বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

উত্তরবঙ্গে ফের এইমসের স্বপ্ন ফেরি, লোক নেই, শাহের শো শেষ ২৫ মিনিটেই

নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদহ ও সংবাদদাতা, করণদিঘি: স্বয়ং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শহরে। নির্বাচনী প্রচার করবেন। অথচ লোকই নেই রাস্তায়। মাত্র ২৫ মিনিটেই ফাঁকা রোড শো শেষ করে মালদহ ছাড়লেন মোদি সরকারের ‘সেকেন্ড ইন-কমান্ড’ অমিত শাহ। তবে উত্তরবঙ্গে এইমসের স্বপ্ন ফেরি ও দুর্নীতি ইস্যুতে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলকে আক্রমণ করতে তিনি ভুল করেননি। মঙ্গলবার ইংলিশবাজার শহরের রবীন্দ্র অ্যাভিনিউতে ছিল তাঁর নির্বাচনী কর্মসূচি। জেলা নেতৃত্বের পাশাপাশি উত্তর ও দক্ষিণ মালদহের বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু ও শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরীও চলে আসেন নির্ধারিত সময়েই। কিন্তু তেমন লোকজন জড়ো করতে পারেনি গেরুয়া শিবির। শহরের পোস্ট অফিস মোড় থেকে মালদহ কলেজ পর্যন্ত প্রায় এক কিমি রাস্তা কার্যত ফাঁকা ছিল। তা দেখে দৃশ্যতই রুষ্ট হন অমিত শাহ। বিজেপির একাংশের মতে, সেই কারণে তিনি দ্রুত কর্মসূচি শেষ করে চলে যান। এমনকী পূর্ব ঘোষণামতো শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পূর্ণাবয়ব মূর্তিতে মালা পর্যন্ত দেননি। ফলে দলীয় কর্মীরা খানিক হতাশ। নেতৃত্বের তরফে অবশ্য তীব্র দাবদাহকেই এর জন্য দায়ী করা হয়েছে। 
বছর তিনেক আগে একই রাস্তায় বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা রোড শো করেছিলেন। তার অর্ধেক লোক সমাগমও এদিন হয়নি। জেলা নেতৃত্বের সাফাই, অমিত শাহের দেরির কারণে জমায়েত করা যায়নি। যদিও ঘোষিত সময়ের এক ঘণ্টার মধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছিল এদিনের রোড শো। বিজেপির দক্ষিণ মালদহ সাংগঠনিক জেলা সভাপতি পার্থসারথি ঘোষ বলেন, ‘নাড্ডাজির সভা জানুয়ারি মাসে হয়েছিল। তাছাড়া তখন মালদহে দলের একটিই সাংগঠনিক জেলা ছিল। ফলে বেশি লোক জড়ো করা গিয়েছিল। এদিন গরমে লোক কিছুটা কম হয়েছিল। আমরা মাত্র পাঁচটি বিধানসভা এলাকা থেকে লোক এনেছিলাম। অমিতজির আসতে দেরি হওয়ায় মনীষীদের মূর্তিতে আগেই মাল্যদান করা হয়েছিল। সেই কারণে তিনি আর মালা দেননি।’
এদিন রোড শো শেষে অমিত শাহ বলেন, ‘এরাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী অনুপ্রবেশ ও গুন্ডাগিরিকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন। শাসকদলের মদতে দুর্নীতি হচ্ছে। একমাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিই এসব বন্ধ করতে পারেন। সেই কারণে বিজেপিকে জেতাতে হবে।’ উদ্বাস্তুদের নাগরিকত্ব দিতে সিএএ কার্যকর করার কথাও শোনা গিয়েছে তাঁর গলায়। গতবার দক্ষিণ মালদহে গেরুয়া প্রার্থী শ্রীরূপা পরাজিত হয়েছিলেন মাত্র হাজার আষ্টেক ভোটে। এবার পঞ্চাশ হাজার ব্যবধানে বিজেপিকে জেতানোর আর্জি জানান শাহ।
রায়গঞ্জ কেন্দ্রের গেরুয়া প্রার্থী কার্তিক পালের সমর্থনে এদিন করণদিঘি বিধানসভার রসাখোয়া ফুটবল মাঠেও জনসভা করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সেখানে তিনি বলেন, ‘এরাজ্যে বিজেপি ৩৫টি আসন পেলে উত্তরবঙ্গে এইমস হ঩বে। রায়গঞ্জে দলকে জেতালে আমরা তা গড়ে তুলব।’ বাংলায় বন্ধ থাকা আবাস প্রকল্পের দেশজোড়া সাফল্যের কথাও এদিন শোনা গিয়েছে শাহের মুখে। তাঁর দাবি, ‘উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ফের মোদিজিকেই প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। একমাত্র আমরাই হিংসামুক্ত বাংলা গড়তে পারব।’ 

24th     April,   2024
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ