বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

জনপ্রতিনিধিরা কাজ করেননি, রাস্তার হাল  ফেরাতে ‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’র দ্বারস্থ বাসিন্দারা

নিজস্ব প্রতিনিধি, বারাসত: কয়েক মাস পর লোকসভা নির্বাচন। বাকি পড়ে থাকা কাজ তার আগেই শেষ করতে কোমর বেঁধে নেমেছে রাজ্য সরকার। শুধু বকেয়া কাজ শেষ করাই নয়, এতদিনেও কেন তা হয়নি, চলছে সেই খোঁজখবরও। ‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’ কর্মসূচিতে রাস্তাঘাটের বেহাল দশা নিয়ে ভূরি ভূরি অভিযোগ জমা পড়েছে। অভিযোগগুলি এক জায়গায় করে জেলাভিত্তিক ব্যবস্থা নিতে শুরু করেছে নবান্ন। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের বারবার বলেও কাজ না হওয়ায় বহু মানুষ বেহাল রাস্তাঘাট সংস্কারের দাবি জানিয়ে ‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’-তে ফোন করেছেন। এই জেলা থেকে রাস্তা সংক্রান্ত প্রায় ৭৫০ অভিযোগ জমা পড়েছে। সম্প্রতি জেলা প্রশাসনকে অভিযোগের তালিকা পাঠিয়ে রাস্তাগুলির বর্তমান অবস্থা জানতে চেয়েছে রাজ্য। সেই মতো তদন্ত শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। রাস্তাগুলির বর্তমান পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে এবং কাজ না হওয়ার কারণ খুঁজতে ব্লকভিত্তিক কমিটি গড়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের সংগৃহীত তথ্যই পাঠানো হবে নবান্নকে। তারপর কাজ শেষ হবে রাজ্য সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের তত্ত্বাবধানে। 
সূত্রের খবর, এই তালিকায় এমন রাস্তাও আছে, যেখানে গত এক বছরের মধ্যে কাজ হলেও ইতিমধ্যে ফের তা বেহাল হয়ে পড়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে অবশ্য বহু বছর ধরে কোনও কাজই হয়নি। বসিরহাটের শিক্ষক রাজেশ লস্করে কথায়, ‘কয়েকমাস আগে ঘটা করে কয়েকটি রাস্তার কাজ শুরু হয়েছিল। কিন্তু বছর ঘুরতে না ঘুরতেই সেগুলির বেহাল অবস্থা। কারণ, নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে জোড়াতালি কাজ হয়েছে। মানুষ বাধ্য হয়ে মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তরে অভিযোগ জানিয়েছেন।’ বারাসতের বাসিন্দা তথা শিক্ষক সুভাষ দাস বলেন, ‘আমার স্কুল দেগঙ্গায়। বাইকে করে যেতে এখন নাভিশ্বাস উঠে যায়। প্রশাসন নজর দিলে ভালো হয়।’ উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের সভাধিপতি নারায়ণ গোস্বামী বলেন, ‘আমরা প্রচুর রাস্তা তৈরি করেছি। কিছু সমস্যার সমাধান চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তরে ফোন গিয়েছে। সেটা আমাদের সরকারেরই ইতিবাচক দিক। আমরা সব অভিযোগ খতিয়ে দেখে রিপোর্ট দেব। দ্রুত সংস্কার হবে রাস্তাগুলি।’
প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটের আগে নবান্ন ‘গ্রিভান্স সেল’ চালু করেছিল। সেখানে গোটা রাজ্য থেকে জমা পড়া অভিযোগের ভিত্তিতে দ্রুত ব্যবস্থা নিয়েছিল সরকার। লোকসভা ভোটের আগে পরিষেবা ও পরিকাঠামো ইস্যুতে বিরোধীদের প্রচার ভোঁতা করতে সেই কর্মসূচি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল বলেই মনে করে রাজনৈতিক মহল। তারা মনে করছে, এবারও লোকসভা ভোটের আগে রাজ্যবাসীর ছোটখাট বা দৈনন্দিন সমস্যাগুলির সুরাহা করতে চাইছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। সেক্ষেত্রে ‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’-তে আসা অভিযোগের ভিত্তিতে দ্রুত সমাধানকেই আপাতত ‘পাখির চোখ’ করেছে সরকার।

4th     December,   2023
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ