বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

বিজেপির এজেন্সি রাজনীতি সামলে ভোট জয়ে মমতার ভোকাল টনিকের দিকে তাকিয়ে তৃণমূল

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: উৎসব পর্ব অনেকটাই মিটেছে। এবার লোকসভা ভোটের প্রস্তুতিতে পুরোদস্তুর নেমে পড়তে চলেছে তৃণমূল। নভেম্বর মাস থেকেই শুরু হয়ে যাচ্ছে কর্মসূচি। দিন যত এগবে, তত কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে ঠাসা কর্মসূচি নিয়ে নামবে জোড়াফুল শিবির। আর এই আবহে লোকসভার ভোটকে সামনে রেখে দলের সর্বস্তরের জনপ্রতিনিধি ও দলীয় নেতৃত্বকে বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোরের সভা থেকে নির্দেশিকা দেবেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মূলত, কেন্দ্রীয় এজেন্সিকে রাজনৈতিক স্বার্থে কাজে লাগানোর অভিযোগ অনেকদিন ধরেই করে আসছে তৃণমূল। লোকসভার ভোটের আগে এর পরিধি আরও বাড়বে বলেই তৃণমূল নেতৃত্বের আশঙ্কা। সেই অবস্থায় দাঁড়িয়ে লোকসভা আসনগুলিতে কীভাবে জয় ছিনিয়ে আনা যাবে, তার ফর্মুলা জানাবেন তৃণমূল নেত্রী।
অক্টোবর মাসেই তৃণমূল ঘোষণা করেছিল নভেম্বর থেকে কেন্দ্র-বিরোধী লাগাতার কর্মসূচি হবে। বিশেষ করে ১০০ দিনের কাজ, আবাস যোজনা, গ্রাম সড়ক যোজনায় প্রাপ্য অর্থ কেন্দ্র দিচ্ছে না বলে অভিযোগ তৃণমূলের। তার প্রতিবাদেই রাস্তায় নামতে চলেছে শাসক শিবির। আগামী ২৩ নভেম্বর তৃণমূলের মেগা কর্মসূচি নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে। ওই সভা থেকে দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বার্তা দেবেন মমতা। একইসঙ্গে ঘোষণা হবে কর্মসূচির। ফের দিল্লি অভিযান হতে পারে বলেও খবর তৃণমূল সূত্রের। তাছাড়া জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, অনুব্রত মণ্ডলের মতো তৃণমূলের সংগঠকরা জেলবন্দি। এমন ক্ষেত্রে কীভাবে জেলার কাজকর্ম পরিচালিত হবে, সেই বিষয়ে বার্তা দিতে পারেন তৃণমূল নেত্রী। অনেকেরই আশঙ্কা, ইডি-সিবিআইকে কাজে লাগিয়ে তৃণমূল নেতাদের উপর আরও চাপ বাড়াতে পারে বিজেপি। তাই যতই আঘাত আসুক, বিজেপির এজেন্সি রাজনীতিতে ভীত না-হয়ে ভোটযুদ্ধ জয়ের ভোকাল টনিক দিতে পারেন তৃণমূল নেত্রী। 
তবে, পঞ্চায়েত সদস্য থেকে বিভিন্ন স্তরের নেতাদের আচরণ বিষয়ে কড়া নির্দেশিকা ওই সভা থেকে মমতা দিতে পারেন। নিজেদের স্বার্থসিদ্ধ নয়, জনস্বার্থকে গুরুত্ব দিয়ে সরকারের উন্নয়নমূলক প্রকল্প আরও বেশি করে কীভাবে মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যাবে, তার কথাও জানান দিতে পারেন তৃণমূল নেত্রী।
এই সভায় জনপ্রতিনিধি ও দলীয় পদাধিকারী মিলিয়ে ১০-১২ হাজার মানুষের সমাগম হবে। সাংসদ, বিধায়ক, রাজ্য কমিটির সদস্য, মুখপাত্র, জেলা সভাপতি, কলকাতাসহ সব পুরসভার কাউন্সিলার, পুর চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদের সদস্য, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ও সহসভাপতি, গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান, ব্লক ও টাউন সভাপতি এবং শাখা সংগঠনের নেতৃত্ব এই সভায় আমন্ত্রিত। তাঁদের তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। তৈরি হয়েছে সভায় উপস্থিত হওয়ার জন্য নির্দিষ্ট কার্ড। জেলা সভাপতির মাধ্যমে সেই কার্ড পৌঁছে যাচ্ছে আমন্ত্রিতদের হাতে। তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সির ভবানীপুরের কার্যালয় থেকে তালিকা ধরে জেলাভিত্তিক কার্ড বিতরণ করা হচ্ছে। ভবানীপুর কার্যালয় থেকে গোটা বিষয়টির পর্যবেক্ষণ করছেন জয়প্রকাশ মজুমদার, অলোক দাস প্রমুখ।

21st     November,   2023
 
 
অক্ষয় তৃতীয়া ১৪৩১
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ