দেশ

খুনের মামলায় রেহাই কোর্টে, এখনই মুক্তি নয় রাম রহিমের

চণ্ডীগড়: খুন ও ধর্ষণের মতো গুরুতর অপরাধে সাজাপ্রাপ্ত। তারপরও বারবার প্যারোলে জেল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ডেরা সাচ্চা সৌধা প্রধান গুরমিত রাম রহিম সিং। স্বঘোষিত ধর্মগুরুকে এভাবে সুযোগ-সুবিধা দেওয়া নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েছে হরিয়ানার বিজেপি সরকার। আদালতের তিরস্কারের মুখেও পড়তে হয় সরকারকে। এবার সেই রাম রহিম খুনের অব্যাহতি পেয়ে গেলেন হাইকোর্টে। ২২ বছর আগে ২০০২ সালে গুলিতে ঝাঁঝরা হয়ে যান ডেরার অন্যতম কর্তা রণজিৎ সিংকে। সেই মামলায় ২০২১ সালে সিবিআই আদালত গুরমিত সহ আরও চারজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছিল। মঙ্গলবার পাঞ্জাব ও চণ্ডীগড় হাইকোর্ট রাম রহিম সহ পাঁচজন এই মামলায় বেকসুর খালাস পেয়ে গেলেন। তবে তাঁকে আপাতত জেলেই থাকতে হচ্ছে। কারণ, ডেরার দুই সাধ্বীকে ধর্ষণের মামলায় ২০ বছরের কারাদণ্ডের মেয়াদ কাটাতে হচ্ছে তাঁকে। সাংবাদিক রাম চান্দের প্রজাপতিকে খুনের মামলাতেও দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন তিনি। গুরমিতের ‘যৌন কেলেঙ্কারি’ ফাঁসের কারণেই খুন হতে হয় সাংবাদিক রাম চান্দের প্রজাপতিকে। 
হরিয়ানার সিরসায় ডেরার আশ্রমে কীভাবে মহিলাদের উপর যৌন নির্যাতন চালানো হয়, তার বিবরণ দিয়ে একটি বেনামি চিঠি প্রকাশ্যে আনেন রণজিৎ। এরপরই খুন করা হয় তাঁকে। অভিযোগ, এই খুনের ক্ষেত্রে অন্যতম ষড়যন্ত্রকারী ছিলেন গুরমিত। সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত এক্ষেত্রে গুরমিত সহ পাঁচজনকে দোষী সাব্যস্ত করে। যাবজ্জীবনের সাজা হয়। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করেই পাঞ্জাব ও চণ্ডীগড় হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন গুরমিত। অবশেষে, সংশ্লিষ্ট মামলায় তিনি বেকসুর খালাস পেলেন। গুরমিত রাম রহিমের আইনজীবীরা জানিয়েছেন, ‘বিচার ব্যবস্থার উপরে ডেরা প্রধানের সম্পূর্ণ আস্থা রয়েছে। হাইকোর্টের রায়কে আমরা স্বাগত জানাই।’ 
26d ago
কলকাতা
রাজ্য
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

মাতুলের থেকে বিত্তলাভ হতে পারে। কোনও বিষয়ের মানসিক উদ্বেগ কমবে। বিদ্যাচর্চায় বিশেষ শুভ।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৭৭ টাকা৮৪.৫১ টাকা
পাউন্ড১০৪.১৬ টাকা১০৭.৬৩ টাকা
ইউরো৮৮.০৭ টাকা৯১.১৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
22nd     June,   2024
দিন পঞ্জিকা