বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

পুকুর থেকে উঠে আসছে অদ্ভূতুড়ে আলো, রহস্য ঘিরে হুলস্থূল দাসপুর

সংবাদদাতা, ঘাটাল: পুকুরের জলের তলদেশ থেকে উঠে আসছে এক রহস্যময় আলোর তীব্র ছটা। তাই দেখে শুক্রবার রাতে হুলস্থূল পড়ে যায় দাসপুর থানার সাগরপুর গঞ্জে। না, এটা শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের কোনও অদ্ভুতুড়ে সিরিজের উপন্যাসের সূচনা নয়। এমন আলোর খবর চাউর হতেই রাতে পুকুরপাড়ে  জড়ো  হয়ে যান বেশ কয়েকশো কৌতূহলী মানুষ। খবর যায় পুলিসে। সেই আলোর হদিশ করতেই ঘটনাস্থলে পুলিসও পৌঁছয়। জলে দীর্ঘক্ষণ তল্লাশিও চালানো হয়। দাসপুর থানার ওসি অমিত মুখোপাধ্যায় বলেন, শেষ পর্যন্ত কিছুই পাওয়া যায়নি। বিষয়টা ঠিক কী, আমরাও বুঝে উঠতে পারিনি। 
রাত তখন সাড়ে ৮টা। হঠাৎই দাসপুর-সাগরপুর রাস্তার পাশে ব্রহ্মাকুমারীর কার্যালয়ের সামনের একটি পুকুরের জলের নীচ থেকে হঠাৎ করে টর্চ লাইটের মতো আলো দেখা যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানালেন, তাঁরা তখন পুকুরের পাশেই ছিলেন। হলুদ রঙের তীব্র  আলোর ছটা পুকুরের জলের ভেতর থেকে বেরিয়ে আসছে। বেশ কিছুক্ষণ আলো বের হওয়ার দৃশ্য দেখার পরই এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে ভীতি মিশ্রিত কৌতূহলের সৃষ্টি হয়। কয়েক মিনিটের মধ্যে ওই খবর সাগরপুর গঞ্জে পৌঁছে গেলে উৎসাহী ও কৌতূহলী মানুষরা পুকুর পাড়ে ভিড় করতে শুরু করেন। রাস্তা দিয়ে যাতায়াতকারী গাড়িগুলিও থমকে যায়। গাড়ি থেকে নেমে আসেন যাত্রীরা। আলোর উৎস খুঁজতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নির্দেশে শীতের রাতেই পুকুরে তিনজনকে নামানো হয়। মজলিসপুরের স্বরূপ মাজি, বড়শিমুলিয়ার সুরেন হেমব্রম সহ মোট তিনজন আলোর উৎস সন্ধান করতে পুকুরে নেমে পড়েন। স্বরূপবাবু এবং সুরেনবাবু বলেন, পুকুরের মাঝে যেখান থেকে আলো বের হচ্ছিল সেখানে আমরা যেতেই জলটা খুব গরম-গরম লাগে। জলে ডুব দেওয়ার পর পাঁকে পা স্পর্শ করতেও সেখানটাও বেশ গরম লাগে। ফলে আমরা যাঁরা জলে নেমেছিলাম, তাঁরা সকলেই ভয় পেয়ে পুকুর থেকে উঠে আসি।
স্থানীয় বাসিন্দা জিতেন্দ্রনাথ হাইত বলেন, পুকুর থেকে ওরা উঠে চলে আসার পরও বেশ কিছুক্ষণ পুকুর পাড়ে বহু কৌতূহলী মানুষ আলো দেখার জন্য প্রতীক্ষায় ছিলেন। কিন্তু আর আলো দেখা যায়নি। শনিবার ভোর থেকেও বহু মানুষ ওই পুকুরের পাড়ে ভিড় জমিয়েছিলেন। কিন্তু এদিনও কোনও আলো দেখা যায়নি বলে স্থানীয়রা জানান। ঘাটালের বেসরকারি একটি স্কুলের পদার্থ বিদ্যার শিক্ষক তাপস দোলই বলেন, পচা পুকুরে অনেক সময় মিথেন গ্যাস তৈরি হয়। তা বায়ুর সংস্পর্শে এসে জ্বলে যায়। কিন্তু ওই পুকুরটিতে মিথেন গ্যাস তৈরির মতো পরিবেশ নেই। তাই দূর থেকে কেউ আলো জ্বলে এমন  ইলেক্ট্রনিক্স কোনও খেলনা জলে ফেলে দিলে এই ভাবে আলো জ্বলতে পারে। পুলিস জানিয়েছে, ওই ধরনের কোনও খেলনাও উদ্ধার হয়নি।

3rd     December,   2023
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ