বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

তোতাপাখি...। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে ব্যবহার করা হচ্ছে ইডি ও সিবিআইয়ের মতো কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে। এই অভিযোগ তুলে রাজ্যজুড়ে প্রতিবাদ মিছিল তৃণমূল কংগ্রেসের। শনিবার উলুবেড়িয়ায় তোলা নিজস্ব চিত্র।

গত ৬ মাসে উদ্ধার রেকর্ড পরিমাণ
অস্ত্র, তবুও কমছে না দুষ্কৃতীরাজ
বারাকপুর কমিশনারেট

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বারাকপুর কমিশনারেট এলাকা থেকে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধারে নিয়মিত অভিযান চালায় পুলিস। কয়েকমাস আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশের পর এই অভিযানে আরও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। তার ফলে গত তিন বছরের তুলনায় চলতি বছর প্রথম ছ’মাসে সর্বাধিক অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র বাজেয়াপ্ত করা সম্ভব হয়েছে। কিন্তু তারপরও এই অঞ্চলে গুলিচালনা সহ নানা অশান্তির ঘটনা কেন কমছে না, এই প্রশ্ন চিন্তা বাড়াচ্ছে পুলিসকর্তাদের। তাই বেআইনি অস্ত্র উদ্ধারে বিশেষ তল্লাশি অভিযান আরও বাড়ানো হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুলিস। গত শনিবার এবং রবিবার মাত্র ১৬ ঘণ্টার মধ্যে বারাকপুর কমিশনারেট এলাকার ভাটপাড়া ও জগদ্দল থানা এলাকায় দু’জন খুন হন। গুলি করে তাঁদের খুন করা হয়। তারপর থেকে এলাকার সাধারণ মানুষ দুষ্কৃতীদের দাপাদাপিতে রীতিমতো আতঙ্কিত। 
পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, চলতি বছর ৩০ জুন পর্যন্ত অর্থাৎ প্রথম ছ’মাসে বারাকপুর কমিশনারেট এলাকা থেকে ২০৩টি অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। ২০১৯-এ সংখ্যাটা ছিল ১০৮। ২০২০ এবং ২০২১ সালে এই সংখ্যাটা ছিল যথাক্রমে ৩৬ ও ১০১। এই পরিসংখ্যান তুলে পুলিস দাবি করছে, আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করতে লাগাতার অভিযান চালানোর কারণেই এই সাফল্য এসেছে। কিন্তু তার সুফল কেন বাস্তবে প্রতিফলিত হচ্ছে না, তার জবাব নেই প্রশাসনের কাছে। এর মধ্যে আবার ভাটপাড়া এবং জগদ্দল থানা এলাকা থেকেই সর্বাধিক আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার হয়েছে। এ বছর ভাটপাড়া থানা এলাকা থেকে প্রথম ছ’মাসে ২৪টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার হয়েছে। ২৫টি আগ্নেয়াস্ত্র বাজেয়াপ্ত হয়েছে জগদ্দল থানা এলাকা থেকে। এছাড়া সব ক্ষেত্রেই অনেক পরিমাণ গোলাগুলি উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিসের পদস্থ কর্তারা মনে করছেন, যেভাবেই হোক, বেআইনি অস্ত্রের এই রমরমা ও সরবরাহ বন্ধ করতে হবে। তাহলেই গোলাগুলির ঘটনা কমবে। 
এ ব্যাপারে বারাকপুরের পুলিস কমিশনার মনোজ ভার্মা বলেন, মূলত ভিন রাজ্য থেকে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র ঢুকছে এই অঞ্চলে। এগুলি বাজেয়াপ্ত করতে আমরা নিয়মিত নজরদারি চালাচ্ছি। তার সুফলও পাওয়া গিয়েছে। এ বছর প্রথম ছ’মাসে যত সংখ্যক আগ্নেয়াস্ত্র বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে, তা আগের বছরগুলিতে হয়নি। তারপরও বিক্ষিপ্ত ঘটনা ঘটছে বিভিন্ন এলাকায়। আমরা তাই বিশেষ তল্লাশি অভিযান আরও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। খোদ পুলিস কমিশনার এই আশ্বাস দিলেও একের পর এক ঘটনায় বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষের উদ্বেগ ও আতঙ্ক বাড়ছে।

7th     July,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ