বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 


 

বর্ষবরণের প্রস্তুতি। শনিবার উত্তর কলকাতায় তোলা নিজস্ব চিত্র।

ভূতবাবার মন্দিরে বাৎসরিক পুজোয় দূরদূরান্তের মানুষের ঢল এবছরেও, এলাকায় সাজ সাজ রব 

সংবাদদাতা, বারুইপুর: ভূতবাবা শিবের এক ভক্তের নাম। প্রতি বছর কৃষ্ণপক্ষের বিশেষ তিথিতে বারুইপুরের কৃষ্ণমোহন স্টেশন সংলগ্ন ভূতবাবার মন্দিরে বাৎসরিক পুজোর আয়োজন করা হয়। রবিবার ছিল সেই তিথি। সেদিন সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত ওই মন্দিরে চলে বিশেষ পুজো। বাবার কাছে মানত করতে বারুইপুর সহ জয়নগর, মথুরাপুর, মন্দিরবাজার, কুলতলি থেকে কয়েক হাজার মানুষ এসেছিল মন্দিরে। পুরোহিত স্বপন চট্টোপাধ্যায় বলেন, বিশেষ তিথির এই পুজোয় বাবার কাছে মানত করলে তাঁর জীবনে কোনও ক্ষতি হবে না। মানত করলে তা তাড়াতাড়ি পূরণ হবেই। এইদিনে ভক্তদের ভোগ বিতরণও করা হয়।
জনশ্রুতি আছে, আগে এই জায়গার নাম ছিল শূলিপোতা। শেওড়া গাছে পরিপূর্ণ ঘন জঙ্গলে ঢাকা ছিল এই এলাকা। একটি শেওড়া গাছের গোড়াতেই আগে পুজো দিত মানুষ। গাছে বাতাসা বেঁধে মানত করতেন মহিলারা। ৪৫-৫০ বছর আগে আদি গঙ্গার পাশে এই জঙ্গল কেটেই হয়েছিল মন্দির প্রতিষ্ঠা। রবীন মণ্ডল স্থাপন করেছিলেন সেই মন্দির। কুমোরহাটের বাসিন্দা লক্ষণ চট্টোপাধ্যায় ও স্বপন চট্টোপাধ্যায় বংশ পরম্পরায় মন্দিরে পুজো করে আসছেন। 
স্বপনবাবু বলেন, এই জঙ্গলের পাশ দিয়ে গা ছমছমে পরিবেশে রাস্তায় যেতে নানা দুর্ঘটনা ঘটত। চুরি, ছিনতাই লেগে ছিল। ভয়ে সবাই ভূতবাবাকে স্মরণ করত। তখনই মন্দির নির্মাণের চিন্তাভাবনা হয়। ভূতবাবা এত জাগ্রত, মন্দিরের সামনে আজ পর্যন্ত কোনোও দুর্ঘটনা ঘটেনি। বাবা ঘটতে দেয়নি। সাধারণত প্রতি শনি, মঙ্গলবার বাবার পুজো হয়। 

5th     March,   2024
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ