রাজ্য

ষষ্ঠ দফাতেও ভোটদানে এগিয়ে রাজ্যের মহিলারা

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বাংলার ভোটযন্ত্রে ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ আদৌ কোনও প্রভাব ফেলতে পারবে কি না, সেই প্রশ্নের উত্তর পেতে ৪ জুন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তবে ভোটদানের হারে পুরুষদের রীতিমতো টেক্কা দিচ্ছেন বাংলার লক্ষ্মীরা। চতুর্থ ও পঞ্চম দফার পর ষষ্ঠ দফাতেও ভোটদানের হারে পুরুষদের তুলনায় এগিয়ে মহিলারা। এই দফায় মোট আটটি আসনে পুরুষ ভোটারদের তুলনায় ২.২১ শতাংশ বেশি মহিলা ভোট পড়েছে বাংলায়। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, এই এক প্রবণতা দেখা গিয়েছে গোটা দেশেই। এই দফায় পুরুষদের তুলনায় ৪ শতাংশ বেশি ভোট দিয়েছেন মহিলারা। সর্বসাকুল্যে পুরুষ ভোটের হার যেখানে ৬১.৯৫ শতাংশ ছিল, সেখানে মহিলা ভোট পড়েছে ৬৪.৯৫ শতাংশ।
নির্বাচন কমিশন প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, ষষ্ঠ দফায় পশ্চিমবঙ্গে ভোটদানের হার ৮২.৭১ শতাংশ। তার মধ্যে পুরুষ ভোটের হার ৮১.৬২ শতাংশ। অন্যদিকে, ৮৩.৮৩ শতাংশ মহিলা ভোট পড়েছে এই দফায়। আটটি কেন্দ্রের মধ্যে অন্তত পাঁচটি কেন্দ্র তমলুক, মেদিনীপুর, কাঁথি, ঘাটাল ও পুরুলিয়া কেন্দ্রে পুরুষদের পিছনে ফেলেছেন মহিলারা। বাকি তিনটি কেন্দ্র বাঁকুড়া, বিষ্ণুপুর ও ঝাড়গ্রাম আসনে পুরুষ ও মহিলা ভোট কাছাকাছি। 
কমিশনের পরিসংখ্যান বলছে, আটটি কেন্দ্রের মধ্যে ঘাটাল আসনে মহিলা ও পুরুষ ভোটের ব্যবধান সবচেয়ে বেশি। এই কেন্দ্রে পুরুষ ভোটের হার যেখানে ৭৯.১৯ শতাংশ, সেখানে মহিলা ভোট পড়েছে ৮৫.২৪ শতাংশ। এরপরই তমলুক কেন্দ্র। এখানে পুরুষ ও মহিলা ভোটের হারের পার্থক্য ৫ শতাংশেরও বেশি। এই কেন্দ্রে পুরুষ ভোট পড়েছে ৮২.১১ শতাংশ, মহিলা ভোটের হার ৮৭.৬০ শতাংশ। কাঁথি কেন্দ্রেও পুরুষদের ছাপিয়ে ৫ শতাংশেরও বেশি ভোট দিয়েছেন মহিলা। এই কেন্দ্রে পুরুষ ভোটের হার ৮২.২৬ শতাংশ। আর মহিলা ভোট পড়েছে ৮৭.৪১ শতাংশ। এছাড়াও মেদিনীপুরে প্রায় দেড় শতাংশ এবং পুরুলিয়া আসনে পুরুষদের তুলনায় ০.৭৯ বেশি ভোট পড়েছে মহিলাদের। এছাড়াও এই দফায় বাঁকুড়া, বিষ্ণুপুর ও ঝাড়গ্রাম কেন্দ্রে ভোটদানের হারে পুরুষরা মহিলাদের পিছনে ফেললেও কোনও আসনেই ব্যবধান দেড় শতাংশের বেশি নয়। বাঁকুড়া ও ঝাড়গ্রামে মহিলাদের থেকে ০.১৬ শতাংশ বেশি ভোট দিয়েছেন পুরুষরা। একমাত্র বিষ্ণুপুর আসনে মহিলাদের থেকে ১.২২ শতাংশ ভোটে পিছনে ফেলেছেন পুরুষরা। 
ষষ্ঠ দফায় রাজ্যে যে ৮টি আসনে ভোট হয়েছে, তার মধ্যে খাতায় কলমে চারটি আসন বাঁকুড়া, বিষ্ণুপুর, মেদিনীপুর ও পুরুলিয়া রয়েছে বিজেপির ঝুলিতে। এই চারটি আসনের মধ্যে অন্তত তিনটি আসনে মহিলা ভোটের হার বেশি। আর তাই বিজেপি সিঁদুরে মেঘ দেখছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। গেরুয়া শিবিরের আশঙ্কা, লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের কৃতজ্ঞতা যদি সত্যিই বাংলার মহিলারা ভোটযন্ত্রে জানান, তা ধস নামাবে আসন সংখ্যায়। শুধু তাই-ই নয়, তমলুক ও কাঁথি নিয়েও একেবারে নিশ্চিত হতে পারছে না বিজেপি। ২০১৯ সালে এই দুই আসনের প্রার্থীরা তৃণমূলের টিকিটে জিতলেও পরে তাঁদের রাজনৈতিক অবস্থান পরিবর্তন হয়। সেই হিসেবে পূর্ব মেদিনীপুরের এই দুই কেন্দ্র বিজেপির শক্ত ঘাঁটি হওয়ার কথা। কিন্তু এখানেও মহিলা ভোটের রমরমায় চিন্তায় বিজেপি।
লক্ষ্মীর ভাণ্ডার হাতে মমতার পদযাত্রায় মহিলারা। ছবি: সায়ন চক্রবর্তী
21d ago
কলকাতা
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

উচ্চশিক্ষায় নামী স্বদেশি/ বিদেশি প্রতিষ্ঠানে সুযোগ পেতে পারেন। স্ত্রীর স্বাস্থ্য বিষয়ে চিন্তা। কর্মে অগ্রগতি।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার ৮২.৫৬ টাকা৮৪.৩০ টাকা
পাউন্ড১০৪.৩৩ টাকা১০৭.৮১ টাকা
ইউরো৮৮.০৪ টাকা৯১.১৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা