বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

পশ্চিম বর্ধমানে  কমেছে পরিযায়ী পাখির সংখ্যা, সাম্প্রতিক সমীক্ষায় উদ্বেগ পরিবেশপ্রেমীদের
 

নিজস্ব প্রতিনিধি, আসানসোল: পরিযায়ী পাখিদের বড় আশ্রয়স্থল পশ্চিম বর্ধমান জেলা। দুর্গাপুর ব্যারেজ, বার্নপুর রিভার সাইড, চিত্তরঞ্জন, গুঞ্জন ইকোলজিকাল পার্ক সহ বহু জায়গায় ঝাঁকে ঝাঁকে পাখি আসে শীতকালে। তাদের সংখ্যা ও প্রজাতি নিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরেই বনদপ্তর ও ‘উইংস’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সার্ভে করে। এবারে সার্ভেতে যে তথ্য উঠে এসেছে তা অত্যন্ত উদ্বেগজনক। এবছর পরিযায়ী ও অন্যান্য পাখির সংখ্যা কমেছে। আসানসোলের অদূরে জামুড়িয়া ইকোলজিকাল পার্ক। সেখানে এসেছে মাত্র চার প্রজাতির পাখি। যা চিন্তায় ফেলেছে পরিবেশপ্রেমীদের। একইভাবে দুর্গাপুর ব্যারেজেও পরিযায়ী পাখি সহ অন্যান্য প্রজাতির পাখির সংখ্যা যথেষ্ট কম। ব্যারেজে নানাবিধ নির্মাণের জন্যই এই অবস্থা বলে পক্ষীপ্রেমীদের দাবি। পশ্চিম বর্ধমান জেলায় এবার ৫৬ প্রজাতির পক্ষীর সন্ধান মিলেছে। গত বছরের তুলনায় এবার সাতটি প্রজাতির পাখির সংখ্যা বাড়লেও সার্ভে দলের দাবি, উল্লেখযোগ্যভাবে পাখির সংখ্যা কমছে। এই ছবি পরিযায়ী পাখিদের সব হটস্পটগুলিতেই। 
দুর্গাপুরের ডিএফও অনুপম খান বলেন, উদ্বেগজনক ভাবে বেশকিছু জায়গায় পাখির সংখ্যা কমেছে। আমরা পুরো পরিস্থিতির উপরই নজর রাখছি। পক্ষী বিশারদ ও পক্ষীপ্রেমীদের নিয়ে গড়ে ওঠা স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা উইংসের সম্পাদক অর্কজ্যোতি মুখোপাধ্যায় বলেন, গুঞ্জন ইকোলজিক্যাল পার্ক নিয়ে পদক্ষেপ করা প্রয়োজন। দুর্গাপুর ব্যারেজে যেভাবে পার্ক ও অন্যান্য নির্মাণ কাজ হচ্ছে তাতে পাখির সংখ্যা খুবই কমে যাচ্ছে। 
সার্ভে অনুযায়ী, এবার সবচেয়ে বেশি প্রজাতির পাখি দেখতে পাওয়া গিয়েছে দামোদর নদীর চর বার্নপুর রিভারসাইড এলাকায়। সেখানে ৩৫ প্রজাতির জলজ পাখির সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। এরপরই রয়েছে দুর্গাপুর ব্যারেজ, এখানে ৩১ প্রজাতির জলজ পাখি দেখা গিয়েছে। চিত্তরঞ্জনের বিভিন্ন লেকে এবার শীতকালে পাখি দেখা গিয়েছে। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে কারখানার ভেতরে রয়েছে ইস্কো অ্যাশপন্ড। এবার সেখানে ২৮ প্রজাতির পাখি পাওয়া গিয়েছে। যদিও বিশেষজ্ঞদের উদ্বেগ পাখির সংখ্যা নিয়ে। করোনা পরিস্থিতিতে পাখির সংখ্যা উল্লেখযোগ্য ভাবে বেড়েছিল। এবার তা নিম্নমুখী। অনেকের মতে, শব্দদূষণ থেকে বায়ুদূষণ, জলদূষণ যে বাড়ছে তার বড় প্যারামিটার এই পাখির সংখ্যা কমে যাওয়া। 
দুর্গাপুরে ব্যারেজে একটি বার্ড ওয়াক হয়। এবার সেখানে অংশ নিয়েছিলেন দুর্গাপুরের ডেপুটি পুলিস কমিশনার অভিষেক গুপ্তও। সেখানে সব ধরনের পাখিকেই গণনা করা হয়। সেখানেও দেখা যাচ্ছে পাখির সংখ্যা, পাখির প্রজাতির সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে। গত বছর যেখানে ৭৮ প্রজাতির পাখি দেখা গিয়েছিল এবার সেখানে মাত্র ৭২ প্রজাতির পাখি রয়েছে। 
 দুর্গাপুর ব্যারেজে কমছে পাখির সংখ্যা। 

24th     February,   2024
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ