Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 

সুন্দরবনেও যন্ত্রের সাহায্যে ধান চাষের উদ্যোগ 

নিজস্ব প্রতিনিধি: এবার সুন্দরবন এলাকার কৃষকরাও যন্ত্রের সাহায্যে ধান চাষ শুরু করতে চলেছেন। উত্তর ২৪ পরগনার সন্দেশখালি ২ নম্বর ব্লকে কৃষি দপ্তরের উদ্যোগে মেকানাইজড প্যাডি ট্রান্সপ্লান্টার মেশিনের সাহায্যে আমন ধানের চারা রোপণের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই স্থানীয় একটি ফার্মার্স ক্লাবকে বিশেষ পদ্ধতিতে ট্রেতে বা পলিথিন শিটের উপর ধানের চারা তৈরির প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। সিদ্ধান্ত হয়েছে, এ বছর সন্দেশখালি ২ নম্বর ব্লকের দু’টি পঞ্চায়েত এলাকায় ৪০ বিঘা জমিতে যন্ত্রের সাহায্যে ধান চাষের প্রদর্শন ক্ষেত্র গড়ে তোলা হবে। বাপ্পা দাস, দীনবন্ধু দাস, অনিমা দাস, পঙ্কজ দাসের মতো কৃষকের জমিতে ওই প্রদর্শন ক্ষেত্র তৈরি করা হবে।
মূলত কৃষি শ্রমিক সঙ্কটের কারণেই সুন্দরবন এলাকার কৃষকরা ধান চাষে ক্রমেই আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন বলে দাবি স্থানীয় কৃষি আধিকারিকদের। সেকারণেই চাষে খরচ কমানোর পাশাপাশি কৃষি শ্রমিক ছাড়াই ধান চাষের লক্ষ্যে যন্ত্রের ব্যবহার বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তাঁরা। সন্দেশখালি ২ নম্বর ব্লকের সহ কৃষি অধিকর্তা সজল পতি জানিয়েছেন, তাঁর এলাকায় কৃষি শ্রমিকের মারাত্মক সমস্যা। সেখানকার বেশিরভাগ শ্রমিক কাজের সন্ধানে কেরলে চলে যান। ফলে ধান রোয়া করা বা কাটার সময় শ্রমিক পাওয়া যায় না। সেকারণে চাষিরা ধান চাষের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলছিলেন। কৃষি শ্রমিক না পাওয়ায় অনেক জমি যেমন ফাঁকা পড়ে থাকত, তেমনই বহু কৃষক ধানের জমি মাছ চাষের জন্য লিজে দিয়ে দিয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে তাঁদের আবার ধান চাষে উৎসাহ জোগাতে প্যাডি ট্রান্সপ্লান্টার মেশিনের সাহায্যে ধান রোয়া করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এই প্রযুক্তি তাঁদের এলাকায় নতুন। সেজন্য ধীরে ধীরে এর প্রসার ঘটানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।
কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, আমনে ‘শ্রেয়া’ বা জিরে কাঠি প্রজাতির ধান চাষের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সন্দেশখালি ২ নম্বর ব্লকের বেশিরভাগ চাষি। এই জাতটির চাল সরু এবং লম্বা। ফলে বাজারে কৃষক এই চালের বেশ ভালোই দাম পাবেন বলে আশাবাদী। তাছাড়া সুন্দরবন এলাকায় এই ধানটির ফলন বেশ ভালোই। কিছু কৃষক পরীক্ষামূলকভাবে এই ধানের চাষ করে তার প্রমাণ পেয়েছেন। ফলে ফলন নিয়ে অনেকটা নিশ্চিন্ত হয়েই কৃষকরা জিরে কাঠি ধান চাষে নামতে চলেছেন। এই ধানটি নিচু জমিতেও চাষ করা সম্ভব। কৃষি আধিকারিক সজলবাবু জানিয়েছেন, যন্ত্রের সাহায্যে ধান রোয়া করার পাশাপাশি মেশিনের সাহায্যে ধান কাটার ব্যবস্থা করারও চেষ্টা চালাচ্ছেন তাঁরা। কৃষি দপ্তর থেকেই চাষিরা ধান রোয়া ও কাটার মেশিন পাবেন। কৃষি বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, রাইস প্লান্টার ২ ধরনের হয়। একরকম যন্ত্র, যেটি হেঁটে চালানো যায়। অন্যটি মেশিনের উপর বসে চালাতে হয়। দু’ধরনের যন্ত্রই ইঞ্জিন চালিত। হেঁটে চালানো যায় যে যন্ত্রটি, তার পিছনে হ্যান্ডেল রয়েছে। সেটি ধরে সামনের দিকে ঠেলে নিয়ে যেতে হয়। মেশিনের উপর বসে যে যন্ত্রটি চালাতে হয়, সেটিতে স্টিয়ারিং রয়েছে। এই যন্ত্রের মূলত তিনটি পার্টস থাকে। মোটর, রানিং গিয়ার ও ট্রান্সপ্লান্টিং ডিভাইস। এই ডিভাইসের মধ্যে সিডলিং (চারা) ট্রে, সিডলিং ট্রে শিফ্টার এবং চারা রোপণের ফর্ক থাকে। এই ফর্কগুলি আঙুলের মতো ধরে চারাকে মাটিতে পুঁতে দিতে সাহায্য করে। সিডলিং ট্রেতে ধানের চারার ম্যাট সাজিয়ে রাখা হয়। সিডলিং ট্রে শিফ্টারের মাধ্যমে চারা রোপণ ফর্কের কাছে পৌঁছে যায়। হেঁটে চালানো মেশিনে একসঙ্গে ৪-৬টি সারিতে রোপণ করা যায়। বসে চালানো মেশিনে একসঙ্গে ৬-৮টি সারিতে রোয়া করা যেতে পারে। এই যন্ত্রের সাহায্যে ধান বুনলে সারি থেকে সারির দূরত্ব নির্দিষ্ট থাকে। সারিতে গুছির দূরত্ব, গুছিতে চারার সংখ্যা, রোপণের গভীরতা কমানো বা বাড়ানো যায়। প্রতি গুছিতে সাধারণত ৪-৬টি চারা থাকে। যন্ত্রের সাহায্যে ধান বোনার জন্য ট্রে বা পলিথিন শিটের উপর বীজতলা করতে হবে। এক একর জমিতে ধান রোয়ার জন্য জাত ভেদে সাড়ে সাত থেকে দশ কেজি বীজ লাগে। এর জন্য প্রয়োজন ৭০-৮০টি ট্রে। পলিথিন শিট লাগবে ১৮০-১৯০ বর্গফুট।
কৃষি আধিকারিকরা জানিয়েছেন, এখন শুধুমাত্র একটি ফোন। অর্ডার করলেই কৃষকের জমিতে পৌঁছে যাবে রেডিমেড ধানের চারা। কৃষি শ্রমিকেরও প্রয়োজন নেই। যন্ত্রই নিমেষের মধ্যে বুনে দেবে সেই চারা।
এতে একদিকে যেমন শ্রমিক নির্ভরতা কমানো যাবে, তেমনই অর্থের সাশ্রয় হবে। ফলে প্যাডি ট্রান্সপ্লান্টার মেশিনের সাহায্যে ধান রোয়া করার জনপ্রিয়তা বাড়ছে। কৃষি আধিকারিকদের বক্তব্য, শ্রমিক দিয়ে এক একর ধান রোয়া করতে খরচ প্রায় আড়াই হাজার থেকে চার হাজার টাকা। যেখানে যন্ত্রের সাহায্যে ধান রোয়া করতে খরচ পড়ে দেড় হাজার থেকে দু’হাজার টাকা। যন্ত্র ব্যবহারে দ্রুত ধান রোয়া করা যায়। একদিনে এক থেকে দুই হেক্টর জমির ধান রোয়া করা যায়। সব ধান একসঙ্গে পাকে। প্রচলিত পদ্ধতির তুলনায় ৪০-৫০ শতাংশ বীজধান কম লাগে। অল্পবয়সী চারা রোপণ করা যায়।  
12th  June, 2019
ব্ল্যাক রাইস চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন কৃষকরা 

ব্রতীন দাস: শরীর সুস্থ রাখতে এবং ক্যান্সার, ডায়াবেটিসের মতো রোগ প্রতিরোধে কালো চালের গুরুত্ব অপরিসীম। কিন্তু সেই ধান উৎপাদন করেও বাজার না পাওয়ায় আগ্রহ হারাচ্ছেন কৃষকদের অনেকেই। কৃষি দপ্তরের পক্ষ থেকে ব্ল্যাক রাইস চাষের জন্য উৎসাহিত করা হলেও চাষিদের অভিযোগ, ব্ল্যাক রাইস ভাঙানোর জন্য যে বিশেষ ধরনের মিল দরকার তা বেশিরভাগ জায়গাতেই নেই।  বিশদ

12th  June, 2019
সঠিক পরিচর্যায় টবেও ফলবে স্ট্রবেরি 

নিজস্ব প্রতিনিধি: সঠিক জাত নির্বাচন করে ভালোভাবে পরিচর্যা করতে পারলে উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের মাটি ও আবহাওয়ায় স্ট্রবেরি সাফল্যের সঙ্গে চাষ করা সম্ভব। এমনকী টবেও স্ট্রবেরি ফলানো সম্ভব বলে জানাচ্ছেন উদ্যানপালন আধিকারিকরা।  বিশদ

05th  June, 2019
নিয়ম মেনে অড়হর ডাল চাষ করলে ভালো আয়ের সম্ভাবনা 

সংবাদদাতা : অড়হর একটি ভালো অর্থকরি ফসল। সঠিক নিয়ম মেনে চাষ করতে পারলে যে কোনও ফসলের থেকে বেশি লাভ পাওয়া যায়। কারণ, বাজারে সারাবছরই মুগডালের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে অড়হর ডালের দামও যেমন ভালো থাকে, তেমনই চাহিদাও ভালো থাকে।  বিশদ

05th  June, 2019
কম খরচে বছরে ২বার সয়াবিন চাষ 

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: সয়াবিনের চাষ ভালো লাভজনক। চাষিরা কম খরচে সয়াবিনের চাষ করতে পারেন। বাজারে সবসময় সয়াবিনের চাহিদা থাকে। দামও ভালো পাওয়া যায়। সয়াবিন বাজারে সবসময় নির্দিষ্ট দামের মধ্যে বিক্রি হয়।  বিশদ

05th  June, 2019
আধুনিক পদ্ধতিতে চাষ করে লাভবান বোরো ধান কৃষকরা 

সংবাদদাতা: আধুনিক সুধা-বোরো অর্থাৎ সুনিশ্চিত ধান চাষ প্রযুক্তির পর নদীয়া জেলার জল ও সেচ ব্যবহার গবেষণা কেন্দ্র কৃষকের জমিতে নিয়ে এসেছে উন্নততর শুকনো কর্ষণে সুধা বোরো প্রযুক্তি। এই অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে বোরো ধান চাষ করে উপকৃত হয়েছেন নদীয়া জেলার রানাঘাট মহকুমা আর হুগলি জেলার শ্রীরামপুর মহকুমার বহু অগ্রণী চাষি। 
বিশদ

05th  June, 2019
টার্কি পালন করে স্বনির্ভর হচ্ছেন মহিলারা 

নবজ্যোতি সরকার: টার্কি পালন করে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিভিন্ন স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা আর্থিকভাবে স্বনির্ভর হচ্ছেন। টার্কির বিক্রিযোগ্য ওজন ৫ কেজি হতে সময় নেয় ২০-২৫ সপ্তাহ। এরা এই সময় মোট খাবার খায় ১৮ কেজি।  বিশদ

05th  June, 2019
‘সুধা’ পদ্ধতিতে চাষে আমনে মিলবে প্রচুর ফলন 

ব্রতীন দাস: ‘সুধা’ অর্থাৎ সুনিশ্চিত ধানচাষ পদ্ধতিতে আমন ধানের ফলন ১০-১৫ শতাংশ বাড়বে। এমনটাই বলছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের বক্তব্য, বৃষ্টিপাতের অনিশ্চয়তা যেভাবে বাড়ছে, তাতে এই পদ্ধতিতে আমন ধান চাষ করলে চাষিরা অনেকটাই নিশ্চিন্ত হতে পারবেন। 
বিশদ

05th  June, 2019
 গরমে পাটের রোগপোকা দমনে ব্যবস্থা না নিলে কমবে ফলন, তন্তুর মান বৃদ্ধিতে পরিচর্যা জরুরি

পাটের প্রধান রোগ ডাঁটা পচা হলেও হুগলি উইল্ট ও সুতো কৃমি ক্ষেত্র বিশেষে মারাত্মক ক্ষতি করে। রস পচা রোগ ফসলের শেষ পর্যায়ে দেখা যায়। তবে মিঠা পাটে খুব বেশি ক্ষতি করতে পারে না। ইদানীং ক্ষেত্র বিশেষে ডগা ধসা ও গাঁট রোগ দেখা যাচ্ছে। ডাঁটা পচা রোগ বলা হলেও এই রোগের ছত্রাক পাটের চারা থেকে বীজ পর্যন্ত যে কোনও সময় গাছের যে কোনও অংশে আক্রমণ করতে পারে। এবং চারা ধসা, চারা পচা, ডাঁটা পচা বা শিকড় পচার লক্ষণ সৃষ্টি করে। এজন্য এই রোগকে অনেকে বহুরূপী রোগও বলে থাকেন। - ড. রাজীব কুমার দে , প্রধান বিজ্ঞানী, কেন্দ্রীয় পাট ও সহজাত তন্তু গবেষণা সংস্থা বারাকপুর শাখার
বিশদ

29th  May, 2019
ফলের গাছের চারা তৈরি করে স্বনির্ভর বহু যুবক

নবজ্যোতি সরকার: উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাবড়া এক নম্বর ব্লকের পৃথিবা গ্রাম পঞ্চায়েতের বদর অঞ্চলের বহু নার্সারিতে চলছে পরীক্ষাগার ছাড়া গ্রাম্য পরিবেশ ও পদ্ধতিতে বিভিন্ন ফলের গাছের গ্রাফটিং। এক মাস বাদেই তৈরি হচ্ছে চারাগাছ। বিক্রি বেড়েছে বহুগুণ। বিক্রিতে লাভও মিলছে। তৈরি হচ্ছে আপেল পেয়ারা।
বিশদ

29th  May, 2019
 ধানের সহনশীল জাত স্বর্ণ সাব-১ সুন্দরবনের উপযোগী

  সংবাদদাতা: কৃষিক্ষেত্রে প্রতিকূল পরিবেশ সহনশীল ধানবীজের ব্যবহার আর রাসায়নিক সারের ব্যবহার কমিয়ে বা বন্ধ করে নতুন ভাবনায় এগিয়ে যেতে চাইছে রাজ্যের কৃষি দপ্তর ও জৈব প্রযুক্তি পরিকল্পনা বিভাগ। রাজ্যের প্রধান ফসল ধানচাষে প্রথাগত বীজ ব্যবহার হয়ে থাকত। এর ফলে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে চাষিদের ক্ষতির মুখে পড়তে হতো।
বিশদ

29th  May, 2019
 আম-লিচু পরিচর্যা

 আম বোঁটা সহ পাড়তে হবে। পাড়ার পর আম উল্টো করে কিছুক্ষণ রাখতে হবে। এতে আঠা ঝরে যাবে। আমের গায়ে দাগ লাগবে না
 আম কার্বাইড দিয়ে পাকানো উচিত নয়। প্রয়োজনে মাত্রা বুঝে ইথিলিন গ্যাস স্প্রে করে আম পাকানো যেতে পারে
 লিচুর ঝলসা রোগ রুখতে বাগানের উত্তর বা পূর্বদিকে শেডনেট করে দিতে পারলে ভালো। এতে গরম হাওয়া ঠেকানো যাবে
 আম ও লিচু পাড়ার দু’সপ্তাহ আগে কার্বেন্ডাজিম ও ম্যানকোজেবের মিশ্রণ স্প্রে করতে হবে। এতে ছত্রাকঘটিত রোগ ঠেকানো যায়
 
বিশদ

22nd  May, 2019
মাটি পরীক্ষার রিপোর্ট দেখে তবেই সার দিতে হবে জমিতে

 সংবাদদাতা: যে কোনও ফসল চাষের আগে মাটি পরীক্ষা করে মাটির গুণমান জেনে চাষ করলে ফসলের গুণমান যেমন ভালো হবে, তেমনই উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। মাটি পরীক্ষার জন্য মাটির নমুনা সংগ্রহ করতে হবে সঠিক নিয়ম মেনে। যে জমির মাটি পরীক্ষা করতে হবে, সেই জমির আলের ধার থেকে ১০-১২ ফুট ছেড়ে মাটি সংগ্রহ করতে হবে।
বিশদ

22nd  May, 2019
পাটের ভালো ফলন পেতে নিয়ম মেনে পরিচর্যা জরুরি

 অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: জমিতে পাট বোনার পর এখন জেলায় জেলায় চলছে পরিচর্যার কাজ। পাটচাষে ভালো উৎপাদন পেতে হলে সঠিক নিয়ম মেনে পাটের পরিচর্যা করতে হবে। পাটের চারা বের হওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে চার ইঞ্চি দূরে একটি করে গাছ রেখে বাকি পাটগাছ তুলে ফেলতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে নিড়ান দিয়ে ঘাস তুলে ফেলতে হবে।
বিশদ

22nd  May, 2019
 স্বনির্ভরতার দিশা দেখাচ্ছে ব্রয়লার মুরগি পালন

নিজস্ব প্রতিনিধি: গ্রামে স্বনির্ভরতার দিশা দেখাতে পারে ব্রয়লার মুরগি পালন। এই মুরগির প্রচলিত জাতগুলি হল, চাব্রো, বি-৭৭, ভেনকব, হুবার্ড, গিরিরাজা, ক্যাসিলা, ক্যাবিব্রো-৯১ প্রভৃতি। ব্রয়লার মুরগি প্রতিপালনে কয়েকটি বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। এই মুরগির ঘর উঁচু, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন জায়গায় করতে হবে। ঘরে যেন আলো-বাতাস ঢোকে।
বিশদ

22nd  May, 2019

Pages: 12345

একনজরে
  চেন্নাই, ১৭ জুন: তামিলনাড়ু পুলিসের এক সাব-ইন্সপেক্টরের বিশেষ রিপোর্টের ভিত্তিতে তিন আইএস সমর্থনকারীকে গ্রেপ্তার করল বিশেষ তদন্তকারী শাখা (এনআইএ)। ওই তিনজন কোয়েম্বাটোরের বিভিন্ন ধর্মীয়স্থানে আত্মঘাতী হামলার ছক করেছিল বলে পুলিসের দাবি। ধৃতদের নাম মহম্মদ হুসেন, শাহজাহান এবং শেখ সইফুল্লা। ...

সংবাদদাতা, আলিপুরদুয়ার: বিধানসভা ভোটের দিকে লক্ষ্য রেখে আলিপুরদুয়ারে জেলা জুড়ে ফের সদস্য সংগ্রহ অভিযানে নামছে বিজেপি। কিভাবে এই সদস্য সংগ্রহ হবে তার জন্য প্রশিক্ষণ নিতে দলের জেলা ও মণ্ডল কমিটির চার নেতার নাম কলকাতায় পাঠানো হয়েছে।   ...

 সৌম্যজিৎ সাহা  কলকাতা: রাজ্যে ক্রমশ কমছে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের আসন। গতবার যেখানে ৩১ হাজারের বেশি আসন ছিল, এবার তা আরও কমে হয়েছে ২৯ হাজার ৬৫৯টি আসন। প্রাথমিক হিসেবে এই তথ্য মিলেছে। যদিও এখনও দু’টি কলেজ এবং কয়েকটি বিষয়ের আসন যুক্ত হওয়ার ...

  মুম্বই, ১৭ জুন (পিটিআই): ৬৭ কোটি ৬৫ লক্ষ টাকা ঋণ পরিশোধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় বিড়লা সূর্য সংস্থার ডিরেক্টর যশোবর্ধন বিড়লাকে ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপি ঘোষণা করল ইউকো ব্যাঙ্ক। রবিবার এ বিষয়ে জনস্বার্থে নোটিস জারি করেছে তারা। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চতর বিদ্যায় সাফল্য আসবে। প্রেম-ভালোবাসায় আগ্রহ বাড়বে। পুরনো বন্ধুর সঙ্গে সাক্ষাতে আনন্দলাভ হবে। সম্ভাব্য ক্ষেত্রে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৩৬- রুশ সাহিত্যিক ম্যাক্সিম গোর্কির মৃত্যু
১৯৮৭- পরিচালক হীরেন বসুর মৃত্যু
২০০৫- ক্রিকেটার মুস্তাক আলির মৃত্যু
২০০৯- প্রখ্যাত সরোদ শিল্পী আলি আকবর খানের মৃত্যু  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.৯৯ টাকা ৭০.৬৮ টাকা
পাউন্ড ৮৬.৩৪ টাকা ৮৯.৫৫ টাকা
ইউরো ৭৬.৭৯ টাকা ৭৯.৭৬ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৩,৩২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩১,৬১৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩২,০৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৭,১০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৭,২০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩ আষা‌ঢ় ১৪২৬, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, প্রতিপদ ২৩/৫৮ দিবা ২/৩১। মূলা ১৭/১৬ দিবা ১১/৫০। সূ উ ৪/৫৬/০, অ ৬/১৮/৫৪, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৬ মধ্যে পুনঃ ৯/২৩ গতে ১২/৩ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৮ গতে ৪/৩১ মধ্যে। রাত্রি ৭/১ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৮ গতে ২/৬ মধ্যে, বারবেলা ৬/৩৭ গতে ৮/১৭ মধ্যে পুনঃ ১/১৮ গতে ২/৫৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/৩৯ গতে ৮/৫৮ মধ্যে। 
২ আষাঢ় ১৪২৬, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, প্রতিপদ ২২/২২/৩৮ দিবা ১/৫২/৩৩। মূলানক্ষত্র ১৭/২৭/২৯ দিবা ১১/৫৪/৩০, সূ উ ৪/৫৫/৩০, অ ৬/২১/২৮, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪০ মধ্যে ও ৯/২৭ গতে ১২/৮ মধ্যে ও ৩/৪২ গতে ৪/৩৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৫ মধ্যে ও ১২/২ গতে ২/৯ মধ্যে, বারবেলা ৬/৩৬/১৫ গতে ৮/১৬/৫৯ মধ্যে, কালবেলা ১/১৯/১৩ গতে ২/৫৯/৫৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/৪০/৪৩ গতে ২/৫৯/৫৯ মধ্যে। 
মোসলেম: ১৪ শওয়াল 
এই মুহূর্তে
বিশ্বকাপ: আফগানিস্তানকে ১৫০ রানে হারাল ইংল্যান্ড

10:48:34 PM

স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে নিরাপত্তা, চালু কলকাতা পুলিসের হেল্প লাইন 
গতকাল মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ পাওয়ার পর স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে নিরাপত্তা জনিত সমস্যার ...বিশদ

09:48:24 PM

বিশ্বকাপ: আফগানিস্তান ৮৬/২ (২০ ওভার) 

08:17:00 PM

দার্জিলিং পুরসভায় প্রশাসক নিয়োগ করল রাজ্য সরকার 

08:08:39 PM

জাপানে বড়সড় ভূমিকম্প, মাত্রা ৬.৫, জারি সুনামি সতর্কতা 

07:34:58 PM

বিশ্বকাপ: আফগানিস্তান ৪৮/১ (১০ ওভার) 

07:05:00 PM