বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

পুজোয় ৭ হাজার হেলমেটহীন বাইক
আরোহীর বিরুদ্ধে মামলা কলকাতায়

স্বার্ণিক দাস, কলকাতা: সপ্তমীর রাত। ঘড়িতে তখন ১১টা। সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ ধরে একের পর এক বাইক ছুটছে। না আছে চালকের মাথায় হেলমেট, না আছে পিছনের সওয়ারির।
অষ্টমীর সন্ধ্যা। ই এম বাইপাসে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে, কেউ আবার বন্ধুদের নিয়ে মেতেছে জয় রাইডে। 
রাত সাড়ে ৯টা, নবমী। বেহালার নূতন দলের পুজো সংলগ্ন ক্রসিংয়ে তীব্র যানজট। কেপার মাঠের পুজোর সামনে দাঁড়িয়ে রয়েছে সারি সারি বাইক। ঠিক তার পিছনে রয়েছে পুলিসের নো পার্কিং বোর্ড। পুলিস থাকা সত্ত্বেও বেআইনি পার্কিংয়ের জেরে সমস্যায় পড়েন জেমস লং সরণির যাত্রীরা।
দশমীর রাতে ঘড়িতে তখন ১টা। পিজির সামনে ডিএল খান রোডের 
ক্রসিংয়ে একদল হেলমেটহীন তরুণের বাইক রেস। কোন‌ও বাইকে তিনজন, কোনওটায় দু’জন।
পুলিস তৎপরতা দেখালেও পুজোর ক’দিন বাইক বাহিনীর দৌরাত্ম্য দেখল এই শহর। হেলমেট ছাড়াই ঊর্ধ্বগতি, ট্রিপল রাইডিং থেকে বেআইনি পার্কিং— সবই চাক্ষুষ করল মহানগর। শহরের ১৬টি জায়গায় বিশেষ নাকা চেকিংয়ের ব্যবস্থা করেছিল ট্রাফিক পুলিস। সেই সব এলাকায় অবশ্য বাইক বাহিনীর দাপাদাপি নিয়ন্ত্রণে ছিল। এই অভিযানে ৭ হাজার ৬৫৩ জনকে হেলমেটহীন অবস্থায় পাকড়াও করা হয়েছে। লালবাজার সূত্রে খবর, চতুর্থী থেকে দশমী পর্যন্ত ট্রাফিক বিধি লঙ্ঘন করার অভিযোগে মোট ৩৪ হাজার  ৬৮৯টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এক কথায়, একে বেনজির বলেই দাবি করেছে লালবাজার। 
ট্রাফিক বিভাগ সূত্রে খবর, এবার পুজোয় বাইক বাহিনীর দৌরাত্ম্য রুখতে ১৬টি বিশেষ নাকা চেকিং টিম তৈরি করা হয়। যাদের কাজ ছিল শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে সারপ্রাইজড নাকা চেকিং। মূলত বেপরোয়া বাইকের দাপাদাপি রুখতেই এই প্রথম এমন উদ্যোগ নিয়েছিল কলকাতা পুলিস। লালবাজারের এক পদস্থ কর্তা জানান, চতুর্থী থেকে দশমী পর্যন্ত নাকা চেকিং চলেছে। আইন লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধারায় মামলা রুজু করেছে কলকাতা পুলিস। নো-পার্কিংয়ে গাড়ি রাখার অভিযোগে ১১ হাজার ৪৯৮টি মামলা রুজু হয়েছে। এছাড়াও বেপরোয়াভাবে বাইক চালানোর অভিযোগে এই সাতদিনে আরও ১ হাজার ৮৮৬ জনের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করেছে কলকাতা পুলিস। মদ্যপ অবস্থায় বাইক চালানোর অভিযোগে মোট ৪৮৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে ট্রাফিক বিভাগ। অতিরিক্ত গতিতে গাড়ি চালানোর জন্য ৫ হাজার ৭৭৫ জনকে জরিমানা করেছে পুলিস। 
পরিসংখ্যান বলছে, পুজো যত এগিয়েছে, গাড়ি-বাইকের বেপরোয়াভাব ততই বেড়েছে। ষষ্ঠীতে বিভিন্ন ট্রাফিক আইন ভাঙার অভিযোগে ৬ হাজার ২০৩টি কেস করেছে পুলিস। অষ্টমী এবং নবমীতে এই সংখ্যা ৭ হাজার ছাড়িয়ে যায়। অষ্টমীতে হেলমেট ছাড়া, মদ্যপ অবস্থায় বাইক চালানো, ওভার স্পিড ছাড়াও অন্যান্য বিভিন্ন অভিযোগে ৭,৬৮৭টি মামলা রুজু হয়েছে। পরের দিন সংখ্যাটা বেড়ে হয় ১,১৭৬। 

7th     October,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ