দেশ

মোদির ‘গণতন্ত্রে’ নির্বাসিত রাহুল

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: সকালেও সংসদে এসেছিলেন। সংসদ ভবনে কংগ্রেসের জন্য বরাদ্দ ২৪ নম্বর ঘরে সোনিয়া গান্ধীর ডাকা বৈঠকে দলীয় এমপিদের সঙ্গে দেখা যায় তাঁকে। তখনও জানতেন না যে, আর কিছুক্ষণের মধ্যেই তাঁর লোকসভার কক্ষে প্রবেশের অধিকারে পড়ে যাবে লাল কালি! বেলা গড়াতে না গড়াতে এল সেই ঘোষণা—প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ‘গণতন্ত্রের মন্দির’ থেকে ‘নির্বাসিত’ রাহুল গান্ধী। শুক্রবার গুজরাতের নিম্ন আদালতের রায় প্রকাশের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে খারিজ করা হল তাঁর লোকসভার সদস্যপদ। বুলেটিন প্রকাশ করে লোকসভার সেক্রেটারি জেনারেল উৎপলকুমার সিং জানিয়ে দেন, ‘আদালতের রায়ে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় কেরলের ওয়েনাডের এমপি রাহুল গান্ধীর সদস্য পদ বাতিল করা হচ্ছে।’
এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই উত্তাল হয়ে ওঠে জাতীয় রাজনীতি। নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধেই খড়্গহস্ত হয় তামাম বিরোধী দল। রাজ্যে রাজ্যে বিক্ষোভ আন্দোলন শুরু করেন কংগ্রেস কর্মী ও সমর্থকরা। টুইটারে মুখ খোলেন রাহুল। সাফ জানিয়ে দেন, ‘আমি দেশের জন্য লড়ছি। তার জন্য যে কোনও মূল্য চোকাতে প্রস্তুত।’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও তোপ দাগেন টুইটারে। ইদানীং কংগ্রেসের সঙ্গে রাজনৈতিক মঞ্চ এড়ালেও রাহুলের এমপি পদ খারিজের ইস্যুতে নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে জ্বলে ওঠেন তিনি। বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী মোদির নতুন ভারতে লাগাতার নিশানা করা হচ্ছে বিরোধী নেতাদেরই। অপরাধ করেও বিজেপি নেতারা মন্ত্রিসভায় জায়গা পেয়ে যাচ্ছে। অথচ সরকার বিরোধী মন্তব্যের জন্য নির্বাসিত হচ্ছেন অবিজেপি নেতারা। আজ গণতন্ত্রের এক অন্ধকার অধ্যায়ের সাক্ষী আমরা।’ একই সুরে সরব হন আপ সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরিওয়াল, সিপিএমের সীতারাম ইয়েচুরি থেকে আরজেডি, বিআরএস, সমাজবাদী পার্টি, শিবসেনা সহ প্রায় সব বিরোধী দলের নেতা। সমালোচনার কাঠগড়ায় দাঁড় করান মোদিকে, যা চব্বিশের ভোটের আগে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। 
মোদিকে একহাত নিয়ে ফুঁসে উঠেছেন রাহুলের বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও। তিনি বলেন, ‘আমাদের শরীরে যে রক্ত বইছে, তার একটা বিশেষত্ব আছে। সেটা হল, আপনার মতো ভীরু, ক্ষমতালোভী, অত্যাচারীর সামনে কোনওভাবেই মাথা নত করব না।’ কংগ্রেস মুখপাত্র জয়রাম রমেশ জানিয়েছেন, আই঩নি লড়াইয়ের পাশাপাশি মোদি সরকারের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক সংঘর্ষ আরও জোরদার হবে। ভয় দেখিয়ে কংগ্রেসের কণ্ঠরোধ করা যাবে না। প্রতিবাদের স্ট্র্যাটেজি তৈরিতে এদিন সন্ধ্যায় জরুরি বৈঠকেও বসেন সোনিয়া, মল্লিকার্জুন খাড়্গে সহ দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, রাহুলের সদস্যপদ বাতিল কি রোখা সম্ভব? খালি হওয়া ওয়েনাড়ে যদি কয়েকদিনের মধ্যে উপ নির্বাচন ঘোষণা করে দেয় নির্বাচন কমিশন, তখন কী হবে? ২০১৩ সালের সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রেক্ষিতে কোনও জনপ্রতিনিধির কমপক্ষে দু’বছরের কারাদণ্ড হলে তৎক্ষণাৎ তাঁর আইনসভার সদস্যপদ খারিজ হয়ে যায়। সম্প্রতি লাক্ষাদ্বীপের এনসিপি সাংসদ ফয়জল নিম্ন আদালতে দোষী সাব্যস্ত হয়ে গত ১৩ জানুয়ারি সাংসদ পদ খোয়ান। কিন্তু কেরল হাইকোর্ট তাঁর পদ ফেরাতে বলেছে। যদিও তিনি সেই পদ শুক্রবার পর্যন্ত ফেরত পাননি। রাহুল গান্ধীও নিম্ন আদালতের দেওয়া ৩০ দিনের সময়সীমার মধ্যে হাইকোর্ট থেকে এমন নির্দেশ আনতে পারলে সাংসদ পদ ফেরত পেতে পারেন। সাজার মেয়াদ দু’বছরের কম হলেও সেই সুযোগ থাকবে। কিন্তু তা না হলে স্রেফ দু’বছর জেল খাটাই নয়, মুক্তির পর থেকে ছ’বছর পর্যন্ত, অর্থাৎ মোট আট বছর ভোটেই লড়তে পারবেন না রাহুল। জনপ্রতিনিধিত্ব আইন সেটাই বলছে। 
15Months ago
কলকাতা
রাজ্য
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

উচ্চশিক্ষায় নামী স্বদেশি/ বিদেশি প্রতিষ্ঠানে সুযোগ পেতে পারেন। স্ত্রীর স্বাস্থ্য বিষয়ে চিন্তা। কর্মে অগ্রগতি।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার ৮২.৫৬ টাকা৮৪.৩০ টাকা
পাউন্ড১০৪.৩৩ টাকা১০৭.৮১ টাকা
ইউরো৮৮.০৪ টাকা৯১.১৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা