বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
উত্তরবঙ্গ
 

হিলি সীমান্তে পাচার রুখতে ড্রোন ক্যামেরায় নজরদারি বিএসএফের

ইন্দ্র মহন্ত, বালুরঘাট: হিলি সীমান্তে পাচার রুখতে এবার ড্রোন ক্যামেরার মাধ্যমে নজরদারি শুরু করেছে বিএসএফ। শীত পড়তেই কুয়াশার সুযোগ নিয়ে একাধিক এলাকা দিয়ে দেদার পাচারের পরিকল্পনা করেছে পাচারকারীরা। পাচার রুখতে বিএসএফের জওয়ানরা টহলদারি চালিয়ে গেলেও সুযোগ বুঝে পাচারকারীরা এপার ওপার করে ঠিক নিজেদের কারবার চালিয়ে যায়। তাদের কুকর্ম আটকাতে এবার মোক্ষম অস্ত্র নিয়ে হাজির সীমান্তরক্ষী বাহিনী। শীতকালে যাতে পাচারকারীরা কুয়াশা থাকার সুবিধা না নিতে পারে, সেদিকে নজর দিয়ে ইতিমধ্যে অত্যাধুনিক মানের আলো লাগিয়েছে বিএসএফ। এলাকা আলোকিত থাকায় রাতে সীমান্ত এলাকায় নজরদারি চালানো অনেক সহজ হয়েছে জওয়ানদের। এখন দিনের পাশাপাশি সন্ধ্যা হতেই ১৩৭ ব্যাটেলিয়নের আওতায় যে সমস্ত সীমান্ত এলাকা রয়েছে, সেখানে প্রায় ৯০ ফুট উঁচুতে ড্রোন ওড়ানো হচ্ছে। কোথাও কারও কোনও গতিবিধি দেখা গেলে সেই স্থানে ড্রোন প্রায় ১৫ ফুট নীচে নামিয়ে দেখা হচ্ছে কী চলছে সেখানে। পরিস্থিতি বেগতিক দেখলে দ্রুত সেই জায়গায় পৌঁছে যাচ্ছে জওয়ানরা। 
সীমান্ত এলাকায় ২ কিলোমিটার জুড়ে একটি করে ড্রোন ক্যামেরা উড়িয়ে কাঁটাতারের ওপারে জিরো পয়েন্টের আগে পর্যন্ত নজরদারি চলছে। উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন এই ড্রোনগুলিতে নাইট ভিশন ক্যামেরা লাগানো রয়েছে। যেগুলি অল্প আলো বা অন্ধকারেও উচ্চমানের ভিডিও তুলতে সক্ষম। তাছাড়া ড্রোন ক্যামেরা যাতে স্পষ্ট ভিডিও করতে পারে সেদিকে নজর দিয়ে এলাকায় প্রচুর উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন আলো বসানো হয়েছে। 
বিএসএফ ড্রোন ব্যবহার করার ফলে পাচারকারীরাও অনেকটা পিছু হঠেছে। তবে তারা এবার পাচারের নতুন ফন্দি বের করার পরিকল্পনা করছে। বিএসএফের দাবি, তাদের কাছে এখন যত ড্রোন আছে, তা দিয়ে জোরদার নজরদারি চলছে। পরে অত্যাধুনিক নাইট ভিশন ড্রোন ক্যামেরা নিয়ে আসা হবে। 
বিএসএফের ১৩৭ ব্যাটেলিয়নের কমান্ডিং অফিসার সুখবীর ডাঙর বলেন, শীত পড়লেই কুয়াশার সুযোগ কাজে লাগিয়ে পাচারকারীরা সক্রিয় হয়। আমাদের জওয়ানরা সীমান্তে তাদের আটকাতে সবসময় তৈরি থাকে। আমরা ড্রোনের মাধ্যমে আকাশপথে নজরদারি শুরু করেছি। 
দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার হিলি সীমান্ত পাচারকারীদের স্বর্গরাজ্য বলে পরিচিত।  গোরু, কাফ সিরাপ, সোনা, মাদক, সাপের বিষ, গাঁজা, ইয়াবা ট্যাবলেট সহ একাধিক মাদক পাচার হয়ে থাকে। সীমান্তের হাঁড়িপুকুর, উজাল, গোবিন্দপুর, আগ্রা, দক্ষিণপাড়া, জামালপুর, সিদাইসহ একাধিক এলাকা দিয়ে মুলত পাচার হয়। ওইসব এলাকায় সীমান্তে কাঁটাতার না থাকার সমস্যাও রয়েছে। বিশেষ করে মাঝরাতে কুয়াশার সুযোগ নিয়ে পাচারকারীরা তাদের কাজ হাসিল করে। কারণ তখন পাচারকারীদের গতিবিধি নজর রাখতে চরম সমস্যা হয় জওয়ানদের। এবার সেই সমস্যা অনেকটা মিটে যাওয়ার ফলে পাচার সহজ হবে না  বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

9th     December,   2023
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ