বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

ফাঁড়িতে বধূকে নির্যাতন, সাসপেন্ড সাব ইন্সপেক্টর, খানাকুলে উত্তেজনা 

নিজস্ব প্রতিনিধি, আরামবাগ: খানাকুলে যুগীকুণ্ডু পুলিস ফাঁড়িতে গৃহবধূকে শারীরিকভাবে নিগ্রহের অভিযোগ উঠেছে। বধূকে মারধরের পাশাপাশি চোখে লঙ্কাগুঁড়ো ছিটিয়ে দেওয়া হয়। কয়েক ঘণ্টা ধরে নিগ্রহের পর মাঝ রাতে তাঁকে বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয়। অসুস্থ হয়ে পড়েন নির্যাতিতা শ্রীরূপা বাগ। তাঁকে প্রথমে স্থানীয় প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেওয়া হয়। পরে আরামবাগের একটি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়। ঘটনায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন বাসিন্দারা। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ফাঁড়ি ঘিরে গ্ৰামবাসীরা বিক্ষোভ দেখান। ঘটনায় জড়িত পুলিস কর্মীদের শাস্তির দাবি তোলেন। পুলিস প্রশাসনের তরফে খানাকুল থানার এসআই তুষার মণ্ডলকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। মারধরের ঘটনায় জড়িত অন্যদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।
আরামবাগের এসডিপিও সুপ্রভাত চক্রবর্তী বলেন, মহিলার পরিবারের তরফে খানাকুল থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযুক্ত পুলিস অফিসারকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। এই ঘটনার সঙ্গে অন্য পুলিস অফিসাররা যুক্ত আছে কি না খতিয়ে দেখা হচ্ছে। দোষ প্রমাণিত হলে ঘটনায় যুক্ত সকলের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। 
স্থানীয় ও পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ২৬ জানুয়ারি ফাঁড়ি সংলগ্ন মাঠে ফুটবল খেলায় সোনার ব্রেসলেট হারিয়ে যাওয়া নিয়ে ঘটনার সূত্রপাত। ওইদিন তুষারবাবু সোনার ব্রেসলেট হারিয়ে ফেলেন। নির্যাতিতা মহিলার ছোট ছেলে সেই ব্রেসলেট কুড়িয়ে পেয়েছে বলে পুলিস সন্দেহ করে। পরিবারের সদস্যদের ব্রেসলেট ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য তারপর থেকে লাগাতার চাপ সৃষ্টি করা হয়। নির্যাতিতার পরিবারের তরফে ব্রেসলেট না থাকার কথা বারবার জানানো হয়। 
নির্যাতিতার পরিবারের দাবি, গত বুধবার বিকেলে মহিলা পুলিস ছাড়াই ওই মহিলাকে প্রথমে যুগীকুণ্ডু ফাঁড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হয় খানাকুল থানায়। নিগ্রহের পর পুলিসের গাড়িতেই রাত ২টো নাগাদ আবার তাঁকে বাড়ি পৌঁছে দেয়।
হাসপাতালে চিকিৎসারত ওই মহিলা বলেন, পুলিসকে বহুবার বলেছি, আমার ছেলে সোনার ব্রেসলেট কুড়িয়ে পায়নি। তাও শোনেনি। বুধবার আমাকে ফাঁড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। দুই হাত গামছা দিয়ে বেঁধে সারা শরীরে পেটানো হয়। চোখে লঙ্কার গুঁড়ো ছিটিয়ে দেওয়া হয়। থানায় নিয়ে যাওয়ার সময় গাড়িতে আমার মাথা ঠুকে দেয়। শেষ পর্যন্ত একজন পুলিসের কথায় ওরা অত্যাচার থামায়। অত্যাচারের কথা কাউকে বললে পরে আবার মারধর করার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। গাড়ি থেকে নামার সময় হাজার টাকা আমার হাতে ধরিয়ে চিকিৎসা করিয়ে নিতে বলে। তুষার মণ্ডলের কঠোর শাস্তি চাইছি। 
নির্যাতিতার শাশুড়ি শিউলি বাগ বলেন, মিথ্যা অভিযোগে আমার বউমাকে ফাঁড়িতে ডেকে নিয়ে গিয়ে শারীরিক নিগ্ৰহ করা হয়। আমার আড়াই বছরের নাতি তুষারবাবুর সোনার ব্রেসলেট কুড়িয়ে পেয়েছে বলে যে অভিযোগ তোলা হচ্ছে, তা ভিত্তিহীন। বুধবার বিকেল ৩টের সময় বউমাকে তুলে নিয়ে গিয়ে রাত ২টোর সময় মৃতপ্রায় অবস্থায় ফেলে দিয়ে যায়। 
এক আত্মীয় মীনা বাগ বলেন, পুলিস আড়াই তিন বছরের বাচ্চা ছেলেকে চকোলেট দিয়ে কথা বের করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু, এবিষয়ে ও কিছুই জানে না। তাই ওর মাকে ধরে নিয়ে গিয়ে পুলিস অত্যাচার চালায়। ঘটনায় অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তি চাইছি। 
আরামবাগ সাংগঠনিক জেলা বিজেপির সভাপতি বিমান ঘোষ বলেন, এই ঘটনায় আমরা ধিক্কার জানাচ্ছি। অভিযুক্তদের শাস্তি চাইছি। এরাজ্যের কোথাও পুলিসের হাতে নারীরা সুরক্ষিত নয়।
 

23rd     February,   2024
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ