বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
উত্তরবঙ্গ
 

পাহাড়ে ফের সরব হামরো পার্টি, বিজেপির বিরুদ্ধে ক্ষোভ বাড়ছে

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়ি: ফের বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হামরো পার্টির প্রধান অজয় এডওয়ার্ড। বুধবার তিনি বলেন, বিজেপি শাসিত কেন্দ্রীয় সরকার নয়া ঔপনিবেশিক শাসন ব্যবস্থা কায়েম করেছে। কেন্দ্রীয় সরকার প্রতিবেশী রাজ্য সিকিমের পাশে দাঁড়ালেও তিস্তা নদীর তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত কালিম্পংয়ে কোনও সহায়তা করেনি। তাই বিজেপির উপর আর ভরসা করা যায় না। এবার এই সরকারকে পাল্টাতে হবে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভার্চুয়ালি সিকিমের রংপো রেল স্টেশন শিলান্যাস করার পর হামরো পার্টির এমন বক্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ। এ নিয়ে পাহাড়ের রাজনীতি সরগরম। 
দার্জিলিং পাহাড়ে পদ্ম শিবিরের বিরুদ্ধে অনেকদিন আগেই সরব হন হামরো পার্টির প্রধান। মাঝে কিছুদিন নীরব ছিলেন। মঙ্গলবার সিকিমের রংপোতে রেল স্টেশনের শিলান্যাস হতেই তিনি ফের বিজেপির বিরুদ্ধে সুর সপ্তমে তোলেন। এ ব্যাপারে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টও করেছেন। বিজেপির বিরুদ্ধে পাহাড়বাসীকে একজোট হওয়ার আবেদন করেন। 
হামরো পার্টির প্রধান বলেন, গত অক্টোবর মাসে তিস্তা নদীর তাণ্ডবে প্রতিবেশী রাজ্য সিকিম ও বাংলার কালিম্পং জেলা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কেন্দ্রীয় সরকার সিকিমকে সবরকমভাবে সহযোগিতা করছে। এবার সেখানে রেল স্টেশনের শিলান্যাস করা হয়েছে। এতে আমাদের আপত্তি নেই। কিন্তু, তিস্তার তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত মল্লি, রিয়াং, তিস্তাবাজার প্রভৃতি এলাকার জন্য এক টাকাও বরাদ্দ করেনি কেন্দ্র। তাছাড়া কেন্দ্রীয় সংস্থার দু’টি ইউনিট এখানে বছরে ৬০০ কোটি টাকার বিদ্যুৎ উৎপাদন করে। সেই সংস্থাও কালিম্পংয়ের জন্য কিছুই করেনি। কেন্দ্রের এমন মনভাব আমাদের আঘাত করেছে। বিজেপি শাসিত কেন্দ্রীয় সরকার বুঝিয়ে দিয়েছে ওরা নতুন ঔপনিবেশিক শাসন ব্যবস্থা চালু করেছে। এবার ভোটে এর জবাব দিতে হবে। পাহাড়বাসীর কাছে এই আহ্বান করেছি। বিজেপি নেতৃত্ব অবশ্য এই বক্তব্য নিয়ে মাথা ঘামাতে চাইছে না। বিজেপির পার্বত্য সাংগঠনিক জেলা কমিটির সভাপতি কল্যাণ দেওয়ান বলেন, হামরো পার্টির প্রধান সবকিছু না জেনে চিৎকার করছেন। রাজ্য সরকারের গাফিলতিতেই তিস্তার তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত কালিম্পং জেলা কেন্দ্রীয় সহায়তা পায়নি। তাই হামরো পার্টির বক্তব্য গুরুত্বহীন। 
গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে লাগাতার আক্রমণ হানছে জিটিএ’র চিফ এগজিকিউটিভ অনীত থাপার দল বিজিপিএম। এদিনও কার্শিয়াংয়ের জনজাগরণ যাত্রায় বিজিপিএম নেতৃত্ব পদ্ম শিবিরের বিরুদ্ধে গলা ফাটান। এবার হামরো পার্টির প্রধান একই পথ অবলম্বন করায় পাহাড়ের রাজনীতিতে জোর চর্চা শুরু হয়েছে। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের বক্তব্য, পদ্ম শিবিরের নেতৃত্বরা যাই বলুন না কেন পাহাড়ে তাদের বিরুদ্ধে ক্ষোভের পারদ ক্রমশ চড়ছে। লোকসভা ভোটে যার প্রভাব পড়বে বলেই মনে হচ্ছে।  

29th     February,   2024
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ