বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 

বিদেশে এখনও আমি ‘চারুলতা’

মাধবী মুখোপাধ্যায়: কতদিন হয়ে গেল। এখনও বিদেশে গেলে প্রায় কেউই আমাকে মাধবী বলে ডাকেন না। কী বলে ডাকে, জানেন? ‘চারুলতা।’ শুধু বিদেশে নয়, দেশের অনেক জায়গাতেও। আজ থেকে ৬০ বছর আগেকার কথা। তখন সবে ‘মহানগর’ ছবির শ্যুটিং শেষ হচ্ছে। শেষ দৃশ্য ছিল একটা রাস্তায়। সত্যজিত্ রায় আমাকে বললেন, ‘আবার তোমার সঙ্গে কবে কাজ করব?’ আমি তো শুনে একটু অবাকই হয়েছিলাম। কিছু বলিনি অবশ্য। চুপ করেই ছিলাম। আমি আবার একটু কমই কথা বলতাম। শুধু মনে মনে ভাবলাম, এটা উনি কেন জিজ্ঞেস করলেন! এটা তো আমার জিজ্ঞেস করার কথা। তার কিছুদিন বাদে, উনি আমাকে বললেন, তোমাকে ‘নষ্টনীড়’ পাঠাচ্ছি। একবার পড়ো। আমি তখন বললাম, এটা আমার পড়া আছে। উনি আমাকে বললেন, পড়া থাকলেও তুমি আবার পড়ো। তাঁর কথা তো আর ফেলতে পারি না। আবার পড়লাম। পড়া হয়ে গেলে সেকথা ওঁকে জানালামও। উনি আমাকে একটা তারিখ দিয়ে বললেন, বাড়িতে আসতে। বাড়িতে যেতে পুরো চিত্রনাট্য শোনালেন। ঠিক পুরোটা নয়। শেষের দিকটা বললেন না। আমি জিজ্ঞেস করলাম, শেষটা কী হবে? উনি বলেলন, পরে বলব। সে আর বলেননি। তারপর শ্যুটিংয়ের সময় গিয়েই শেষটা করলাম। আমার মনে হয়, শেষটা হয়তো নিজেই নানা রকম ভেবেছিলেন।
এই যে ছবিতে আমার ‘লুক’ নিয়ে এখনও এত চর্চা হয়। শুনে তো খুবই ভালো লাগে। কিন্তু মজার কথা হল, সেই সময় ড্রেস ডিজাইনার ছিল না। ওটা মানিকবাবুই (সত্যজিত্ রায়) মেকআপ ম্যান অনন্তবাবুকে বলে দিতেন। অনন্তবাবু সেভাবেই কাজ করতেন। অসাধারণ কিছু চুল বাঁধা নয়। ওই একটা খোঁপা করে বেঁধে দেওয়া। আজকালকার মতো ‘লুক সেট’-এর মতো কিছু ছিল না। আগের থেকে বলা থাকত। শাড়িটাও সত্যজিতবাবুই কিনেছিলেন। সেকালের সমস্ত পরিচালকরাই এভাবে কাজ করতেন। এখনও অনেকে জিজ্ঞেস করেন, ‘চারুলতা’র শ্যুটিং কোথায় হয়েছিল? এটা হয়েছিল এনটি ১ স্টুডিওতে। সেট তৈরি করেছিলেন বংশীচন্দ্র গুপ্ত। সত্যজিত্ রায়ই বলে দিতেন, কেমন হবে সিনেমার সেট। উনিও তো খুব ভালো ছবি আঁকতে পারতেন। 
অনেকে জিজ্ঞেস করেন, শ্যুটিং কেমন হয়েছিল? আসলে শ্যুটিংয়ের সময় অন্য কোনও কথা ভাবতাম না। আমাদের সেট কিন্তু সেই সময় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ছিল না। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ফ্লোরও ছিল না। একটা বড় ফ্যান থাকত। সেখানেই সকলে মিলে দাঁড়াত। হাতপাখা দিয়ে হাওয়া খেতাম। শট হওয়ার সময় মুখে একটা বরফ লাগিয়ে দিত। এভাবেই শ্যুটিংয়ে কাজ করেছি।
এখনও যখন ‘চারুলতা’ দেখে দর্শক মুগ্ধ হন, খুবই ভালো লাগে। আসলে ছবি তো শুধু আমার একার নয়, সকলে মিলে কাজ করেছি। সকলের উপরে থাকেন সত্যজিত্ রায়। ওঁর ভাবনা থেকেই তো সবটা হয়েছে।

21st     April,   2024
অক্ষয় তৃতীয়া ১৪৩১
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা