বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

পঞ্চায়েতে সর্বত্র রাজ্যের উপর নজরদারি কেন্দ্রের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কেন্দ্রের কাছে রাজ্যের প্রাপ্য ১ লক্ষ কোটিরও বেশি টাকা। আটকে রয়েছে ১০০ দিনের কাজ এবং আবাস যোজনার বরাদ্দ। প্রাপ্য মিটিয়ে দেওয়ার জন্য লাগাতার আবেদন ও আন্দোলন চললেও কর্ণপাত করছে না মোদি সরকার। উল্টে নানা কৌশলে রাজ্যের কাজকর্মের উপর নজরদারি চালানোর ফিকির খুঁজছে তারা। এবার তাদের নিশানায় গ্রামোন্নয়নের সঙ্গে জড়িত রাজ্যের ১০টি দপ্তর। কেন্দ্রীয় বরাদ্দ না মিললেও রাজ্যের গ্রামগুলিতে কী কী উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে, তার বিস্তারিত তথ্য কেন্দ্রকে জানাতে হবে বলে নির্দেশ এসেছে। ‘স্থিতিশীল উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা’ বা ‘সাসটেনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল’ (এসডিজি) সামনে রেখে ‘পঞ্চায়েত ডেভেলপমেন্ট ইনডেক্স’ তৈরির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রাজ্যকে। অর্থাৎ, রাজ্যের পঞ্চায়েত, স্বাস্থ্য, কৃষি, সমাজকল্যাণ, জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি, স্কুলশিক্ষা, ভূমিসংস্কার, প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন, মৎস্য এবং বনদপ্তরের কাজের খতিয়ান তুলে দিতে হবে কেন্দ্রের হাতে। ২০২৩-এর ৩১ মার্চ পর্যন্ত কাজের খতিয়ান কেন্দ্রের সংশ্লিষ্ট পোর্টালে তুলে দিতে হবে। 
তবে এই ইনডেক্স তৈরির ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের তরফে কিছুটা সাবধানী পদক্ষেপ করা হচ্ছে বলেই নবান্ন সূত্রে খবর। এ বিষয়ে পঞ্চায়েতমন্ত্রী প্রদীপ মজুমদারের সাফ কথা, ‘ওরা প্রাপ্য টাকা না দেওয়ায় রাজ্যকে নিজের খরচে বিকল্প কাজ করাতে হয়েছে। তাহলে পথশ্রী সহ অন্যান্য উন্নয়নের  তথ্য ওদের আমরা কেন দেব? তবে আগামী দিনে কেন্দ্র যদি রাজ্যের বকেয়া মিটিয়ে গ্রামোন্নয়নের  কাজে সত্যিই সহযোগিতা করে, তাহলে তথ্য তুলে দেওয়ার কথা ভাবনাচিন্তা করা হবে।’ সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে একটি বৈঠক করেন নবান্নের পদস্থ কর্তারা। উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সচিবরাও। ‘পঞ্চায়েত ডেভেলপমেন্ট ইনডেক্স’ তৈরি নিয়ে মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদীকে চেয়ারম্যান করে একটি স্টিয়ারিং কমিটি তৈরি করা হয়েছে। কমিটির মেম্বার সেক্রেটারি হয়েছেন পঞ্চায়েত সচিব। অন্যান্য ১২টি দপ্তরের সচিব সদস্য হয়েছেন। ৭ ডিসেম্বর এ বিষয়ে একটি কর্মশালার আয়োজনও করা হয়েছে। 
প্রসঙ্গত, গতবার গ্রামোন্নয়নের বার্ষিক পরিকল্পনা বা গ্রাম পঞ্চায়েত ডেভেলপমেন্ট প্ল্যান তৈরির সময় বিশেষ কয়েকটি ক্ষেত্রে নজর দেওয়ার কথা বলেছিল কেন্দ্র। মহিলা ও শিশুবান্ধব এবং দারিদ্র্যমুক্ত গ্রাম তৈরি সহ মোট ন’টি বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দিতে বলা হয়। এবার নিয়মে বদল এনে পঞ্চায়েতের তিনটি স্তরকেই কাজে লাগিয়ে আগামী অর্থবর্ষের জন্য ‘পঞ্চায়েত ডেভেলপমেন্ট প্ল্যান’ তৈরির নির্দেশ এসেছে। পাড়া বৈঠকের মাধ্যমে চূড়ান্ত হওয়া এই পরিকল্পনাই কেন্দ্রের ই-গ্রামস্বরাজ পোর্টালে তুলে দিতে হবে। তার উপর ভিত্তি করে পঞ্চদশ অর্থ কমিশন সহ অন্যান্য খাতে টাকা দেবে কেন্দ্র। তবে ইনডেক্স অনুযায়ী টাকা ছাড়া শুরু হলে তা গ্রাম পঞ্চায়েতের র‌্যাঙ্কিং অনুযায়ী হবে। সেক্ষেত্রে যে পঞ্চায়েতে উন্নয়নের কাজ কম হয়েছে, সেখানকার জন্য বেশি টাকা অনুমোদিত হবে। রাজ্যের এক আধিকারিকের কথায়, ‘এই ইনডেক্স তৈরির কাজ শেষ করতে অন্তত এক বছর সময় লাগবে। তাই মনে করা হচ্ছে, ষোড়শ অর্থ কমিশনের কথা মাথায় রেখেই কেন্দ্র এই নির্দেশ দিয়েছে।’

2nd     December,   2023
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ