বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

মস্তিষ্কের দুরূহ জায়গায় অ্যানিউরিজম, এই প্রথম স্নায়ুরোগে মাইক্রোসা‌র্জারি নীলরতনে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বিপদ বলে বিপদ! মাথায় অসহ্য যন্ত্রণা। কিন্তু তাই বলে চাকদহের পরিতোষ হালদার আঁচ করতে পারেননি, সেই যন্ত্রণার কারণ কতটা মারাত্মক হতে পারে। তা বোঝা গেল, এন আর এস মেডিক্যাল কলেজের নিউরোসার্জারি বিভাগে ভর্তির পর। আরও স্পষ্ট করে বললে, সিটি অ্যাঞ্জিওগ্রাম করার পর। দেখা গেল, মানব মস্তিষ্কের এক দুরূহ জায়গায়, মাথার পিছন দিকে অবস্থিত বেসিলার ধমনীর ‘টপ’ বা গোড়ায় হয়েছে ‘বিপদটি’। ধমনী ছিঁড়ে যায়নি। যা হয়েছে তা আরও মারাত্মক। ধমনী ওখানে ফুলে গিয়ে লম্বায় ৮.৫ এবং চওড়ায় ৫ মিমি বেলুনের আকার ধারণ করেছে। স্নায়ুরোগের ভাষায় যাকে বলা হয় অ্যানিউরিজম। মস্তিষ্কের এই অংশটি এতটাই স্পর্শকাতর যে, ‘টাইগার টেরিটরি’ও বলা হয়। এই অংশেই হয়েছে ‘বেসিলার টপ অ্যানিউরিজম’। এই ঘটনায় ওপেন সার্জারির ঝুঁকি এড়াতে এই প্রথম মাইক্রোসার্জারির সিদ্ধান্ত নেয় এন আর এস। বাকিটা ইতিহাস। ১৩ এপ্রিল এখানকার ইন্টারভেনশনাল রেডিওলজিস্ট ডাঃ জ্যোতিষ রায় এবং নিউরোসার্জেন ডাঃ পার্থপ্রতিম দত্ত অ্যাঞ্জিওপ্ল্যাস্টির মতো কুঁচকি দিয়ে ক্যাথিটার ঢুকিয়ে মস্তিষ্কের ওই অ্যানিউরিজমে কয়েলিং করেন। ডাক্তারদের দাবি, মাইক্রোসার্জারির মাধ্যমে অ্যানিউরিজমে কয়েলিং করে রোগীর প্রাণ বাঁচানোর ঘটনা এই প্রথম হল এন আর এস-এ। তিনটে কয়েল লাগানো হয়। সময় লাগে ৪৫ মিনিট। ডাঃ রায় বলেন, এই শুরু। এবার আমরা ইন্টারভেনশনাল রেডিওলজি ব্যবহার করে পরপর মাইক্রোসা‌র্জারি করতে পারব। 
হাসপাতাল সূত্রের খবর, পরিতোষবাবু এখন ভালো আছেন। আগামী দু’-তিনদিনের মধ্যে ছুটি দেওয়া হবে তাঁকে। বাইরে এই অস্ত্রোপচার করতে কয়েক লক্ষ টাকা খরচ পড়ত। এখানে হয়েছে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। প্রসঙ্গত, গত ফেব্রুয়ারি মাসে মাথার যন্ত্রণা নিয়ে বারাকপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন এই রোগী।

21st     April,   2024
 
 
অক্ষয় তৃতীয়া ১৪৩১
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ