বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

সন্দেশখালি যাত্রার নাটক বঙ্গ বিজেপির, অবরুদ্ধ বাইপাস

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সোমবার বিজেপি বিধায়কদের সন্দেশখালি যাওয়ার অভিযান কার্যত ‘নাটকে’ পরিণত হল। বিধানসভা ভবন থেকে সন্দেশখালি যাওয়ার জন্য বাবুঘাট-দমদম ক্যান্টনমেন্ট রুটের ৩০ডি নম্বরের বেসরকারি বাস ভাড়া করে উঠেছিলেন বিধায়করা। কিন্তু ওই বাসের চালকরা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সন্দেশখালি নয়, সায়েন্স সিটি পর্যন্ত যাওয়ার কথা বলে ৫ হাজার টাকা ভাড়ায় বাস নেওয়া হয়েছিল। ই এম বাইপাসের সায়েন্স সিটির কাছে, আম্বেদকর সেতুর নীচে বিজেপি বিধায়কদের বাস আটকে দেয় পুলিস। প্রশ্ন উঠছে, সায়েন্স সিটির কাছে বাস আটকে দেওয়া হবে, সেটা কি বিজেপি পরিষদীয় দলের নেতারা আগাম জানতেন? তাই সেভাবেই বাস ভাড়া রফা হয়েছিল? বাস চালকদের বক্তব্য নিয়ে সরাসরি কোনও মন্তব্য করতে চাননি বিজেপি বিধায়ক শঙ্কর ঘোষ। তিনি বলেন, ‘সন্দেশখালির ঘটনাটিকে ধামাচাপা দিতেই বাস চালকদের কথাকে তুলে ধরা হচ্ছে।’ বৃহস্পতিবার ফের (১৫ ফেব্রুয়ারি) সন্দেশখালি যাওয়ার কথা ঘোষণা করেছে বিজেপি। 
সায়েন্স সিটির কাছে বিজেপি বিধায়করা দুপুর থেকে প্রায় ঘণ্টা চারেক রাস্তার উপর অবস্থান-বিক্ষোভ করেন। ফলে অবরুদ্ধ হয়ে যায় ই এম বাইপাস। দু’টি লেনে সন্ধ্যা পর্যন্ত যানজট হওয়ায় দুর্ভোগ পড়ে সাধারণ মানুষ। যানজটের চাপ গিয়ে পড়ে মা ফ্লাইওভারেও।  
সন্দেশখালি ইস্যু ও বিধানসভায় স্বরাষ্ট্র দপ্তরের প্রশ্ন নিয়ে আলোচনা না হওয়ার প্রতিবাদেই এদিন তুমুল বিক্ষোভ শুরু করেন বিজেপি বিধায়করা। বিধানসভার নিয়ম-নীতি ভঙ্গ করে বিক্ষোভ দেখানোর জন্য বিরোধী দলনেতা সহ ছ’জন বিধায়ককে চলতি অধিবেশনের বাকি দিনগুলির জন্য সাসপেন্ড করেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, বিজেপি বিধায়কদের আচরণের জন্যই এই সাসপেনশন। সভায় এই সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগেই বিজেপি বিধায়করা ওয়াক আউট করে বেরিয়ে যান। এর প্রায় ৪৫ মিনিট পর বিরোধী দলনেতার নেতৃত্বে বিধায়করা বিধানসভা ভবন থেকে বের হন। শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে বিরোধী দলনেতাকে সন্দেশখালি না যাওয়ার অনুরোধ করেন পুলিস কর্তারা। পুলিসের আধিকারিকদের সঙ্গে বচসা চলার মাঝে ৩০ ডি রুটের একটি বেসরকারি বাস বাবুঘাট থেকে বিধানসভার গেটের সামনে চলে আসে। বিরোধী দলনেতা সহ ৫০ জনের বেশি বিজেপি বিধায়কের সঙ্গে তাঁদের নিরাপত্তারক্ষীদেরও অনেকে বাসে উঠে পড়েন। ফলে সেখানে ঠাসাঠাসি ভিড় হয়ে যায়। গেটে ঝুলন্ত অবস্থায় থাকা নিরাপত্তারক্ষীদের  নিয়ে বাসটি ছেড়ে দেয়। এরপর ৩০ ডি রুটের আরও দু’টি বাস আসে। ওই বাসগুলিতে ওঠার জন্য খুব বেশি লোকজন ছিলেন না। প্রশ্নোত্তর পর্ব শুরুর আগে কার্যত প্রথা ভেঙে এদিন বিরোধী দলনেতাকে বক্তব্য রাখার সুযোগ দেন স্পিকার। বক্তব্য শেষ হওয়ার পর বিজেপি বিধায়করা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। কিছু সময়ের জন্য বিধানসভার ওয়েলের মেঝেতে বসে পড়েছিলেন বিরোধী দলনেতা সহ বিজেপি বিধায়করা। যদিও এই সবকিছু ছাপিয়ে যায় ‘সায়েন্স সিটি পর্যন্ত বাস ভাড়া করে সন্দেশখালি যাত্রা’র অভিযোগ। তৃণমূলের কটাক্ষ, বৃহস্পতিবার বাসভাড়াটা যেন সন্দেশখালি পর্যন্তই করে। না হলে চালকরাই মাঝপথে এবার যেতে অস্বীকার করবেন।

13th     February,   2024
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ