দেশ

রেল-সুরক্ষা শিকেয়, বাজেট বরাদ্দ
কমিয়ে গিমিকে মেতেছে কেন্দ্র

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: ভারতীয় রেলের কোন সংবাদ সাম্প্রতিককালে সবথেকে বেশি শিরেনামে এসেছে? উত্তরটা হল, দিকে দিকে মাঝেমধ্যেই বন্দে ভারত এক্সপ্রেস উদ্বোধনের খবর। বন্দে ভারত নিয়ে এই হাই ভোল্টেজ প্রচারের কারণ কী? রাজধানী, শতাব্দী ও দুরন্ত এক্সপ্রেসকে ছাপিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভারতীয় রেলে অত্যাধুনিক ট্রেন চালু করে গিয়েছেন— এই বার্তা স্বর্ণাক্ষরে ইতিহাসে খোদাই করে রাখার তাগিদই এর কারণ। রেলমন্ত্রকের ভাষায় স্বপ্নের প্রকল্প কী? বুলটে ট্রেন। সবথেকে বড় সাফল্য কী হতে চলেছে বলে প্রচারে করা হয়? স্টেশনকে এয়ারপোর্ট করে তেলা হবে। অর্থাৎ যাত্রীসুরক্ষা নয়। চমকই মোদি সরকারের যেন প্রধান লক্ষ্য। ক্যাগ রিপোর্টে জানা গিয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকার ভারতীয় রেলকে ১ লক্ষ কোটি টাকা দিয়েছিল সুরক্ষা নিশ্চিত করতে। রেললাইন সংস্কার, রেলওয়ে ক্রসিং নির্মাণ, সেতু নির্মাণ, আন্ডারপাস নির্মাণ, আরও বেশি রোলিং স্টক উৎপাদন অর্থাৎ কোচ, ইঞ্জিন, ওয়াগন তৈরি করা ছিল লক্ষ্য। ২০১৭ সালের বাজেটে ঘোষণা করা হয়েছিল, রাষ্ট্রীয় রেল সুরক্ষা কোষ নামে একটি তহবিলে ১ লক্ষ কোটি টাকা দেওয়া হচ্ছে। ওই টাকায় আগামী পাঁচ বছর শুধুই রেলের সুরক্ষা সংক্রান্ত কাজ হবে। অর্থাৎ ২০২২ সালের মধ্যে এই কাজ হওয়ার কথা ছিল। হয়নি। পরবর্তী সময়সীমা ধার্য হয়েছে ২০২৭ সাল। বাস্তব হল, ওই তহবিলের অর্থ রেল সুরক্ষার জন্য সামান্যই ব্যয় করা হচ্ছে। সংসদে পেশ হওয়া অন্য একটি ক্যাগ রিপোর্টে জানা গিয়েছে, সাম্প্রতিকালে দেশে যত ট্রেন বেলাইন হয়েছে, তার অধিকাংশই রেললাইন রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে। ২০১৭ থেকে চার বছরে মোট লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে ১ হাজার ৩৯২টি। ১৬৭টি ক্ষেত্রেই প্রধান ফ্যাক্টর হিসেবে উঠে এসেছে ‘মেনটেনেন্স অব ট্র্যাক’। ১৪৪টি ক্ষেত্রে দায়ী করা হয়েছে ‘ব্যাড ড্রাইভিং/ওভার স্পিডিং’কে।
রেলসুরক্ষার অন্যতম প্রধান শর্ত হল, বেশি করে ডাবল লাইন পাতা। গত বছরের বাজেটে ডাবল লাইন নির্মাণের জন্য ধার্য হয়েছিল ৪২ হাজার ৪৯২ কোটি টাকা। অথচ এই বছর বাজেটে সেই খাতে বরাদ্দ এক ধাক্কায় ১২ হাজার কোটি টাকা কমে গেল। ঢাকঢোল পিটিয়ে কবচ সুরক্ষা ঘোষণা করা হয়েছিল। ৩৪ হাজার রুট কিলোমিটার যাত্রাপথের সব ট্রেনে কবচ সুরক্ষা বলবৎ করা হবে। এখনও পর্যন্ত মাত্র ১৪০০ রুট কিলোমিটার করা গিয়েছে। এই বছর কত টাকা বরাদ্দ হয়েছে সুরক্ষায়? মাত্র ৭ হাজার কোটি টাকা। প্রধানমন্ত্রী সবথেকে বেশি উচ্চারণ করেন বুলেট ট্রেনের কথা। ১ লক্ষ কোটি টাকার প্রকল্প। ৩২ হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েই গিয়েছে। অথচ কবচ লাগানো হয়নি দেশের সিংহভাগ ট্রেনে। গালভরা ঘোষণা করা হয় সেমি হা‌ই ঩স্পিড ট্রেন নাকি দেড়শো কিলোমিটার বেগে চলবে। যা সম্পূর্ণ চমকের স্লোগান। কারণ এখনও পর্যন্ত কোনও ট্রেন গড়ে ঘন্টায় ৮৫ কিলোমিটারের বেশি বেগে যায় না। কারণ কী? কারণ হল, হাইস্পিডের উপযোগী করে তোলার জন্য রেলপথের সংস্কারই করা হয়নি। নতুন চমক হল, বন্দে ভারত চলবে লিকুইড হাইড্রোজেন জ্বালানিতে। ১৮টি বন্দে ভারত চলছে। আগামী দিনে ৪০০ করার প্রতিশ্রুতি। এই বছর লিক্যুইড হাইড্রোজেনে বন্দে ভারত চালাতে কত টাকা বরাদ্দ হয়েছে! ১০ লক্ষ!
12Months ago
কলকাতা
রাজ্য
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

সৃজনশীল কর্মে উন্নতি ও প্রশংসালাভ। অপ্রয়োজনীয় ব্যয় যোগ। আধ্যাত্মিক ভাবের বৃদ্ধি ও আত্মিক তৃপ্তি।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৭৭ টাকা৮৪.৫১ টাকা
পাউন্ড১০৪.১৬ টাকা১০৭.৬৩ টাকা
ইউরো৮৮.০৭ টাকা৯১.১৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা