বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
উত্তরবঙ্গ
 

শিলিগুড়ি পাসপোর্ট অফিসে ফের সক্রিয় দালালচক্র

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়ি: ধরপাকড়ের ভয়ে মাস দেড়েক গা ঢাকা দিয়ে থাকার পর পাসপোর্ট সেবাকেন্দ্রে ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছে দালালচক্র। দালাল দৌরাত্ম্যে রমরমা মাটিগাড়া ব্লকের হিমাচল বিহারের পিএসকে’তে। পাসপোর্ট সেবাকেন্দ্রে আসা লোকজনের অভিযোগ, এখানে আসার সঙ্গে সঙ্গে দালালরা কার্যত ঘিরে ধরে। 
পাসপোর্ট তৈরি করতে সরকার নির্ধারিত ফি ১৫০০ টাকা। কিন্তু, দালালদের খপ্পরে পড়ে লোকজনকে অতিরিক্ত ৫০০ থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত দিতে হচ্ছে। প্রয়োজনীয় নথিপত্র ঠিক থাকলেও নানা অজুহাতে কাগজপত্রে গরমিল দেখিয়ে হয়রানি করার অভিযোগ উঠছে দালালদের বিরুদ্ধে। এরজন্য সরকার নির্ধারিত ফি’র থেকে বাড়তি টাকা খরচ করতে হয় পাসপোর্ট বানাতে আসা একাংশকে। 
হিমাচল বিহারে দ্বিতলে অবস্থিত পাসপোর্ট কেন্দ্রটি। নীচে কয়েকটি দোকান ভাড়া রয়েছে। সেখানে খাবারের দোকানের পাশাপাশি ফটোকপির কিছু দোকান আছে। সেসব দোকানেই ঘোরাফেরা করে দালালরা। অফিসে ঢোকার মুখে গেটে দাঁড়িয়ে শিকার ধরে তারা। আপাতদৃষ্টিতে নীচের তলের দোকানগুলি দেখলে মনে হতে পারে, সেখানেই পাসপোর্ট পাওয়ার সরকারি পরিষেবা কেন্দ্র। এই ধারণাতেই দালালদের খপ্পরে পড়ছেন অনেকে। 
শিলিগুড়ি পিএসকে’র আধিকারিক বসন্ত কুমার বলেন, আমরা লোকজনকে সচেতন করি। তাঁদের সরকারি গাইডলাইন দেওয়া হয়। এখন সব অনলাইনে হচ্ছে। মানুষ নিজে থেকে সমস্ত কাজ করে নিতে পারে। যারা দোকান ভাড়া নিয়ে আছে, তাদের বিষয়ে কোনও মন্তব্য করব না। লোকজন কেন ওসব রাস্তায় হাঁটছে তা জানি না। 
সোমবার কার্শিয়াং থেকে নতুন পাসপোর্ট করতে আসা দীপক সুব্বা, অঞ্জলি প্রসাদ হিমাচল বিহারের পিএসকে’তে আসেন। তাঁরা বলেন, হিমাচল বিহারে টোটো ধরে পাসপোর্ট অফিসের গেটে নামতেই কয়েকটি ছেলে ডাকাডাকি করে। তাদের কাছে জানতে চাই, পিএসকে’তে কোন সিঁড়ি দিয়ে যেতে হবে। এ কথা জানাতেই তাঁরা সিঁড়ি দেখিয়ে দেওয়ার নাম করে একটি বন্ধ শাটারের কাছে নিয়ে যায়। পাশেই একটি ফটোকপির দোকান ছিল। সেখানে চেয়ারে বসিয়ে নানাভাবে সহজে পাসপোর্ট করে দেওয়ার টোপ দিতে থাকে। তারা জানায়, সব নথিপত্র ঠিক থাকলে ২৫০০ টাকা লাগবে অনলাইনে আবেদন করতে। তবে ইউটিউবে দেখেছিলাম, ১৫০০ টাতেই নর্মাল পাসপোর্ট হাতে পাওয়া যায়। তাই খটকা লাগায় ওদের সঙ্গে কথা না বাড়িয়ে একতলায় সিঁড়ি দিয়ে উঠে অফিসের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা এক নিরাপত্তারক্ষীর কাছে জানতে চাইলে তিনি ১৫০০ টাকা অনলাইনেই ফিজ জমা দেওয়ার কথা জানান। আর কোনও টাকা লাগে না বলেন। এরপর নিজেরাই মোবাইলে ওই নিরাপত্তারক্ষীর সহযোগিতা নিয়ে ফর্ম ফিলআপ করে আগামী সপ্তাহে আসার ব্যাপারে অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিই। 
পিএসকে’র আশেপাশে বেশ কয়েকটি বাড়ি আছে। ওসব বাড়ির কয়েকজন জানান, মালদহ সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে অনেক যুবক আসেন পাসপোর্ট বানাতে। তাঁরা মনে করেন সরাসরি পাসপোর্ট অফিসে এসেই পাসপোর্ট বানাতে হয়। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগাচ্ছে দালালচক্র। এদের অধিকাংশেরই কাছে বৈধ কাগজপত্র থাকে না। দালালদের মাধ্যমে এরা মোটা টাকার বিনিময়ে পাসপোর্টের জন্য আবেদন করে। 
হিমাচল বিহার সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক মিলন বসু বলেন, আমরা সন্দেহেরবশে মাঝেমধ্যেই বাইরের জেলা থেকে আসা যুবকদের কাছে কাগজপত্র দেখতে চাই। তখনই এরা পালিয়ে যায়। এই অফিসকে কেন্দ্র করে দালাল চক্র সক্রিয়। যখন গ্যাংটকে পাসপোর্ট নিয়ে সিবিআইয়ের ধরপাকড় চলছিল, তখন এরা গাঢাকা দিয়েছিল। এখন ফের 
সক্রিয় হয়ে উঠেছে। 
নিজস্ব চিত্র

6th     December,   2023
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ