রাজ্য

এযাত্রায় রক্ষা পেল দীঘা, ভোরে  সমুদ্রে ঝাঁপালেন একদল পর্যটক

রাহুল চক্রবর্তী, দীঘা: ভয় আর আতঙ্ককে সঙ্গী করেই রবিবারের রাত কেটেছিল দীঘার সমুদ্র উপকূলবর্তী মানুষজনের। নিজের কাঁচাবাড়ি কিংবা সমুদ্র সৈকতের দোকানটা অক্ষত থাকবে তো! এই ভেবেই রাতভর উৎকণ্ঠার মধ্যে কাটে কয়েক হাজার মানুষের। কিন্তু সোমবার সকালে অক্ষত দীঘার অমলিন ছবিটা চোখের সামনে ধরা দিতেই হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন অমিত, বিকাশ, রাজু, সুতপা, জ্যোৎস্নারা। তাঁদের চোখে খুশির নোনাজল। অক্ষত সমুদ্র সৈকত। হাওয়ার দাপটে দোকানের দু-একটি সাইনবোর্ড খুলে পড়া ছাড়া, কোনও ঘটনাই নেই! এমনকী, দীঘা প্রান্তরে ঝড়ের তাণ্ডবই লক্ষ্য করা যায়নি। ‘দুর্যোগ’-এর আশঙ্কাকে মিথ্যে করে দিয়ে যা দেখা গিয়েছে সে শুধুই—ছিটেফোঁটা বৃষ্টি আর সমুদ্রে জলোচ্ছ্বাস। এক কথায়, এলাকাবাসী, বিক্রেতা, পর্যটক সকলেরই এক বক্তব্য—এযাত্রায় রক্ষা পেলাম! 
রবিবার রাতে আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড় রামেল। প্রাকৃতিক দুর্যোগে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার উপকূল এলাকায়। তবে পূর্ব মেদিনীপুরের দীঘা উপকূল অঞ্চলে যে আশঙ্কা করা হয়েছিল, তেমনটা না-হওয়ায় স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছেন সাধারণ মানুষ থেকে প্রশাসনের কর্তাসহ সকলেই। দীঘার সমুদ্র সৈকতে রেমাল ঝড়ের তাণ্ডব পড়েনি। ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির কোনও ঘটনাই নেই। রাতভর বৃষ্টি হলেও, তা কোনোভাবেই অতি থেকে অতিভারী হয়নি। হাওয়ার দাপট থাকলেও, বিরাট মাত্রায় ঝড়ের প্রভাব পড়েনি দীঘা উপকূলে। স্বাভাবিকভাবেই এবারের রেমাল দুর্যোগে রক্ষাই পেয়ে গিয়েছে দীঘা। 
ঠিক তিনবছর আগে ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’-এর আঘাতে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল দীঘা উপকূল। কিন্তু এবারে তেমনটা না-হওয়ায় স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছেন সকলেই। অমিত রায়, বিকাশ সাধুখাঁ, রাজু হাজরা, সুতপা কর্মকার, জ্যোৎস্না নাথরা এদিন ভোরেই ছুটে আসেন সমুদ্র সৈকতে। তাঁরা দেখেন যে তাঁদের দোকানঘরগুলি অক্ষতই রয়েছে। বিন্দুমাত্র ক্ষতি না-হওয়ায় সকলেই মা গঙ্গার নাম করে মাথায় হাত ছুঁয়েছেন। সকলেরই বক্তব্য, ঈশ্বরের অশেষ কৃপা। এবার আর আমাদের জীবনে ঝড় নেমে আসেনি!
আবার এই ছবিও দেখা গিয়েছে যে, ভোর ৫টা থেকে সাড়ে ৫টা নাগাদ শ’য়ে শ’য়ে মানুষ জড়ো হয়ে যান দীঘার সমুদ্র সৈকতে। কাকভোরেই তাঁরা সমুদ্রের জলে ডুব দিয়েছেন, এমন ছবিও ধরা পড়েছে। সকলেরই বক্তব্য, ভোরের দিকে আকাশ একটু পরিষ্কার ছিল। বৃষ্টি তেমন হচ্ছিল না। তাই সুযোগের সদ্ব্যবহার করে সমুদ্রের জলে একটু ডুব দেওয়া। তবে বেলা বাড়তেই জোয়ার আসে। জল উঁচু হয়ে ওঠে সমুদ্রে। তখন পর্যটকদের আর নামতে দেয়নি প্রশাসন। সমুদ্রে জলোচ্ছ্বাস ছিল ব্যাপক মাত্রায়। ফলে প্রশাসনের কড়াকড়ি এদিনও চোখে পড়েছে।
27d ago
কলকাতা
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

পরিবারের সদস্যদের পারস্পরিক মতান্তর, কলহে মনে হতাশা। কাজকর্ম ভালো হবে। আয় বাড়বে।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৭৭ টাকা৮৪.৫১ টাকা
পাউন্ড১০৪.১৬ টাকা১০৭.৬৩ টাকা
ইউরো৮৮.০৭ টাকা৯১.১৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
22nd     June,   2024
দিন পঞ্জিকা