বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

রেড রোডে তৃণমূলের ধর্না কর্মসূচির সমাপ্তি, বাংলার প্রাপ্য টাকা মেটান, মোদিকে চিঠি রাহুলের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কেন্দ্রীয় বঞ্চনার যে অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে আসছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সেই সুরে এবার সুর মেলালেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। সদ্য বাংলা ঘুরে যাওয়ার পর তিনি উপলব্ধি করেছেন ১০০ দিনের কাজ প্রকল্পে প্রাপ্য না দিয়ে বঞ্চনা করেছে কেন্দ্রের মোদি সরকার। সেই সূত্রে প্রাপ্য টাকা ছেড়ে দেওয়ার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিলেন রাহুল গান্ধী। 
১০০ দিনের কাজ, আবাস যোজনা, গ্রাম সড়ক যোজনা সহ একাধিক প্রকল্পে কেন্দ্রের কাছে বাংলার প্রাপ্য ১ লক্ষ ২০ হাজার কোটি টাকা। ১০০ দিনের কাজ করেও শ্রমিকরা নায্য বেতন পাননি বলে অভিযোগ। প্রাপ্য আদায়ের দাবিতে দিল্লি দরবার করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যে তিনবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন মমতা। তাছাড়া প্রাপ্য আদায়ের দাবিতে কলকাতা ও দিল্লিতে আন্দোলন করেছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু কেন্দ্রের মোদি সরকার যখন বাংলার দাবিতে কর্ণপাত করেনি, তখন ২ ফেব্রুয়ারি থেকে কলকাতার রেড রোডের বুকে ধর্নায় বসেন তৃণমূল সুপ্রিমো। ৩ তারিখ তিনি ঘোষণা করেন, ২১ লক্ষ শ্রমিকের বেতন ২১ ফেব্রুয়ারি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেবে রাজ্য সরকার। 
তৃণমূলের আনা কেন্দ্রীয় বঞ্চনার অভিযোগ যে বাস্তবসম্মত, সরেজমিনে সেই তথ্য পেলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। সম্প্রতি তিনি ‘ভারত জোড়ো-ন্যায় যাত্রা’ নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সফর করেন। রাজ্যের একাধিক জেলা পরিদর্শন করেছেন রাহুল। তার প্রেক্ষিতেই প্রধানমন্ত্রীকে ১০ ফেব্রুয়ারি চিঠি দিয়েছেন কংগ্রেস সাংসদ। চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেছেন, মনরেগা প্রকল্পে বাংলার শ্রমিকদের ন্যায়ের জন্য এই চিঠি। পশ্চিমবঙ্গ খেত মজদুর সমিতির অন্তর্গত ১০০ দিনের কাজের শ্রমিকরা আমার সঙ্গে দেখা করেছিলেন। তাঁদের সমস্যার কথা আমাকে জানান, তাঁরা প্রাপ্য বেতন পাননি। ২০২২ সাল থেকে তাঁদের প্রাপ্য বেতন বন্ধ রয়েছে।
এই অবস্থায় কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে রাহুলের আর্জি, শ্রমিকদের প্রাপ্য টাকা মিটিয়ে দেওয়া হোক। 
তবে রাহুল গান্ধী এই চিঠি দিলেও তৃণমূল উচ্ছ্বাস প্রকাশ করছে না। তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেছেন, আমরা যখন কেন্দ্রীয় বঞ্চনা নিয়ে লড়াই করছি, তখন অধীর চৌধুরী কটাক্ষ করেছিলেন। সেইসময় রাহুল গান্ধী চুপ ছিলেন কেন? আজ হঠাৎ করে সাধু সাজার কারণ কী? যদিও প্রদেশ কংগ্রেস নেতা অশোক ভট্টাচার্যের বক্তব্য, আমরা তৃণমূল ও বিজেপির মতো সস্তার রাজনীতি করি না। ১০০ দিনের কাজের সঙ্গে যুক্ত শ্রমিকদের বঞ্চনা নিয়ে রাহুল গান্ধী চিঠি দিয়েছেন। আমরা বাংলার মানুষের সঙ্গে আছি।
এদিকে রেড রোডে তৃণমূলের ধর্না কর্মসূচি ১১ দিনের মাথায় সোমবার শেষ হয়েছে। এদিন পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান জেলার নেতৃত্ব ধর্না মঞ্চে কেন্দ্রীয় বঞ্চনার বিরুদ্ধে সরব হন। তৃণমূলের রাজ্য সহ সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, ধর্না কর্মসূচি আপাতত শেষ হলেও বাংলার মানুষের অধিকার রক্ষার লড়াই তৃণমূল চালিয়ে যাবে। -নিজস্ব চিত্র

13th     February,   2024
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ