বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

ভাষা দিবসে মিলেও মিলল না দুই বাংলা

কুন্তল পাল, বনগাঁ: বুধবার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে হাতে হাত মিলিয়ে সম্ভাষণ জানানো হল না দু’বাংলার। দু’দেশের বহু মানুষ দূর দূর থেকে সীমান্ত পর্যন্ত এসেছিলেন বটে তবে বেনাপোল সীমান্তে নো ম্যানস ল্যান্ড থেকে কিছুটা দূরেই তাঁদের আটকে দিলেন জওয়ানরা। এপারেও একই ছবি। পেট্রাপোল সীমান্তে আটকে গেলেন বহু মানুষ। 
অথচ সবাই চেয়েছিলেন ওপারের প্রিয়জনের সঙ্গে কোলাকুলি করতে, হাতে হাত মেলাতে। কড়াকড়ির চোটে কিছুই হল না। প্রবল ভিড়ের মধ্যে হাত নেড়ে এপারের কাউকে ডাকল এক কিশোরী। জওয়ানরা চোখ পাকিয়ে তাকাতেই ভয়ে চুপ সে। জওয়ানের কাঁধে ঝোলানো ভারী বন্দুক। তার ফাঁক গলে যত পারা যায় দেখে নিল মেয়েটি। অসহায় লাগছিল তাকে। তার পাশে সেই গাছটি। কয়েক বছর আগেও আজকের দিনে এই গাছে ঝুলত অ-আ-ক-খ অক্ষরমালা। মেয়েটি অনেক খুঁজেও সে অক্ষর দেখতে পেল না। তার মতো সবাই হতাশ এদিন। দু’দেশের ভাষা এক। মানুষগুলির আবেগও অভিন্ন। তবে কাঁটাতার সবকিছু আড়াল করে দাঁত খিঁচিয়ে থাকে। ভাষাদিবসে তার বকুনি যেন একটু বেশিই ছিল। কিছুকাল আগেও দু’দেশের মঞ্চ মিলেমিশে এক হয়ে থাকত। নো ম্যানস ল্যান্ডে একটাই মঞ্চ বাঁধা হতো। ভাষা দিবসের অনুষ্ঠান চলত সেখানে। কিন্তু কয়েকবছর হল তা গেল বন্ধ হয়ে। দু’দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রভাব ফেলল ভাষাদিবসের উপর। ফলে এদিন মিলেও মিলতে পারল না দু’টি দেশ।
একসময় ভাষা দিবসে পেট্রাপোল সীমান্তে দুই বাংলা মিলেমিশে এক হয়ে যেত। খুলে দেওয়া হতো দু’দেশের গেট। দু’বাংলার স্বজনরা একে অপরের সঙ্গে ভালোবাসা বিনিময় করতেন। এদিন সীমান্তে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হলেও নিরাপত্তার কড়াকড়িতে সাধারণ মানুষদের একত্র হতে বাধা পড়ল। শুধুমাত্র দু’দেশের অতিথিরা নো ম্যানস ল্যান্ডে শহিদ বেদীতে শ্রদ্ধা জানালেন। তার প্রায় ১০০ মিটার দূরে ভারতে একটি অনুষ্ঠান হল। জানা গিয়েছে ওপারে সীমান্তে সেরকভাবে কোনও অনুষ্ঠান হয়নি এদিন। বেনাপোলের বাসিন্দা এক গৃহবধূ । তাঁর  শাড়িজুড়ে লেখা, ক খ-গ-ঘ। বলেন, ‘নিরাপত্তার বড্ড বাড়াবাড়ি। ওপারের বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হল না বলে খারাপ লাগছে।’ এসেছিল সপ্তম শ্রেণির মুক্তা। বলল, ‘ভালো লাগত যদি ওদেশের সবার সঙ্গে কথা বলতে পারতাম। আমাদের যেতে দেওয়া হল না।’
এদিন সকাল থেকেই সীমান্তে বেশিরকম কড়াকড়ি। কাউকে নো ম্যানস ল্যান্ডের কাছে ঘেঁষতে দেয়নি জওয়ানরা। অনুষ্ঠান শুরুর পর কিছু মানুষ তাও কাছাকাছি চলে এসেছিলেন। তাদের হঠিয়ে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দুই দেশের বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও সাহিত্যিক।
সেনার দখলে নো ম্যানস ল্যান্ড। 

22nd     February,   2024
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ