বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

ঝড়ে ক্ষতিপূরণ ইস্যুতে রাজ্য সরকারের পাশে দিলীপ, অস্বস্তি বাড়ালেন দলের

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্ধমান: উত্তরবঙ্গে ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়িয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী দিনহাটার সভা থেকে বলেছিলেন, দুর্গত মানুষেব পাশে দাঁড়ালে যদি ওরা আমার বিরুদ্ধে ১০০টা  মামলা করে করুক। তবুও মানুষকে সাহায্য করব। কমিশন বিজেপির নির্দেশে কাজ করছে। তাই গরিব মানুষের বাড়ি তৈরির টাকা দিতে দেয়নি বলে মমতা অভিযোগ করেছিলেন। এই ইস্যুতে রাজ্য সরকারের পাশে দাঁড়িয়ে দলের অস্বস্তি বাড়ালেন বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, পীড়িত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সরকারের অধিকার আছে। সরকারকে মানুষ ভোট দিয়ে জিতিয়েছে। সরকার তার কাজ করছে। নির্বাচন কমিশনের গাইডলাইন মেনে করা উচিত। ভোটপ্রচার করতে গেলে রাজনৈতিক সমস্যা হবে।
এদিন দিলীপবাবু প্রাতঃভ্রমণে বের হন। বর্ধমানের লাকুর্ডি জলকল মাঠে তিনি চা চক্রে অংশগ্রহণ করেন। সেখানেই তিনি ওই মন্তব্য করেন। তবে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ইস্যুতে তিনি রাজ্য সরকারকে ঘুরিয়ে সমর্থন করলেও অন্যান্য বিষয়ে তৃণমূলকে তোপ দাগতে ছাড়েননি। তাঁর দাবি, সারা দেশের সন্ত্রাসবাদীরা এখানে ধরা পড়ছে। দুই জঙ্গি দু’মাস ধরে ঘুরছিল। ওরা জানত, এখানে ওদের কেউ গায়ে হাত দেবে না। সুরক্ষা দেওয়া হচ্ছে। বাংলা জঙ্গিদের সেফ শেল্টার। বাংলাদেশ থেকে এসে আধার, ভোটার কার্ড করছে। এখানে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে। তারপর সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ছে। বাংলাদেশ সরকারও বলেছে এখানে ট্রেনিং নিয়ে ওখানে গণ্ডগোল করছে। অ্যাম্বুলেন্স করে টাকা যাচ্ছে। 
তৃণমূল প্রার্থী কীর্তি আজাদ বলেন, ওঁর কথার গুরুত্ব দেওয়ার মতো কিছু নেই। ওঁর সঙ্গে মানুষ থাকছে না। কিছু কুকুর আশপাশে ঘুরছে। সেই কারণে তাদের তাড়ানোর জন্য হাতে লাঠি নিয়ে ঘুরছেন। উনি বাংলাকে অসম্মান করছেন। মায়েদের অসম্মান করছেন। ইভিএমে ওঁকে বাংলার মানুষ জবাব দেবে।
দিলীপ ঘোষের মন্তব্যে মাঝেমধ্যেই দল বিপাকে পড়ে। কিন্তু দিলীপবাবু নিজের স্টাইলেই চলছেন। তিনি কয়েকদিন আগে বলেছিলেন, ‘১৫ লক্ষ টাকার অপেক্ষা করে অনেকেই উপরে চলে গিয়েছে।’ তাঁর এই মন্তব্যে নেতৃত্ব অস্বস্তিতে পড়েছিল। এদিন ফের তিনি ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার প্রসঙ্গে রাজ্য সরকারের পাশে থাকায় নেতৃত্বের চাপ বাড়বে বলে অনেকেই মনে করছেন।
ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকলে শাসকদলের সুবিধা হবে। সেই কারণে বিজেপির একটা বড় অংশ তা চাইছে না। কিন্তু দিলীপবাবু সরকারের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের অস্বস্তি বাড়িয়ে দিয়েছেন। উত্তরবঙ্গে শেষমুহূর্তে ভোটের প্রস্তুতি চললেও সেখানকার কোনও জেলাতেই একদিনের জন্যও দিলীপবাবু প্রচারে যাননি। এমনকী তাঁর কেন্দ্র মেদিনীপুরেও যাননি। দলের একাংশের সঙ্গে তাঁর বিভাজন স্পষ্ট। দলের একটা বড় অংশ ক্ষতিপূরণ না দেওয়ার পক্ষে। কিন্তু দিলীপ হাঁটলেন তাঁদের উল্টোপথে।  বর্ধমানের লাকুড্ডিতে প্রাতঃভ্রমণে বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষ।-নিজস্ব চিত্র

14th     April,   2024
 
 
অক্ষয় তৃতীয়া ১৪৩১
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ