বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

ক্যান্সার প্রতিরোধী নতুন যৌগের সন্ধান বাঙালি
বিজ্ঞানীর, গবেষণাকে স্বীকৃতি মার্কিন জার্নালের

সুমন তেওয়ারি, দুর্গাপুর : ক্যান্সার প্রতিরোধী নতুন জটিল যৌগের সন্ধান পেলেন বাঙালি বিজ্ঞানী শঙ্কর চন্দ্র মই। তিনি এনআইটি দুর্গাপুরে রসায়ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান। বিভাগেরই গবেষক পড়ুয়াদের একাংশকে নিয়ে গবেষণা চালিয়েছিলেন প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ল্যাবরেটরিতেই। সীমিত পরিকাঠামোতে এই সাফল্য ঩মেলায় উচ্ছ্বসিত এনআইটি কর্তৃপক্ষ। বাঙালি বিজ্ঞানীর এই গবেষণাকে স্বীকৃতি দিয়েছে আমেরিকান কেমিক্যাল স্যোসাইটির গবেষণাপত্র ‘ল্যাংমুইর’। জগৎজোড়া খ্যাতি সম্পন্ন এই জার্নালে কয়েকদিন আগেই প্রকাশিত হয়েছে গবেষণাপত্রটি। গবেষকদের দাবি, ক্যান্সার চিকিৎসায় কেমোথেরাপিতে ব্যবহৃত ওষুধ সিসপ্ল্যাটিন ও কার্বোপ্ল্যাটিনের তুলনায় ওই নতুন জটিল যৌগটি বেশি কার্যকার। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ক্যান্সার কোষের উপর এটিকে প্রয়োগ করলে অন্য যৌগগুলির তুলনায় সমপরিমান বা বেশি কাজ করছে। অথচ, সাধারণ কোষের ক্ষেত্রে এর প্রতিক্রিয়া অন্যদের তুলনায় অনেক কম। অর্থাৎ কেমোথেরাপির পর রোগীর শরীরে যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়, এই যৌগ ব্যবহারের ক্ষেত্রে তা অনেকটাই কম হবে। গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হওয়ার পরই  দুনিয়াজুড়ে শোরগোল পড়েছে। 
এনআইটি দুর্গাপুরের অধিকর্তা বিজ্ঞানী অনুপম বসু বলেন, ‘সীমিত পরিকাঠামোর মধ্যে দিয়ে এইরকম একটি কঠিন গবেষণায় সাফল্য মিলেছে। যা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, নতুন ওই যৌগটির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কম। বিভিন্ন ট্রায়ালের পর ওষুধ হিসাবে বাজারে এলে বহু মানুষ উপকৃত হবেন। গবেষকরা জানিয়েছেন, প্ল্যাটিনামের সঙ্গে জৈব যৌগের মিশ্রণ ঘটিয়ে এই বিশেষ জটিল জৈব যৌগটি প্রস্তুত করা হয়েছে। এরপর পরীক্ষাগারে ফুসফুসের ক্যান্সার সৃষ্টিকারী কোষ ‘এ-৫৪৯’-এর উপর প্রয়োগ করা হয়। একই ধরনের সেলের উপর সিসপ্ল্যাটিনও প্রয়োগ করা হয়। বিজ্ঞানীদের দাবি, দু’টি ক্ষেত্রেই দেখা যায়, সমপরিমাণ কাজ করছে। কোনও ক্ষেত্রে আবার নতুন যৌগটি বেশি ভালো কাজ করেছে। এরপর নতুন জটিল যৌগটি ও সিসপ্ল্যাটিনটিকে সাধারণ সুস্থ এমব্রায়োনিক বৃক্ক (কিডনি) সেল লাইন ‘এইচইকে-২৯৩’-এর উপর প্রয়োগ করা হয়। তার সাফল্য দেখে চমকে যান গবেষকরা। সবচেয়ে বেশি উচ্ছ্বসিত হন তাঁরা। দেখা গিয়েছে, সিসপ্ল্যাটিন সাধারণ সেলের উপর যে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করছে, তার থেকে অনেক কম প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে নতুন আবিষ্কার হওয়া যৌগটিতে। গবেষকদের দাবি, ক্যান্সার প্রতিরোধী ওষুধগুলি ক্যান্সার কোষের উপর কাজ করতে গিয়ে সাধারণ কোষগুলিকে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে তোলে। ফলে, চুল উঠে যাওয়া সহ নানা উপসর্গ দেখা যায়। অনেক সময় পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় মৃত্যুর ঘটনাও ঘটে।  এই নতুন যৌগকে গবেষণার ভাষায়  ‘ড্রাগ ক্যান্ডিডেট’ বলা হচ্ছে। সেটা এবার ইঁদুর, গিনিপিগ, বাঁদর ও মানুষের শরীরে প্রয়োগে সফল হলে ড্রাগ বা ওষুধের স্বীকৃতি পাবে। খুলে যাবে ক্যান্সার চিকিৎসার এক নতুন দিগন্ত। 
ক্যান্স্যার নিয়ে ধারাবাহিক গবেষণার জন্য এবছরই লন্ডনের ‘রয়্যাল সোস্যাইটি অব কেমিস্ট্রি’ শঙ্করচন্দ্র মইকে ফেলো মেম্বার নির্বাচিত করেছে। শঙ্করবাবু বাঁকুড়ার প্রত্যন্ত রাইডি-দলদলি গ্রামের কৃষক পরিবারের ছেলে। গবেষণার কাজে তাঁকে সঙ্গ দিয়েছিলেন তাঁরই বিভাগেরই দুই গবেষক পড়ুয়া সৈকত মণ্ডল ও স্বরূপকুমার তরা‌ই। তাঁরাও উল্লেখযোগ্য কাজ করার জন্য ভূয়সী প্রশংসা কুড়িয়েছেন। এরই পাশাপাশি, এনআইটি কেমিষ্ট্রি বিভাগের  পিএইচ঩ডি করা আরও তিন পড়ুয়া ও বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক পিএইচডি করা ছাত্র এই গবেষণায় অংশ নিয়েছিলেন। রসায়ন বিভাগের অন্য তিন অধ্যাপক অপূর্ব পাত্র, দীপঙ্কর শুকুল ও রাজনারায়ণ সাহাও সাহায্য করেছেন শঙ্করবাবুকে। বুধবার তিনি বলেন, ‘আমাদের আবিষ্কৃত এই যৌগ দ্রুত ড্রাগের স্বীকৃতি পেয়ে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন শুরু হলে ক্যান্সার চিকিৎসায় আরও সাফল্য আসবে।’ 

2nd     December,   2022
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ