বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

দশ বছর ধরে জামতাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে বন্ধ বিজ্ঞান ও বাণিজ্য বিভাগ, দ্রুত চালুর দাবি
 

সংবাদদাতা, মানকর: আউশগ্রামের জামতাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান ও কমার্সের পঠনপাঠন দীর্ঘদিন বন্ধ। ফলে বিপাকে পড়ছে পড়ুয়ারা। অভিভাবকদের দাবি, অবিলম্বে বিজ্ঞান ও কমার্স বিভাগ চালু হোক। বিদ্যালয়ের তরফে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।
১৯৬০ সালে মহাত্মা গান্ধীর ভাবাদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে নরেন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় আউশগ্রামের জামতাড়ায় বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। ২০১০ সালে বিদ্যালয়ের ৫০ বছর পূর্তি হয়েছে। ঐতিহ্যময় এই বিদ্যালয়টিতে বিজ্ঞান ও কমার্স বিভাগ বন্ধ থাকায় পড়ুয়ারা বিপাকে পড়ছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নরেন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় জামতাড়া উচ্চ বিদ্যালয় ছাড়াও গুসকরার নিকটবর্তী গনপুর ও বর্ধমানে হরিজন বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। জামতাড়ায় এসে তিনি ফার্ম বা তুলাক্ষেত্রে তৈরি করেন। এখানে সেই সময়ে রেশন দেওয়া হতো। আদিবাসী এলাকায় যাতে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে পড়ে সে জন্য ১৯৬০ সালে বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। একসময় সাধারণ ও তফসিলি জাতি, উপজাতি পড়ুয়াদের জন্য হস্টেলের বন্দোবস্ত ছিল। কিন্তু সাধারণের হস্টেলটি দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ। করোনার পর থেকে বন্ধ হয়ে গিয়েছে তফসিলি জাতি ও উপজাতিদের হস্টেলটি। বিদ্যালয়ে মোট পড়ুয়ার সংখ্যা ৬৫০। তার মধ্যে দশম শ্রেণির ছাত্রছাত্রী ৫১ জন। বিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট সৈয়দ মেহেবুব আলি বলেন, দশম শ্রেণি পাস করার পর বিজ্ঞান ও কমার্স নিয়ে পড়তে চাইলে ছাত্রছাত্রীদের মানকর অথবা অভিরামপুরে যেতে হয়। এলাকার অধিকাংশ মানুষই মধ্যবিত্ত বা নিম্ন মধ্যবিত্ত। দূরে গিয়ে পড়াশুনা করার ফলে বাড়ির উপর আর্থিক চাপ বাড়ে। অভিভাবক নাজিরা বেগম, সুরজিৎ মণ্ডল বলেন, এলাকায় নিজেদের স্কুল থাকতেও বাইরে যেতে হচ্ছে। বাইরে গিয়ে পড়াশোনার খরচ আছে। দীর্ঘ ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে বিজ্ঞান ও কমার্স বিভাগ বন্ধ। অবিলম্বে সেগুলি চালু করা হোক।
বিদ্যালয়ে বর্তমানে ১৬ জন শিক্ষক শিক্ষিকা রয়েছেন। একাদশ দ্বাদশ শ্রেণির কলা বিভাগের অনেক বিষয়েরই শিক্ষক-শিক্ষিকা নেই। তবে তা সত্ত্বেও অন্য শিক্ষক শিক্ষিকারা নিয়মিত ক্লাস নিচ্ছেন। বিদ্যালয়ের শিক্ষক শঙ্কু রায়, তাপস কর, পূর্ণিমা সরকার গুপ্তরা জানান, জামতাড়া, সুয়াতা, প্রতাপপুর এলাকা থেকে পড়ুয়ারা আসে। কলা বিভাগে সংস্কৃত, দর্শন, কম্পিউটার সায়েন্স, এডুকেশন প্রভৃতি বিষয় পড়ানো হয়। অভিভাবক আব্দুল আজাদ ও শেখ আবির বলেন, করোনার সময় সাইকেল স্ট্যান্ডের ছাউনি ঝড়ে উড়ে গিয়েছে। সেই সময়ে বহু বেঞ্চ উই ধরে নষ্ট হয়ে যায়। মেহেবুব আলি বলেন, বেশ কয়েকটি নতুন বেঞ্চ নিয়ে আসা হয়েছে। বিজ্ঞানের ল্যাবটি দীর্ঘদিন ভগ্নদশায় পড়েছিল। দিন ১৫ আগে থেকে তা মেরামতির কাজ শুরু হয়েছে। বিদ্যালয়ের নিজস্ব ফান্ড থেকে কাজটি করা হচ্ছে।
অভিভাবকদের একাংশের অভিযোগ, প্রাচীন এই বিদ্যালয়ে আচার্য বিনোবা ভাবে, প্রফুল্লচন্দ্র সেন এসেছিলেন। অথচ সেই স্কুলেই এখন বিজ্ঞান পড়ানো হচ্ছে না। বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ দীর্ঘদিন ধরে খালি। বেশ কিছু শিক্ষকের পদও খালি। বর্তমানে বিদ্যালয়ের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন টিআইসি চিন্ময় বিশ্বাস। তিনি বলেন, সমস্ত বিষয়গুলি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। • নিজস্ব চিত্র

6th     December,   2023
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ