোগ থাকলেও রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা, মুকুল ওয়াসনিক এবং প্রমোদ তিওয়ারিকে রাজ্যসভায় পাঠানো হয়। তিনজনের কেউই রাজস্থানের বাসিন্দা নয়। রাজস্থানিও নন। 
তাই দলের মধ্যেই এ ব্যাপারে ক্ষোভ রয়েছে। এবারও খেরাকে টিকিট না দিলে ক্ষোভের পারদ যে চড়বে, বলাই বাহুল্য। বিশেষত, এই আবহেই যেখানে কংগ্রেস থেকে ইস্তফা দিয়েছেন মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অশোক চ্যবন। তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়ে রাজ্যসভায় আসতে পারেন বলেই খবর। তাই দলের একাংশের মতে, সিংভি আর খেরার মধ্যে কাউকেই টিকিট না দিয়ে রাজস্থান থেকে সোনিয়া গান্ধীকে রাজ্যসভায় পাঠানো হোক। তাতে এক ঢিলে দুই পাখি মরবে। অন্যদিকে, মধ্যপ্রদেশের নিশ্চিত একটি আসনে পাঠানো হোক 
কমল নাথকে। 

13th     February,   2024
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ