বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

যান্ত্রিক ত্রুটিতেই অদৃশ্য পিএফের
সুদ? কেন্দ্রের দাবিতে বিভ্রান্তি

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পিএফ অ্যাকাউন্টে কবে মিলবে সুদ? চলতি অর্থবর্ষের অর্ধেক সময় ইতিমধ্যেই কেটে গিয়েছে। কিন্তু কোনও গ্রাহকই তাঁর পিএফ অ্যাকাউন্টে সুদের অঙ্ক দেখতে পাচ্ছেন না। কিন্তু কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক দাবি করল, তারা সুদ দিয়ে দিয়েছে। যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে তা গ্রাহকরা দেখতে পাচ্ছেন না! 
গত মার্চে ২০২১-২২ অর্থবর্ষের জন্য ৮.১ শতাংশ হারে সুদ ঘোষণা করে এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড অর্গানাইজেশন বা ইপিএফও। অনেকেই ভেবেছিলেন, উৎসবের মরশুমের গোড়াতেই হয়তো খুশির খবর আসবে। কিন্তু অ্যাকাউন্টে চোখে রেখে তেমন কিছুই টের পাননি প্রায় পাঁচ কোটি গ্রাহক। প্রত্যেক অর্থবর্ষের গোড়াতেই তার আগের অর্থবর্ষের প্রাপ্য পিএফের সুদ মিটিয়ে দেওয়ার রেওয়াজ ছিল একসময়। সেই নিয়ম ভাঙে মোদি সরকার। এপ্রিলের যে সুদ গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে যোগ হওয়ার কথা, তা দিতে নানা টালবাহানা শুরু করে কেন্দ্র। ২০২০-২১ অর্থবর্ষের সুদ অ্যাকাউন্টে জমা করতে ন’মাস সময় নেয় কেন্দ্র। তাদের যুক্তি ছিল, অর্থমন্ত্রক ছাড়পত্র দেয়নি। তাই সুদ মেটাতে দেরি হয়েছে। প্রসঙ্গত, ইপিএফও’র অছি পরিষদ যে সুদ ঘোষণা করে, তার অনুমোদন দেয় অর্থমন্ত্রক। এবার সেই অনুমোদন গত জুনেই দিয়ে দিয়েছে অর্থমন্ত্রক। কিন্তু অ্যাকাউন্টে সেই সুদ এসে পৌঁছয়নি। 
কেন সুদ দিতে এত টালবাহানা করছে কেন্দ্র? সম্প্রতি সেই প্রশ্ন তোলেন তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা ইনফোসিসের প্রাক্তন ডিরেক্টর টিভি মোহনদাস পাই। তিনি টুইট করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। প্রশ্ন তোলেন, কোথায় পিফের সুদ? কেন অদক্ষ প্রশাসনের জন্য ফল ভুগতে হবে সাধারণ মানুষকে? প্রশাসনিক সংস্কার দরকার। তারই জবাবে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক জানিয়েছে, সুদ বাবদ পিএফ গ্রাহকদের কোনও আর্থিক ক্ষতি হবে না। কারণ, গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে ইতিমধ্যেই সেই টাকা ‘ক্রেডিট’ করা হয়েছে। যান্ত্রিক কারণে তা গ্রাহক দেখতে পাচ্ছেন না। সফটওয়্যারের কিছু পরিবর্তন করার কাজ চলায় এই সমস্যা হচ্ছে। যেসব পিএফ গ্রাহক মেয়াদ শেষে বা অন্যান্য কারণে অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলে নিচ্ছেন, তাঁরা সুদসহ সেই টাকা পাচ্ছেন।  
দপ্তরের প্রযুক্তিগত কারণে সুদের অঙ্ক অ্যাকাউন্টে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না, এমন যুক্তিকে আমল দিতে চাইছেন না গ্রাহকদের একাংশ। তাঁরা এর বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েই প্রশ্ন তুলছেন। তাঁদের বক্তব্য, এই যুক্তি কেন এতদিন পর সামনে আনল অর্থমন্ত্রক? সমস্যা যদি থেকেই যায়, তাহলে মোহনদাস পাইয়ের প্রশ্নের জবাবে কেন তা জানাল তারা? যেখানে কোটি কোটি মানুষের স্বার্থ যুক্ত, সেখানে কেন নিজে থেকেই কেন্দ্রীয় সরকার সুদের বিষয়ে ঘোষণা করল না, সেই প্রশ্ন উঠছে। 

7th     October,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ