Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

ড্রাগনের ছায়ায় সঙ্কটে
ভারতের প্রতিবেশী নীতি
মৃণালকান্তি দাস

কূটনীতির স্বার্থে তালিবানের সঙ্গে কি ভারতের ভালো সম্পর্ক রাখা প্রয়োজন? এটাই এখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিদেশমন্ত্রকের কাছে কোটি টাকার প্রশ্ন। যে প্রশ্নের উত্তর মেলেনি এখনও!
উত্তর মেলেনি ৩০০ কোটি ডলারের কী হবে। শেষ ২০ বছরে এই বিপুল অর্থ ‘বন্ধু’ দেশ আফগানিস্তানে বিনিয়োগ করেছে নয়াদিল্লি। ভারত সরকারের ওয়েবসাইটেই রয়েছে, আফগানিস্তানে গণতন্ত্রের স্তম্ভ সংসদ ভবন তৈরি করে দিয়েছিল নয়াদিল্লি। খরচ হয়েছিল ৯৭০ কোটি টাকা। সেই সংসদ ভবনে একটি ব্লক রয়েছে ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ির নামে। সেই ঘরে, সেই ভবনেই দাপিয়ে বেড়াচ্ছে তালিবান। রাস্তা, পরিকাঠামো উন্নয়ন থেকে হেরাট প্রদেশে সালমা জলাধার, চাবাহার বন্দর, এসবও তৈরি হয়েছে ভারতীয় অর্থ সাহায্যে। শুধু তাই নয়, ভারত সরকার আফগানিস্তানকে ২০০টি মিনিবাস, ৪০০ বাস, ১০৫ সরকারি গাড়ি, ২৮৫টি সেনার গাড়ি, পাঁচটি শহরে ১০টি অ্যাম্বুলেন্স, তিনটি এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান উপহার হিসেবে দিয়েছিল। তৈরি করে দিয়েছিল জরঞ্জ-দেলারাম সড়ক, যাতে খরচ হয়েছিল প্রায় ১৫ কোটি ডলার। এই রাস্তাই এখন আফগানিস্তানের মূল যোগাযোগের মাধ্যম। ২০ বছরের এই বন্ধুত্বে কি এবার ইতি পড়বে? ভারতের করদাতাদের অর্থে নিজেদের আখের গোছাবে তালিবান?
এমন বহু প্রশ্নের উত্তর না মিললেও আফগানিস্তানে তালিবান উত্থানের ঘটনাকে দেশের রাজনৈতিক পরিসরে কতটা ব্যবহার করা যায়, তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করে দিয়েছে গেরুয়া শিবির। কীভাবে? ‘তালিবান জুজু’ দেখিয়ে নয়া প্রচার কৌশলে নেমে পড়েছে বিজেপির আইটি সেল। কোভিড, পেগাসাস, কৃষি আইন, জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি ইস্যুতে কেন্দ্র যখন কোণঠাসা, তখন আফগানভূমে তালিবান হানা যেন নিস্তার পাওয়ার পথ খুঁজে দিয়েছে গেরুয়া শিবিরকে। শান্তিপ্রিয় ভারতবাসীর তালিবান ভীতিকে কাজে লাগাতে চাইছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই বিজেপি নেতারা বলা শুরু করেছেন, ‘মোদির মতো শক্তিশালী নেতা না থাকলে ভারতের অবস্থাও ভবিষ্যতে আফগানিস্তানের মতোই হবে।’ এমনকী দেশের বেহাল আর্থিক অবস্থা, বা পেট্রল-ডিজেলের দাম নিয়ে প্রশ্ন করা হলেও দেখিয়ে দেওয়া হচ্ছে ‘তালিবান জুজু’। পেট্রলের দাম নিয়ে প্রশ্ন তোলায় ভোপাল এবং বিহারের দুই বিজেপি নেতা তো প্রকাশ্যেই আফগানিস্তানে চলে যাওয়ার নিদান দিয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়াতেও বিজেপির আইটি সেল বোঝাতে চেষ্টা করছে, আজ আফগানিস্তান যে সন্ত্রাস সমস্যায় বিপর্যস্ত, সেটা শুধু ভুল নীতি, আর যোগ্য নেতার অভাবে। এবং মোদি না থাকলে ভারতেও সেই পরিস্থিতিই সৃষ্টি হতে পারে।
অথচ, যে কথাটি অনালোচিত থেকে গিয়েছে, তা হল, দেশের বিদেশনীতিকে শক্তিশালী করার থেকেও ‘বিশ্বগুরু’ হওয়ার আকাঙ্ক্ষা বছরের পর বছর নরেন্দ্র মোদিকে তাড়িয়ে বেড়িয়েছে। মনে করুন মোদি জমানার সেই প্রথম শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের কথা। প্রধানমন্ত্রী সেদিন যাঁদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন, তাঁরা ছিলেন সার্ক সদস্যদেশের নেতা। সেই নিমন্ত্রণের অন্তর্নিহিত বার্তাটি ছিল তাঁর বিদেশনীতির নির্যাস: প্রতিবেশীদের অগ্রাধিকার। মোদি জমানা যত এগিয়েছে, প্রতিবেশীদের সঙ্গে সেই সুসম্পর্ক গড়ে তোলার বার্তাও ফিকে হয়েছে।
তাকিয়ে দেখুন মানচিত্রের দিকে। একসময় যে নেপাল ছিল ভারতের পরম সুহৃদ, আজ সে ফিরেও তাকায় না। বেজিং যত কাছে এসেছে, কাঠমান্ডুর সঙ্গে দিল্লির দূরত্ব তত বেড়েছে। শ্রীলঙ্কা আরও কাছে টানতে শুরু করেছে চীনকে। বাংলাদেশ, মালদ্বীপ দুলে চলেছে পেন্ডুলামের মতো। সীমান্তবর্তী ডোকালাম বিবাদের পর চীনের প্রভাবও অস্বীকার করতে পারছে না ভুটান। ইমরান খানের পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক তো সকলের জানা। বাকি ছিল আফগানিস্তান। এই সে দিনও ভারতের চোখে যে দেশ ছিল প্রকৃত বিশ্বস্ত বন্ধু, তালিবান উত্থানের পর তাও আজ অতীত। আর সব সম্পর্ক ভাঙনে আড়কাঠি হয়ে উঠেছে বেজিং। ড্রাগনের ছায়ায় সঙ্কটে ভারতের প্রতিবেশী নীতি। চীনের নজর এখন— ভারতীয় উপমহাদেশে প্রভাব বিস্তার, সীমা সম্প্রসারণ ও কূটনৈতিক লড়াই।
বিশ্বনেতা হওয়ার তাড়নায় মোদি সমকালীন নেতাদের সঙ্গে ব্যক্তিগত সখ্য গড়ে তুলেছিলেন। তেলা মাথায় তেল দিয়েছেন। ভাবটা এমন, দেশের বিদেশনীতির চালকের আসনে প্রধানমন্ত্রী নিজেই। ওবামাকে দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে নিজের হাতে চা করে খাইয়েছেন। চীনা প্রেসিডেন্ট জি জিনপিংয়ের সঙ্গে আমেদাবাদের সবরমতির কিনারে দোলনায় দুলেছেন। তামিলনাড়ুর মামাল্লাপুরম মন্দির ভ্রমণের সময় গাইডের ভূমিকা নিয়েছেন। ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নাম ধরে ‘মাই ফ্রেন্ড’ বলেছেন। টেক্সাসে ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্বঘোষিত ‘নির্বাচনী এজেন্ট’ হিসেবে ‘আব কি বার ট্রাম্প সরকার’ স্লোগান দিয়েছেন। আমেদাবাদে ‘নমস্তে ট্রাম্প’ অনুষ্ঠানে মার্কিন প্রেসিডেন্টের পিঠ চাপড়ে দিয়েছেন। বিদেশি রাষ্ট্রনায়কদের বুকে জড়িয়ে ধরার মধ্য দিয়ে পারস্পরিক নৈকট্য প্রমাণে সচেষ্ট হয়েছেন। তাতে আন্তর্জাতিক স্তরে ‘ব্র্যান্ড মোদি’ ভাবমূর্তি তৈরি হলেও, প্রতিবেশী দেশগুলির মন জয় করতে পারেননি।
মোদির মার্কিন প্রীতি যত প্রকাশ্যে এসেছে, ভারতের প্রতিবেশী দেশগুলিতে চেনা ছকে তত বিস্তারবাদের আস্ফালন বাড়াতে শুরু করেছে চীন। যেমন হয়েছে আফ্রিকায়। মার্কিন ও ইউরোপীয় আধিপত্যে থাবা বসাতে গত দু’দশক ধরে আফ্রিকার অনেকগুলি দেশে বিপুল বিনিয়োগ করেছে চীন। সমুদ্রবন্দর, পরিকাঠামো, প্রাকৃতিক সম্পদ আহরণ, মুক্ত-বাণিজ্য অঞ্চল নির্মাণ। শুরুটা সব ক্ষেত্রেই বন্ধুত্বপূর্ণ শর্তে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ দিয়ে হয়েছে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে যা অনেক ক্ষেত্রেই পর্যবসিত হয়েছে সেই প্রকল্পগুলির মালিকানা দখলে। কারণ সেই টাকা ফেরত দেওয়ার ক্ষমতা দেশগুলির থাকেনি। ফলে প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর আফ্রিকার অনেক দেশে চীনের আধিপত্য আজ সুপ্রতিষ্ঠিত। একইভাবে বহু দেশেই একাধিক প্রজেক্টে অর্থ বিনিয়োগ করে চীন সেদেশের আবেগ কিনে নিয়েছে। যার প্রবল শিকার নেপাল। গত কয়েক বছরে নেপালের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কে তৈরি হয়েছে নানা জটিলতা, ভারত-বিরোধিতার সুর চড়েছে সেখানে। শ্রীলঙ্কার কথাই ধরুন। হাম্বানতোতায় একটি সমুদ্রবন্দর নির্মাণের জন্য চীন বন্ধুত্বমূলক শর্তে হাত উপুড় করে টাকা দিয়েছিল। অনিবার্য ফল— সেই টাকা পরিশোধ করা শ্রীলঙ্কার পক্ষে অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়। সেই মৃতপ্রায় আস্ত বন্দর ঘিরে পনেরো হাজার একর জমি আজ চীনের দখলে, ভারত থেকে ঢিলছোড়া দূরত্বে।
বিআরআই (বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ) প্রকল্পে বাংলাদেশে পরিকাঠামো গড়তে ৩০ বিলিয়ন ডলারের বেশি বিনিয়োগের উদ্যোগ নিয়েছে চীন। পাকিস্তানের পরেই যা সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ। চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমে একটি বিরাট অঞ্চলের নিকটতম সমুদ্রবন্দর হল চট্টগ্রাম। তাই কুনমিং থেকে চট্টগ্রাম বন্দর পর্যন্ত মহাসড়ক নির্মাণে চীনের বিশেষ আগ্রহ। চট্টগ্রামের আনোয়ারা অর্থনৈতিক অঞ্চলে ৬০টি চীনা কোম্পানি বিনিয়োগের আগ্রহ দেখিয়েছে। বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে ৩০ কোটি ডলারের যে বিনিয়োগ এসেছে, সেটি চীনের ইয়াবাং ইনভেস্টমেন্ট হোল্ডিংস গ্রুপের। যারা চীনের ইয়াবাং গ্রুপের অন্তর্ভুক্ত। ইয়াবাং ১০০ একর জমিতে বস্ত্র শিল্পের রাসায়নিক, ওষুধের কাঁচামাল ও অন্যান্য রাসায়নিক উৎপাদন করবে। চীনের বাজারেও বাংলাদেশ ৮ হাজার ২৫৬টি পণ্যে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেয়েছে।
সম্প্রতি শোনা যাচ্ছে ‘তিস্তা মহাপরিকল্পনা’র কথা। পরিকল্পনা নিয়ে হাজির একটি চীনা কোম্পানি। আর তা বাস্তবায়নের দাবি করছে তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদ। কী আছে সেই প্রোজেক্টে? ইউরোপীয়ান শহরের মধ্যে দিয়ে বয়ে চলা নদীগুলির মতো পাকা ক্যানেল হবে তিস্তা। তার দু’পাশে বিশাল বিশাল ভবন, গোছানো ছিমছাম আবাদি জমি। তেভাগা আন্দোলনের কেন্দ্র ডিমলা থেকে চিলমারি পর্যন্ত হুবহু ইউরোপের যেকোনও রাজধানী শহর। বলা হচ্ছে, তিস্তার জল আসবে তিস্তা খনন করেই। ভূগর্ভের জল এসে ভরাট করবে তিস্তাপাড়ের জীবনরেখাকে। এর প্রস্তাবিত ব্যয় আট হাজার কোটি টাকা দেবে বেজিং। চীনের এই প্রভাবের কারণে ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ক আজ এক সন্ধিক্ষণে। তাই উপমহাদেশের আঞ্চলিক রাজনীতিতে অনেক মোড়-পরিবর্তন ঘটছে, শুরু হয়েছে সম্পর্কের ভাঙাগড়া।
অন্যদিকে আফগানিস্তানের দখল হাতে নিয়েই তালিবানের ফতোয়া, ভারতের সঙ্গে আপাতত কোনও ব্যবসা-বাণিজ্য বা লেনদেন হবে না। আফগানিস্তানে ভারত রপ্তানি করে চিনি, চা, কফি, পোশাক, ওষুধ, বৈদ্যুতিন যন্ত্রপাতি, চেরি ফল, তরমুজ প্রভৃতি। শুধু চলতি বছরেই প্রায় ৮৩৫ মিলিয়ন ডলারের পণ্যসামগ্রী আফগানিস্তানকে বিক্রি করেছে ভারত। দু’দেশের ব্যবসায়িক সম্পর্ক বন্ধ থাকায় আর্থিক ক্ষতির মুখে এদেশের ব্যবসায়ীরাই। সেই বাজার ধরতে ওত পেতে রয়েছে চীন। বেজিং এখন আর নিজেদের শক্তি দেখাতে রাখঢাক রাখছে না। তারা তাকিয়ে আফগানিস্তানের বিপুল খনিজ সম্পদের দিকেও। ইতিমধ্যে তালিবানের মুখপাত্র সুহেল শাহিন জানিয়ে দিয়েছেন, আফগানিস্তানের উন্নতি সাধনে চীন বড়সড় ভূমিকা নিতে পারে।
এখন প্রশ্ন একটাই, আফগানভূমিতে বেজিংকে রুখতে কী কৌশল নেবে ভারত? দেশের বিদেশনীতি নিয়ে মোদিজি এখনও নীরব। যা আমাদের ভাবাচ্ছে বইকি!
সবচেয়ে ক্ষতি ভারতের ধর্মনিরপেক্ষতার
হারাধন চৌধুরী

ভারতের নিকটতম প্রতিবেশী নয় আফগানিস্তান। ইরান, তাজিকিস্তান, উজবেকিস্তান, তুর্কমেনিস্তান, পাকিস্তান ও চীনের মাঝে পাহাড়, মরুভূমি ও স্থল বেষ্টিত একটি দেশ আফগানিস্তান। তবু কাবুলের পতনে চিন্তার ভাঁজ মূলত ভারতেরই কপালে।
বিশদ

25th  August, 2021
ভয় যে আপনার রিমোট কন্ট্রোলেই

বাংলায় একটা প্রবাদ আছে, শূন্য কলসি বাজে বেশি। বিজেপি জানে, যেখানে কাজ মগজাস্ত্রের, সেখানে দাদামশাইকে অবসর দিলে ভালো হয়। কিন্তু তা তো করা যাবে না! তাহলে উপায় কী? কেন, প্রোপাগান্ডা! মোদি থাকতে ভয় কী? বাজারে ইতিমধ্যেই আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে... বিজেপি এটাকেই এবার কাজে লাগাবে। একটা যুদ্ধ যুদ্ধ ভাব। কিন্তু যুদ্ধ নয়।
বিশদ

24th  August, 2021
পাকিস্তানের তালিবান মদত ব্যুমেরাং হবে
কুমারেশ চক্রবর্তী

১৫ আগস্ট ২০২১, কাবুলের সঙ্গে সঙ্গে ইসলামাবাদ এবং লাহোরে পালিত হল তালিবান বিজয়োৎসব। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বললেন, ‘দু’দশক পরে আফগানরা দেশকে বিদেশিমুক্ত করল।’ 
বিশদ

23rd  August, 2021
তাৎপর্য হারিয়েছে স্বাধীনতা দিবসের ভাষণ
পি চিদম্বরম

বিশ্ব নেতাদের সবচেয়ে প্রত্যাশিত ভাষণগুলির মধ্যে একটি হল মার্কিন কংগ্রেসে প্রেসিডেন্টের বাৎসরিক ভাষণটি (অ্যানুয়াল স্টেট অফ দি ইউনিয়ন)। কারণ আমেরিকার নীতিগুলির প্রভাব পড়ে অন্যান্য দেশের উপরেও।
বিশদ

23rd  August, 2021
লাদেনের ভূত আমেরিকার পিছু ছাড়বে না
হিমাংশু সিংহ

আমেরিকাকে একটাই প্রশ্ন তালিবানের সৃষ্টি কর্তা কে? অনেকেই বলে থাকেন আমেরিকার মদতে সৃষ্ট তালিবান ২০০১ সালে ফ্র্যাঙ্কেনস্টাইন হয়েই টুইন টাওয়ারে হামলা করে যোগ্য জবাবই দিয়েছিল। পেন্টাগনকে বুঝিয়ে দিয়েছিল আগুন নিয়ে খেলার পরিণাম।
বিশদ

22nd  August, 2021
ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ:
মমতার সাহসী পদক্ষেপ
তন্ময় মল্লিক

সিপিএম ৩৪ বছরে যা করতে পারেনি, তৃণমূলনেত্রী ক্ষমতা দখলের ১০ বছরের মাথায় সেটাই করে দেখালেন। ‘এক ব্যক্তি এক পদ’ নীতি কার্যকর করার জন্য তাঁর ‘টাইমিং’ অসাধারণ। একদিকে নির্বাচনে বিপুল সাফল্য, অন্যদিকে বিরোধীদের ছন্নছাড়া অবস্থা। বিশদ

21st  August, 2021
সোনার খোঁজে ভারতের মঞ্চ নির্ধারণ
অনুরাগ সিং ঠাকুর

আমাদের প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে নীরজ চোপড়াকে চুরমা দেওয়া, পিভি সিন্ধুকে আইসক্রিম খাওয়ানো, বজরং পুনিয়ার সঙ্গে হাসতে দেখা, রবি দাহিয়াকে আরও হাসতে বলা এবং মীরাবাই চানুর অভিজ্ঞতা শোনা প্রত্যেক ভারতীয়ের মুখে হাসি ফুটিয়েছে। টোকিওতে অংশ নেওয়া প্রতিটি ক্রীড়াবিদের সঙ্গে সময় অতিবাহিত করতে গিয়ে তিনি সকলকে সমানভাবে উৎসাহ দিয়েছেন। বিশদ

21st  August, 2021
তালিবানের সাফল্য ও আমেরিকার ভূমিকা
সমৃদ্ধ দত্ত

মাননীয় আমেরিকা, আপনাকে ধন্যবাদ। গত দেড় বছর ধরে করোনার জেরে সবথেকে বেশি ধাক্কা খেয়েছে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে থাকা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি। দর্শক নেই, প্লট নেই, বড় পর্দায় রুদ্ধশ্বাস মুহূর্ত তৈরি করা চিত্রনাট্যও নেই। অবশেষে আবার আপনি অবতীর্ণ হলেন একটা অনবদ্য প্লট ও সিনেমাটোগ্রাফি নিয়ে।
বিশদ

20th  August, 2021
আফগানরাই নিজেদের
রক্ষার জন্য লড়েনি
মৃণালকান্তি দাস

যাদের ঘাড়ে বন্দুক রেখে দেশ শাসন করা হয়েছে, তারাই যখন পালাচ্ছে, তখন তালিবানের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ অর্থহীন— এমনই একটি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছিলেন প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যরা। তাঁরা বুঝতে পেরেছিলেন, বাঁচতে হলে তালিবানের সঙ্গে হাত মেলানোই শ্রেয়। বিশদ

19th  August, 2021
কোভিডের তৃতীয় ঢেউ সত্যিই
কি ভয়াবহ হতে চলেছে?
মৃন্ময় চন্দ

করোনার তৃতীয় ঢেউ সত্যিই কতটা উদ্বেগ বা আশঙ্কার, সে ব্যাপারে বিজ্ঞানীকুলও দ্বিধাগ্রস্ত। কোভিডের অব্যর্থ লক্ষ্যভেদী কোনও ওষুধ/চিকিৎসার অভাবে মাস্ক-ভ্যাকসিন-শারীরিক দূরত্ববিধির ত্রিশূলেই লুকিয়ে নভেলকরোনা বধের রণকৌশল।
বিশদ

18th  August, 2021
যে টাকা পকেটেই নেই,
সেটা ব্যয় করবেন মোদি!
সন্দীপন বিশ্বাস

লক্ষ লক্ষ কোটি টাকার প্রতিশ্রুতি দিতে এখন আর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মুখে আটকায় না। যে দেশে সরকারি কর্মীদের বেতন দিতে সরকারকে জাতীয় সম্পত্তি বেচতে হয়, রেল-স্টেশন-বিমানবন্দর, ছোটবড় কারখানা বেচতে হয়, সেখানে কথায় কথায় কী করে যে তিনি টাকার গপ্পো বলে মানুষকে সম্মোহিত করার ভুলভাল খেলা খেলেন, তা ভাবাই যায় না।
বিশদ

18th  August, 2021
কাবুলের পতন: ভারতের অসহায় বিদেশনীতি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

তালিবান ঘুরে দাঁড়ানোর পর এখন শুধু সন্ত্রাসের আঁচ লক্ষ করা যাচ্ছে। অদূর ভবিষ্যৎ আর কী কী সঙ্কট ভারতের জন্য নিয়ে আসবে, তা এখন আন্দাজও করা যাচ্ছে না। ভারত ঘোষিত সন্ত্রাসবাদী বিরোধী। উত্তর এবং পশ্চিমে আমাদের ঘিরে থাকছে এমন তিন শত্রু দেশ, যারা হয় সন্ত্রাসবাদী, না হলে সন্ত্রাসে মদতদাতা। বিশদ

17th  August, 2021
একনজরে
হাওড়া সিটি পুলিস প্রায় ৪৫ কেজি নিষিদ্ধ চীনা মাঞ্জা উদ্ধার করল। মঙ্গল ও বুধবার জাগাছা থানার বিভিন্ন জায়গা থেকে উদ্ধার করা হয় এই বিপুল পরিমাণ সুতো। ...

দেশজুড়ে সরকারি সংস্থা বিক্রির কড়া সমালোচনা চলছে। তবু মোদি সরকার অনড়। সিংহভাগ ক্ষেত্রেই সরকারের উপস্থিতি যে কমিয়ে আনা হবে, সরাসরি একথা জানিয়ে দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। বুধবার তিনি বলেছেন, দুটি ভাগে সরকারি সংস্থাকে বিভাজিত করা হচ্ছে। ...

একই বিষয় নিয়ে দুটি মামলা। প্রথমটির উল্লেখ না করেই দ্বিতীয়টি দায়ের করা হয়েছে। এমন অভিযোগে বাঁকুড়ার মেজিয়া এলাকা থেকে বেআইনি কয়লা তোলার দ্বিতীয় মামলাটি বুধবার খারিজ করলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দেবাংশু বসাক। ...

‘তালিবানের সেবায় পাকিস্তান নিজেকে নিয়োজিত করেছে। তালিবদের কখনই চাপের মুখে পড়তে হয়নি। পাকিস্তানকে ওরা বেস হিসেবে ব্যবহার করেছে। নির্দিষ্ট কোনও এলাকা নয়, গোটা পাকিস্তানই তাদের সাহায্য করতে উঠেপড়ে লেগেছিল।’ ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

হঠাৎ নেওয়া সিদ্ধান্তে বিপদে পড়তে পারেন। চলচিত্র ও যাত্রা শিল্পী, পরিচালকদের শুভ দিন। ধনাগম হবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭২৩ - অণুবীক্ষণ যন্ত্রের আবিষ্কারক ওলন্দাজ বিজ্ঞানী আন্তেনি ভান লিউভেনহুকের মৃত্যু
১৮৬৯ - রহস্য কাহিনীকার ও সম্পাদক দীনেন্দ্র কুমার রায়ের জন্ম
১৯১০: নোবেল জয়ী সমাজসেবী মাদার টেরিজার জন্ম
১৯২০ - মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নারীদের ভোটাধিকার স্বীকৃত হয়
১৯২০: অভিনেতা ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯২৭ - ইন্ডিয়ান ব্রডকাস্টিং কোম্পানি কলকাতায় প্রথম বেতার সম্প্রচার শুরু করে
১৯৩৪: কবি ও গীতিকার অতুলপ্রসাদ সেনের মৃত্যু
১৯৪৩ - আজাদ হিন্দ ফৌজ আনুষ্ঠানিকভাবে গঠিত হয়
১৯৫৫ - সত্যজিত্ রায়ের চলচ্চিত্র ‘পথের পাঁচালী’র মুক্তি লাভ
১৯৫৬: রাজনীতিক মানেকা গান্ধীর জন্ম
১৯৬৮: চিত্র পরিচালক মধুর ভাণ্ডারকরের জন্ম 
২০০৩ - লেখক ও ঔপন্যাসিক বিমল করের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.৩৭ টাকা ৭৫.০৮ টাকা
পাউন্ড ১০০.১১ টাকা ১০৩.৫৭ টাকা
ইউরো ৮৫.৫৯ টাকা ৮৮.৭১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৮, ২০০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৫,৭৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৬, ৪৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৪, ০০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৪, ১০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৯ ভাদ্র ১৪২৮, বৃহস্পতিবার, ২৬ আগস্ট ২০২১। চতুর্থী ২৯/৪৪ অপরাহ্ন ৫/১৪। রেবতী নক্ষত্র ৪২/৫১ রাত্রি ১০/২৯। সূর্যোদয় ৫/২০/৫২, সূর্যাস্ত ৫/৫৬/১২। অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৫৩ গতে ৩/৩ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৭/০ মধ্যে পুনঃ ১০/২৩ গতে ১২/৫৪ মধ্যে। বারবেলা ২/৪৭ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ১১/৩৮ গতে ১/৪ মধ্যে।
৯ ভাদ্র ১৪২৮, বৃহস্পতিবার, ২৬ আগস্ট ২০২১। চতুর্থী অপরাহ্ন ৫/৩৪। রেবতী নক্ষত্র রাত্রি ১১/৫৫। সূর্যোদয় ৫/২০, সূর্যাস্ত ৬/০। অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৪৩ গতে ৩/৪ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৭/৩ মধ্যে ও ১০/১৯ গতে ১২/৪৪ মধ্যে। কালবেলা ২/৫০ গতে ৬/০ মধ্যে। কালরাত্রি ১১/৪০ গতে ১/৫ মধ্যে।
১৭ মহরম।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
তৃতীয় টেস্ট: প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ড ২৯৮/৩ (চা বিরতি) 

08:49:20 PM

কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ফের কাবুল বিমানবন্দরের বাইরে দ্বিতীয় বিস্ফোরণ

08:44:00 PM

কাবুল বিস্ফোরণে ১৩ জনের মৃত্যু, রয়েছে একাধিক শিশুও 

08:21:08 PM

করোনা: গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আক্রান্ত ৭১৭, মৃত ৯ 

08:03:25 PM

কাবুল বিমানবন্দরের বাইরে বিস্ফোরণ, হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি 

07:54:59 PM

কমতে পারে কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের দুটি ডোজের ব্যবধান: সূত্র 

06:01:10 PM