Bartaman Patrika
হ য ব র ল
 

বেলুন আবিষ্কারের গল্প

চাঁদে বা মঙ্গলগ্রহে যাওয়া এখন জলভাত। কিন্তু একদিন ছিল যখন আকাশে ওড়া মানুষের পক্ষে যে সম্ভব তা ভাবাই যেত না। প্রথম মানুষ আকাশে উড়ল বেলুন চড়ে। সেই গল্প শোনালেন সুপ্রিয় নায়েক।

ভার্সাই-এর প্রাসাদের সামনে সেদিন তিলধারণের জায়গা নেই। হাজার হাজার মানুষ ছুটে আসছেন প্রাসাদের দিকে। উত্তেজনায় ফুটছে সকলে। ভারী আজব জাদু দেখানো হবে প্রাসাদের সামনে বিশাল ময়দানে। এমন জাদু আগে কোনওদিন হয়নি। এই ম্যাজিক আকাশে ওড়ার ম্যাজিক! একেবারে সামনের সারি থেকে সেই ম্যাজিক দেখার জন্য ভোরবেলাতেই সঙ্গের ব্যাগে শুকনো রুটি নিয়ে পৌঁছে গিয়েছেন কয়েকজন। খুব বেলা হয়ে গেলে খেয়ে নেবেন। এদিকে অপেক্ষা করতে করতে সত্যিই বেলা গড়িয়ে গেল। সেপ্টেম্বরের দুপুর। চড়চড়িয়ে রোদ উঠেছে। লোকজন অস্থির হয়ে উঠতে লাগল। বাচ্চারা এবার খিদের জ্বালায় কাঁদতে শুরু করেছে। তারমধ্যেই দেখা গেল, প্রাসাদের সামনে একটা খোলা জায়গায় দু’জন জাদুকর বিভিন্ন যন্ত্রপাতি নিয়ে কাজকর্ম করছেন। ভালো করে ঠাওর করতে বোঝা গেল, একটি কুণ্ডে আগুন জ্বালানোর সবরকম জোগাড়যন্ত্র করা হয়েছে। এছাড়া বিশালাকায় কাপড়ের তৈরি থলে শোয়ানো রয়েছে মাটিতে। সেই থলের আকার এক বিরাট শামিয়ানার মতো। আর একটা খাঁচার মধ্যে পোরা রয়েছে একটা মোরগ, একটি হাঁস আর একটা ভেড়া।
ভিড়ের মধ্যে থেকে একজন লোক এবার জাদুকরের দিকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিলেন— ‘ওহে ভদ্র মানুষেরা, তোমাদের নাম কী?’
দু’জন জাদুকরের মধ্যে একজন খুবই সুদর্শন। চওড়া কপাল হলেও তাঁর চুল ছিল কোঁকড়ানো। আর নাক ছিল টিকালো। ঠোঁট ছিল পাতলা। তবে সবচাইতে আকর্ষণীয় ছিল তাঁর চোখ। ওই দুই চোখের দিকে তাকালেই বোঝা যেত, একরাশ স্বপ্ন যেন বাসা বেঁধে রয়েছে সেখানে! জাদুকর আগুন জ্বালাতে জ্বালাতেই চেঁচিয়ে জবাব দিলেন— ‘আমার নাম জোসেফ মন্টগলফিয়ার। সঙ্গে রয়েছে আমার ভাই এটিয়েন মন্টগলফিয়ার।’
দর্শকের মধ্যে থেকে ফের প্রশ্ন এল— ‘তোমরা নাকি আজ আকাশে ওড়ার ম্যাজিক দেখাবে? বলি, সেই জাদু শুরু হবে কখন?’
জোসেফ উত্তর দিলেন— ‘আর কিছুক্ষণ অপেক্ষা করো।’
ফের একজন মজা করল— ‘ম্যাজিক দেখতে এসে আমরা খিদের জ্বালায় মরে না যাই!’ এমন কথায় চারিদিকে হাসির রোল উঠল। মন্টগলফিয়ার ভাইয়েরা অবশ্য তাতে ঘাবড়ে গেলেন না। তাড়াতাড়ি হাতের কাজ সারতে শুরু করলেন। কেননা ইতিমধ্যে প্রাসাদের ভেতর থেকে একজন রাজকর্মচারী এসে খবর দিয়েছে, রাজা ষোড়শ লুই আসছেন তাঁদের জাদু দেখতে।
ম্যাজিক
কুণ্ডে দাউদাউ করে আগুন জ্বলে উঠল। সঙ্গে সঙ্গে বেশ কয়েকজন লোক মিলে কপিকলের সাহায্যে দু’টি লম্বা দণ্ডের মাথায় প্রকাণ্ড কাপড়ের থলের খোলা মুখটা মেলে ধরল। ক্রমশ ফুলতে শুরু করল থলেটা। এই কাণ্ড দেখে একজন দর্শক বলল— ‘কাপড়ের প্রকাণ্ড থলেটা ফুলেছে ঠিকই, কিন্তু আকাশে উড়বে তো? নইলে রাজা কিন্তু খুব রেগে যাবেন!’
আগের কথা
তোমরা নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছ যে সময়ের গল্প করা হচ্ছে তা বহু দিন আগের। প্রশ্ন হল কত আগের? এই গল্প, ১৭৮৩ সালের ১৯ সেপ্টেম্বরের। আজ থেকে দুশো বছরেরও বেশি সময় আগের কথা। রকেট দূরে থাক, সেইসময় বিমানও আবিষ্কার হয়নি। এমনকী আবিষ্কার হয়নি রেলগাড়িও!
তোমাদের নিশ্চয়ই এবার জানতে ইচ্ছে করছে, ভার্সাইয়ের প্রাসাদের সামনে আদৌ কাপড়ের তৈরি বিরাট থলে উ‌ড়ল কি না? সেই গল্পে ফিরছি। তবে তার আগে জোসেফ আর এটিয়েন মন্টগলফিয়ার-এর কথা একটু বলে নেওয়া যাক। তোমরা আগেই জানতে পেরেছ, জোসেফ আর এটিয়েন দুই ভাই। ফ্রান্সের অ্যানোনে প্রদেশে ১৭৪০ সালে জন্ম জোসেফের। আর পাঁচ বছর পরে জন্ম হয় এটিয়েন-এর। দুই ভাইয়ের বাবার ছিল কাগজ কল। ওদের বাবা চেয়েছিলেন, বড় হওয়ার পর দুই ভাই যেন ব্যবসার হাল ধরে। তাই জোসেফকে নামী স্কুলে ভর্তি করা হয়। তবে জোসেফ ছিল বাঁধনহারা। তাই স্কুল ছেড়ে, ঘর ছেড়ে, দূরে গিয়ে নিজেই রাসায়নিকের ব্যবসা শুরু করেন। বিভিন্ন গবেষণাধর্মী কাজ জোসেফকে বরাবর টানত। অনেকগুলি মাস অন্য কাজ করার পরে জোসেফ বাবার কাগজ কলে যোগ দেন। তবে খুব একটা উন্নতি করে উঠতে পারেননি। কারখানার ক্ষতি হতে থাকে। কারণ কারখানার কাজের চাইতেও জোসেফের আগ্রহ ছিল নানা ধরনের গবেষণার প্রতি। অন্যদিকে ছোটভাই এটিয়েন ছিল ধীরস্থির। তিনি পরে ব্যবসার হাল ধরে উন্নতি করেন। তবে দুই ভাইয়ের মধ্যে মনের মিল ছিল খুব। ভাবও ছিল দেখার মতো। সাধারণত দাদা জোসেফ যা বলতেন, এটিয়েন তা মেনে চলার চেষ্টা করতেন। প্রকৃতির নানা আশ্চর্য বিষয় নিয়ে জোসেফের আগ্রহ এটিয়েনের ভালো লাগত।
ফায়ারপ্লেস আর জামা
শোনা যায়, একদিন জোসেফ বসেছিলেন একটি ছোট আগুনের কুণ্ডের পাশে। আগুনের কুণ্ডের ওপরে কতকগুলো জামা শুকোতে দেওয়া ছিল। জোসেফ খেয়াল করে দেখলেন, আগুনের তাপে বারবার জামা ফুলে উঠছে আর বাতাসে ভেসে যাওয়ার চেষ্টা করছে! বিষয়টা ভাবিয়ে তুলল জোসেফকে। তাঁর মনে হল আগুন থেকে নিশ্চয়ই কোনও গ্যাস বেরচ্ছে যা জামা উড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে। জোসেফ এই গ্যাসের  নাম দিলেন ‘মন্টগলফিয়ার গ্যাস।’ আর একইসঙ্গে ডেকে পাঠালেন ছোটভাই এটিয়েনকে। এবার দু’জনে মিলে কাগজ দিয়ে একটা বড়সড় কাগজের বাক্স বানালেন আর তার নীচে আগুন দিলেন। দেখা গেল কিছুক্ষণ পর বাক্সটি বাতাসে উড়ে গেল! তাঁরা দুইভাই মিলে ঠিক করলেন, এবার একটা বড়সড় থলে তৈরি করে তার মধ্যে মন্টগলফিয়ার গ্যাস পুরে শহরের লোকের সামনে ওড়াতে হবে। তাঁরা ফোলা থলেকে বেলুন বলে উল্লেখ করলেন। 
অতএব কাপড় আর কাগজ দিয়ে তাঁরা তৈরি করে ফেললেন বিরাট আকারের এক বেলুন। তারপর অ্যানোনে শহরের বাজার চত্বর থেকে ১৭৮৩ সালের জুন মাসে উড়িয়ে দিলেন সেই বেলুন। মানুষ অবাক হয়ে দেখল বিরাট এক বেলুন চড়চড় করে উড়ে গেল আকাশের দিকে। জানা যায়, মোটামুটি ছয় হাজার ফুট উচ্চতায় উঠে দশ মিনিট ভেসে থাকে সেই বেলুন। আর পাড়ি দেয় প্রায় দুই কিলোমিটার পথ। লোকমুখে ছড়িয়ে পড়ে দুই মন্টগলফিয়ার ভাইয়ের নাম। এমনকী কথাটা ফ্রান্সের রাজার কানেও পৌঁছয়। দুই ভাইকে ভার্সাই-এর প্রাসাদে ডেকে পাঠান রাজা।
ভার্সাই-এর প্রাসাদে
রাজার ডাক পাওয়ার পরেই দুই ভাই একটি শক্তপোক্ত বেলুন তৈরির দিকে মন দেন। শক্তপোক্ত কাপড় তাঁরা সংগ্রহ করেন। আর বেলুনে যাতে চট করে আগুন না লাগে তাই কাপড়ের ওপরে দেওয়া হয় অ্যালুম-এর প্রলেপ। বেলুনের গায়ে সোনার জরির নকশা করা হয়।
এরপর নির্দিষ্ট দিনে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস শহরের কেন্দ্র থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে ভার্সাইয়ের প্রাসাদের ডাকা হয় প্রজাদের। ঠিক করা হয় ভার্সাইয়ের প্রাসাদের সামনেই ওড়ানো হবে বেলুন। তাই পরিকল্পনা মতোই আগুনের কুণ্ডের ওপর ধরে রাখা হয় সেই বিরাট কাপড়ের থলের খোলা মুখ! প্রায় ৩০ ফুট ব্যাসের সেই বেলুনের পেট ফুলে উঠতেই তার সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হল ভেড়া, মোরগ আর হাঁসকে। আসলে তখনকার দিনে মনে করা হতো, ভেড়া আর মানুষের শরীরে অন্দরের গঠন একইরকম! এছাড়া মাটি থেকে অত উঁচুতে কোনও প্রাণী বেঁচে থাকতে পারে কি না তা দেখাই ছিল উদ্দেশ্য।
রাজা ষোড়শ লুই-এর সঙ্গে প্রায় এক লাখ তিরিশ হাজার লোক সেদিন অবাক হয়ে যায়। সকলে দেখে, তিনটি প্রাণীকে নিয়ে বিরাট আকারের বেলুনটি আকাশে উড়তে শুরু করেছে। এমনকী নিরাপদে মাটিতে নেমে আসার আগে প্রায় আট মিনিট শূন্যে ভেসেও থাকে বেলুনটি। সব দর্শকরা আনন্দে চিৎকার করে ওঠে।
বেলুনে চড়ল মানুষ
জীবন্ত প্রাণী ভেসে থাকার পর এবার পালা ছিল মানুষ উড়তে পারে কি না তা দেখার। ভার্সাইয়ের প্রাসাদ থেকে বেলুন ওড়ানোর দুই মাস পরেই দুইভাই এবার বেলুনের সাহায্যে মানুষকে আকাশে ভাসানোর পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা মতো, ওই বছরই ২১ নভেম্বর এক রসায়ন ও পদার্থবিদ্যার শিক্ষক এবং একজন মিলিটারি অফিসার মন্টগলফিয়ার বেলুনে চড়ে বসেন। ২৫ মিনিটে প্রায় ৯ কিলোমিটার উড়েও যান তাঁরা।
বেলুনের উন্নতি
সেই সময় মন্টগলফিয়ার ভাইয়েরা মনে করেছিলেন তাঁরা সম্পূর্ণ নতুন একধরনের গ্যাসের আবিষ্কার করে ফেলেছেন। অথচ সত্যিটা হল ওই গ্যাস আসলে ছিল গরম বাতাস। বাতাস উষ্ণ হলে তা হালকা হয়ে যায়। তাই বেলুনের মধ্যে গরম বাতাস ঢুকলেই বেলুন ওপরে উঠতে থাকে। কারণ তখন আশপাশের বাতাস থাকে ভারী। মন্টগলফিয়ার ভাইয়েরা বেলুন আবিষ্কার করলেও পরে বেলুনের আরও উন্নতি ঘটতে থাকে। এমনকী তৈরি হয় হাইড্রোজেন গ্যাসের বেলুন। বেলুনের সাহায্যে একসঙ্গে অনেক যাত্রী নিয়ে যাওয়ার চেষ্টাও করা হয়। অবশ্য সেই চেষ্টা খুব একটা সফল হয়নি। আজকাল নানা বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের জন্য বেলুনের ব্যবহার করা হয়। তবে সেই সময় মন্টগলফিয়ারদের তৈরি বেলুন অবশ্যই যুগান্তকারী আবিষ্কার ছিল। কারণ মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ছিল পাখির মতো আকাশে ওড়ার। সেই স্বপ্ন সত্যি করে দিয়েছিল দুই ভাইয়ের কৌতূহলী মন।
তথ্য ও ছবি : সংশ্লিষ্ট সংস্থার সৌজন্যে
29th  November, 2020
আচার্য জগদীশচন্দ্র বসুর ছেলেবেলা

‘বিজ্ঞান প্রাচ্যেরও নহে, পাশ্চাত্যেরও নহে, ইহা বিশ্বজনীন’—বলেছিলেন আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু, যাঁর বিজ্ঞান সাধনার মধ্যে দিয়ে প্রাচ্যে র দর্শন ও পাশ্চাত্যের বিজ্ঞান ধারার মধ্যে ঘটেছিল এক আশ্চর্য সেতুবন্ধন! আজ তোমাদের শোনাব সেই মহান বিজ্ঞানীর জীবনের কথা। বিশদ

29th  November, 2020
ভুটু জানত 

পিয়ালী ম্যামকে খুব ভালোবাসে ভুটু। ভুটুর রোজ ইচ্ছে করে ম্যাম তাকে চুমু খাক, আদর করুক। কিন্তু ম্যাম তো ভুটুর দিকে ভালো করে তাকায়ই না। ম্যাম তো শুধু আদর করে অর্চিকে। অর্চির সাদা রং, মানুষ সাদা হলে তাকে ফর্সা বলতে হয়, মা বলেছে। অর্চির মাথায় কী সুন্দুর ঝাঁকড়া চুল। অর্চি খুব সুন্দর। সে তো ব্ল্যাক, কালো পচা। এসব কথা মাকে বললেই মা তাকে বুকের মধ্যে জড়িয়ে ধরে। মা ধরলে কী হবে ম্যাম তো তাকে আদর করে না।  
বিশদ

22nd  November, 2020
চাঁদের বুকে জলের খোঁজ 

জল থেকে তৈরি হতে পারে অক্সিজেন। এমনকী জলে থাকা হাইড্রোজেনকে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা যায়! তবে কি খুব দ্রুত চাঁদের মাটিতে বাড়ি তৈরি করা যাবে? জানাচ্ছেন এমপি বিড়লা তারামণ্ডলের অধিকর্তা ডঃ দেবীপ্রসাদ দুয়ারি। 
বিশদ

22nd  November, 2020
জমিতে ফাটল! তৈরি হচ্ছে নতুন মহাদেশ! 

সামান্য কিছু জমির মালিক বৃদ্ধ এলিউড এনজর্জ এমবুগুয়া। চাষবাস করে দিন চলে বুড়োর। জমির পাশে একখানি কুঁড়ে। সেখানেই বাস করে সে আর তাঁর স্ত্রী। এভাবেই শান্তিতে দিন কাটছিল। বাকি জীবনটাও হয়তো এভাবেই ধীরেসুস্থে কেটে যেত। বাধ সাধল একটা অদ্ভুত ঘটনা! কী সেই ঘটনা? দেখা যাক।  বিশদ

15th  November, 2020
ভিন রাজ্যে ভাইফোঁটার আনন্দ 

 শুধু আমাদের বাংলাতেই নয়, ভারতের বিভিন্ন রাজ্যেই নানান নামে ভাইফোঁটা পালিত হয়। ভারতের নানা প্রান্ত থেকে তোমাদের পাঁচ বন্ধু জানাচ্ছে কীভাবে কাটায় তারা ভাতৃদ্বিতীয়ার দিনটি। বিশদ

15th  November, 2020
মার্কশিট
মাধ্যমিক পরীক্ষায় ‘জ্ঞানচক্ষু’
গল্পটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ 

তোমাদের জন্য চলছে জনপ্রিয় বিভাগ মার্কশিট। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় বাংলা।  বিশদ

08th  November, 2020
ইন্দ্রজা, এবার দেওয়ালিতে
বাজি নাই বা পোড়ালে
ডাঃ অমিতাভ ভট্টাচার্য

ইন্দ্রজার মন খারাপ অনেকটাই কমেছে। ছ- মাসের উপর গৃহবন্দি থাকার পর এই পুজোর চারটে দিন মুখ-মাথা ঢেকে বন্ধুদের সাথে আবাসনের পুজোতে একটু হই হুল্লোড়ও করেছে। বাকিটা এই দেওয়ালিতে করবে, ভেবেই রেখেছে। বাজি পোড়ানোর প্ল্যান আছে বন্ধুদের সঙ্গে। বাবা প্রতি বছরই হরেক রকম বাজি কিনে আনেন বাজি বাজার থেকে। ফুলঝুরি, রং মশাল, তুবড়ি, চরকি— আরও কত কি!   বিশদ

08th  November, 2020
ছোটদের রান্নাঘর

করোনার দাপটে স্কুল বন্ধ। সুতরাং বাড়ি থেকে বেরিয়ে এটা ওটা খাওয়ারও জো নেই। তাই বলে কি লকডাউনে কোনও ভালো খাবারই চেখে দেখার সুযোগ হবে না? চিন্তা নেই, ছোটদের রান্নাঘরে শুধু তোমাদের জন্যই দুটি লোভনীয় রেসিপি দিয়েছেন ট্রাইব ক্যাফের শেফ শিল্পা চক্রবর্তী। এগুলি আগুনের সাহায্য ছাড়াই তৈরি করা যাবে। তোমরাই করে চমকে দাও বড়দের। বিশদ

01st  November, 2020
কালজয়ী ছোটদের ছবি

সময়কে হার মানানো কয়েকটি ইংরেজি ছবির গল্প শোনাচ্ছেন ড. শঙ্কর ঘোষ।  বিশদ

01st  November, 2020
বিস্ময়কর প্রাণী 

১৫০ মিলিয়ন বছর আগে যখন ডাইনোসরদের স্বর্ণযুগ ছিল সেই সময় পাখি নামক আর এক প্রজাতির উদ্ভব হয়েছিল। সরীসৃপের নানা বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে সঙ্গে তারা পালকের মতো কিছু অসাধারণ বৈশিষ্ট্য অর্জন করেছিল।   বিশদ

18th  October, 2020
পুজোর আনন্দ 

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে এবার কীভাবে পুজোর আনন্দ উপভোগ করবে জানাল তোমাদের দুই বন্ধু।   বিশদ

18th  October, 2020
মহিষাসুর 
হিমাদ্রিকিশোর দাশগুপ্ত

দুর্গাপুজোর মহাষষ্ঠী। সকালবেলাই পদ্মপুকুর গ্রামের পুজো প্যান্ডেলের ছোট আটচালার প্রতিমা এসে গিয়েছে, তবুও বিকেলবেলা প্যান্ডেলের সামনে দাঁড়িয়ে অধীর আগ্রহে গ্রামে ঢোকার রাস্তার দিকে তাকিয়ে ছিল পুজো কমিটির লোকজন ও গ্রামের নানা বয়সি বাচ্চারা।  বিশদ

18th  October, 2020
কয়েকটি আশ্চর্যজনক প্রাণীর কর্মকাণ্ড

পৃথিবীতে এমন অনেক প্রাণী আছে যাদের কিছুটা হলেও মানুষের মতো আচরণ করতে দেখা যায়। হ্যাঁ, আশ্চর্য মনে হলেও এমন প্রাণীর অস্তিত্ব আমাদের এই ব্রহ্মাণ্ডে আছে। ব্যালেট থেকে ট্যাঙ্গোর মতো প্রাণীরা তো নাচতেও পারে।  বিশদ

11th  October, 2020
কাটবে কেমন পুজোর দিন?

করোনা আবহে ছোট্ট অভিনেতা-অভিনেত্রীরা তাদের এবারের পুজো পরিকল্পনা জানাল হ য ব র ল’র বন্ধুদের।
বিশদ

11th  October, 2020
একনজরে
উম-পুন পরবর্তী ক্ষতিপূরণে দুর্নীতির যাবতীয় অভিযোগের তদন্ত করবে কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটার জেনারেল অব ইন্ডিয়া (ক্যাগ)। কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি থোট্টাথিল বি রাধাকৃষ্ণাণ ও অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার তিন মাসের মধ্যে তদন্তসাপেক্ষে ক্যাগকে রিপোর্ট দাখিল করতে বলেছে। ...

সাখির (বাহরিন): গত সাতদিনে তিনবার কোভিড টেস্ট রিপোর্ট পজিটিভ এল ফর্মুলা-ওয়ান তারকা লুইস হ্যামিলটনের। যার জেরে আসন্ন সাখির গ্রাঁ প্রি’তে অংশ নিতে পারবেন না সাতবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন রেসারটি। মঙ্গলবারই মার্সিডিজ-এএমজি পেট্রোনাস এফওয়ান দলের পক্ষ থেকে হ্যামিলটনের করোনায় আক্রান্তের খবর প্রকাশ্যে আনা ...

গত এক মাসে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় সহায়ক মূল্যে ৬ কোটি ৩৭ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকার ধান কেনা হয়েছে। গত ২ নভেম্বর থেকে রাজ্যজুড়ে সহায়ক মূল্যে ...

সীমান্তে পাচার রুখতে আরও কঠোর হচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সীমান্ত বরাবর কোথাও যেন কাঁটাতারবিহীন এলাকা না থাকে, তা নিশ্চিত করার উদ্যোগ নেওয়া শুরু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। দুই দেশের সীমান্তের মধ্যে কাঁটাতার নেই মালদহের যে সব সীমান্তে, ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

সম্পত্তিজনিত মামলা-মোকদ্দমায় সাফল্য প্রাপ্তি। কর্মে দায়িত্ব বৃদ্ধিতে মানসিক চাপবৃদ্ধি। খেলাধূলায়  সাফল্যের স্বীকৃতি। শত্রুর মোকাবিলায় সতর্কতার ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৭৬: কিউবার প্রেসিডেন্ট হলেন ফিদেল কাস্ত্রো
১৯৮৪: ভোপাল গ্যাস দুর্ঘটনায় কমপক্ষে আড়াই হাজার মানুষের মৃত্যু
১৯৮৮: পাকিস্তানের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রী হলেন বেনজির ভুট্টো
১৯৮৯: ভারতের সপ্তম প্রধানমন্ত্রী হলেন ভিপিসিং 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.১৭ টাকা ৭৪.৮৮ টাকা
পাউন্ড ৯৭.২১ টাকা ১০০.৬৪ টাকা
ইউরো ৮৬.৯৬ টাকা ৯০.১২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৮,৯৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৬,৪৭০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৭,১৭০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬০,৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬১,০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭, বুধবার, ২ ডিসেম্বর ২০২০, দ্বিতীয়া ৩০/৪৪ সন্ধ্যা ৬/২৩। মৃগশিরা নক্ষত্র ১১/২২ দিবা ১০/৩৮। সূর্যোদয় ৬/৪/৪৩, সূর্যাস্ত ৪/৪৭/২৫। অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৬ মধ্যে পুনঃ ৭/২৯ গতে ৮/১২ মধ্যে পুনঃ ১০/২১ গতে ১২/৩০ মধ্যে। রাত্রি ৫/৪০ গতে ৬/৩৩ মধ্যে পুনঃ ৮/২০ গতে ৩/২৫ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৬/৪৬ গতে ৭/২৯ মধ্যে পুনঃ ১/১৩ গতে ৩/২২ মধ্যে। বারবেলা ৮/৪৫ গতে ১০/৫ মধ্যে পুনঃ ১১/২৬ গতে ১২/৪৭ মধ্যে। কালরাত্রি ২/৪৫ গতে ৪/২৫ মধ্যে। 
 ১৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭, বুধবার, ২ ডিসেম্বর ২০২০, দ্বিতীয়া সন্ধ্যা ৫/৪। মৃগশিরা নক্ষত্র দিবা ১০/২৪। সূর্যোদয় ৬/৬, সূর্যাস্ত ৪/৪৮। অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৬ মধ্যে ও ৭/৩৮ গতে ৮/২০ মধ্যে ও ১০/২৮ গতে ১২/৩৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৩ গতে ৬/৩৬ মধ্যে ও ৮/২৫ গতে ৩/৩২ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৬/৫৬ গতে ৭/৩৮ মধ্যে ও ১/১৭ গতে ৩/২৪ মধ্যে। কালবেলা ৮/৪৬ গতে ১০/৭ মধ্যে ও ১১/২৭ গতে ১২/৪৭ মধ্যে। কালরাত্রি ২/৪৬ গতে ৪/২৬ মধ্যে। 
১৬ রবিয়ল সানি।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আপনার আজকের দিনটি
মেষ: সম্পত্তিজনিত মামলা-মোকদ্দমায় সাফল্য প্রাপ্তি। বৃষ: নানা উপায়ে অর্থপ্রাপ্তির সুযোগ। ...বিশদ

04:29:40 PM

ইতিহাসে আজকের দিনে
  ১৯৭৬: কিউবার প্রেসিডেন্ট হলেন ফিদেল কাস্ত্রো ১৯৮৪: ভোপাল গ্যাস ...বিশদ

04:28:18 PM

আইএসএল: হায়দরাবাদ ও জামশেদপুরের ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র

09:33:58 PM

জিএসটি ফাঁকি: কলকাতা সহ রাজ্যের ১০৪টি ময়দা মিলে হানা আধিকারিকদের

06:29:00 PM

তৃতীয় একদিনের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ১৩ রানে জয়ী ভারত

05:15:15 PM

কোভ্যাক্সিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ: টিকা নিতে নাইসেডে ফিরহাদ হাকিম

04:15:35 PM