বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
সিনেমা
 

সোশ্যাল মিডিয়ায় না থাকায় পিছিয়ে পড়িনি

টেলিভিশনের সাপ্তাহিক মার্কশিটে এক নম্বরে জি বাংলার ‘নিম ফুলের মধু’। এতে অভিনেতা ও কলাকুশলীদের মুখের হাসি নিঃসন্দেহে খানিক চওড়া হল। শুধু সেই আনন্দতে ভেসে না গিয়ে কাজে মন দিতে চান অভিনেত্রী পল্লবী শর্মা। শ্যুটিং ফ্লোর থেকে নায়িকা বললেন, ‘আমাদের অর্থাৎ অভিনেতাদের কাজ আবেগ নিয়ে। আর ‘টিআরপি’ হল বাণিজ্যিক শব্দ। এটা নিয়ে আমার খুব একটা মাথাব্যথা নেই। তবে একটা কাজ যখন এত মন দিয়ে, পরিশ্রম করে, ভালোবেসে করি, সেটার প্রশংসা পেতে সকলেরই ভালো লাগে। কিন্তু টিআরপি তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকলে সেটা নিয়ে খুব মন খারাপ হয়ে যায়, তা নয়। দেড় বছর পরও সকলে দেখছেন, ভালোবাসছেন, এটাই বড় কথা।’
শুধু টিআরপি তালিকা দেখে জনতার রায় পাওয়া যায়, তা নয়। সমাজমাধ্যমে সরাসরি দর্শক এখন নিজেদের মতামত জানান। কিন্তু সেখান থেকেও পল্লবী নিজেকে দূরে রেখেছেন। স্পষ্ট বললেন, ‘ফেসবুকে আমার কোনও অ্যাকাউন্ট নেই। ইনস্টাগ্রামে একটা অ্যাকাউন্ট আছে। কিন্তু আমি এতটাই কম অ্যাক্টিভ থাকি যে আমার ভুয়ো অ্যাকাউন্টগুলোই সকলে আসল বলে মনে করে। সেগুলোর ফলোয়ারও অনেক বেশি। ফলে কেউ ধারাবাহিক নিয়ে মন্তব্য করলে সরাসরি আমি হয়তো দেখতে পাই না। কিন্তু সহকর্মীদের কাছ থেকে জানতে পারি।’ 
সোশ্যাল মিডিয়া সর্বস্ব যুগে সমাজমাধ্যম থেকে দূরে থাকলে কোনও নিরাপত্তাহীনতা তৈরি হয় না? পল্লবীর দাবি, ‘কাজটাই তো আসল। আমার এখনকার ধারাবাহিক তো বটেই, আগের ধারাবাহিকও বেঙ্গল টপার ছিল। তার জন্য আলাদা করে আমাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় থাকতে হয়নি। ফলে কোনও ইনসিকিওরিটি তৈরি হয় না। সোশ্যাল মিডিয়ায় কথা বলে দর্শক টানাতে যাঁরা আগ্রহী, সেক্ষেত্রে মনে হয় আমি যে কাজটা করছি, আমার অভিনয়, সেটাকে কোথাও ছোট করা হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় না থাকায় বাকিদের থেকে আমি পিছিয়ে গিয়েছি, তা কখনও আমার মনে হয় না। আমার কাজে এর কোনও প্রভাব পড়ে না।’ 

15th     March,   2024
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ