বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 


 

বর্ষবরণের প্রস্তুতি। শনিবার উত্তর কলকাতায় তোলা নিজস্ব চিত্র।

কোন্নগরে শিশু খুন কাণ্ড: ভাবলেশহীন মা, আদালতে বসেই চোখের ইশারায় কথা দুই বান্ধবীর

নিজস্ব প্রতিনিধি, চুঁচুড়া: তার বিরুদ্ধে নিজের শিশুসন্তানকে হত্যা করার অভিযোগ। বান্ধবীর সঙ্গে তার অতি ঘনিষ্ঠতাকেই খুনের কারণ হিসাবে চিহ্নিত করেছে পুলিস। মঙ্গলবার গ্রেপ্তার হয় কোন্নগরে খুন হওয়া শিশুর মা শান্তা শর্মা ও তার বান্ধবী ইফফাত পারভিন। অথচ বুধবার দু’জনেই ছিল ভাবলেশহীন। তাদের শরীরের ভাষা থেকে কণ্ঠস্বরে অনুশোচনার চিহ্নমাত্র ধরা পড়েনি। পুলিস সূত্রেও জানা গিয়েছে, সোমবার রাতেও দু’জনকে একবারের জন্য ভেঙে পড়তে দেখা যায়নি। এদিন প্রিজন ভ্যানেও বান্ধবীর পাশে বসার জন্য ইফফাতের আকুতি নজরে পড়েছে। দুই যুবতীর সাবলীল আচরণ দেখে বিস্মিত দুঁদে পুলিস অফিসাররাও।
এদিন শান্তা ও ইফফাতকে শ্রীরামপুর আদালতে তুলে ন’দিনের জন্য নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে পুলিস। এদিন দু’জনের পক্ষে কোনও আইনজীবী সওয়াল করেননি। তবে সংশ্লিষ্ট বিচারকের এজলাস ভিড়ে ছয়লাপ হয়ে গিয়েছিল। বেনজির মামলায় দুই অভিযুক্তকে দেখতে আইনজীবীদের মধ্যেও কার্যত হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। আদালতে যাওয়ার আগে এবং আদালতেও নিজেকে নির্দোষ দাবি করে শান্তা। এদিন আদালতে যাওয়ার পথে সাংবাদিকদের সে বলে, নিজের সন্তানকে কোনও মা হত্যা করতে পারে? আমি নির্দোষ। আমার সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা আছে বলেই আমার বন্ধুকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সেই সময় ইফফাত কথা বলার চেষ্টা করলে তাকে আটকে দেয় শান্তা। মঙ্গলবার পুলিসের জেরায় স্বীকারোক্তি দিয়েছিল দু’জন। বুধবারই তাদের ভোলবদল ও দাপট চমকে দিয়েছে তদন্তকারীদের।
মৃত শ্রেয়াংশুর বাবা পঙ্কজ এদিন বলেন, আমি এখনও বিশ্বাস করতে পারছি না যে, আমার স্ত্রী তার সন্তানকে খুন করতে পারে। তবে খুনি যে-ই হোক, তার ফাঁসি চাই। চন্দননগর কমিশনারেটের এক শীর্ষকর্তা বলেন, আঙুলের ছাপ, মোবাইলের কল রেকর্ড, টাওয়ার লোকেশন সহ একাধিক তথ্যের উপর ভিত্তি করে শান্তা ও ইফফাতকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। দ্রুত খুনের ঘটনার পুনর্নির্মাণ করা হবে। ‌ এদিকে, পুলিস সূত্রে দুই বান্ধবীর ঘনিষ্ঠতার প্রকৃতি ও বৈবাহিক জীবন নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গিয়েছে। ২০১২ সালে শান্তার বিয়ে হলেও ইফফাত বিয়ে করে ২০১৮ সালে। ছ’বছর পরে বিয়ে করলেও ১৫ দিনের মাথায় স্বামীকে ছেড়ে বাপের বাড়ি চলে এসেছিল ইফফাত। আর শান্তা? স্বামী, সন্তান থাকলেও দাম্পত্য সম্পর্ক স্বাভাবিক ছিল না। অন্তত এমনই তথ্য তদন্তে পেয়েছে পুলিস। যদিও প্রতিবেশীরা পঙ্কজ-শান্তাকে সুখী দম্পতি বলেই জানতেন। প্রতিবেশীদের দাবি, ছেলের প্রতি তার ভালোবাসাও প্রবল ছিল। ফলে, বুধবারও পড়শি মহল্লায় শান্তা ও ঘনিষ্ঠ বান্ধবীর গ্রেপ্তার হওয়া নিয়ে বিস্ময়।

22nd     February,   2024
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ