বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
উত্তরবঙ্গ
 

মৃত আইনজীবীর ফোনের কললিস্ট, হদিশ না মেলা জুতোর খোঁজে পুলিস

সংবাদদাতা, শিলিগুড়ি: আইনজীবী নবীন সরকারের জলে ডুবে মৃত্যু হয়েছে, এ ব্যাপারে নিশ্চিত হলেও তদন্তে এখনও পর্যন্ত খুনের কোনও সূত্র পাচ্ছে না পুলিস। তদন্তে নবীনের জুতোর হদিশ ও ফোনের কললিস্ট গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।  
সোমবার সকালে মার্ডার মোড়ে ফুলবাড়ি ক্যানালের জল থেকে শিলিগুড়ির  ওই আইনজীবীর মৃতদেহ উদ্ধার করে এনজেপি থানার পুলিস। মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত তাঁর পরিবার থানায় কোনও অভিযোগ দায়ের করেনি। তবে তাঁর পরিবারের দাবি, পুলিস ঠিকমতো তদন্ত করে মৃত্যুর সঠিক কারণ খুঁজে বের করুক। শোক সামলে নিয়ে পরিবারের তরফে অভিযোগ দায়ের করা হবে। কারণ, মৃত আইনজীবীর বাবা নিরঞ্জন সরকার মঙ্গলবার বলেন, রবিবার সকালে একটি ফোন আসার পর ছেলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়েছিল। সারাদিন না আসায় সন্ধ্যায় বউমা ছেলেকে ফোন করে। নবীন জানিয়েছিল, ও আশিঘর মোড়ে রয়েছে। কিছুক্ষণের মধ্যেই বাড়ি ফিরবে। তারপর কী করে আমার ছেলে গজলডোবায় চলে গেল, সঙ্গে কে বা কারা ছিল, সকালে কে ফোন করেছিল এই দিকগুলি তদন্তে খতিয়ে দেখা হোক। তাহলেই মৃত্যুর সঠিক কারণ বেরিয়ে আসবে। আমরা চাই, আমাদের ছেলের মৃত্যুর সঠিক কারণ বের করুক পুলিস। তদন্তে নবীনের জুতোর খোঁজ গুরুত্বপূর্ণ দিক বলে মনে করছে শিলিগুড়ির আইনজীবী মহল। কারণ, মার্ডার মোড় থেকে মৃতদেহ উদ্ধার হলেও নবীনের স্কুটারটি উদ্ধার হয়েছে সোমবার দুপুরে গজলডোবার ক্যানেলের পাশ থেকে। মৃতের জামা-প্যান্ট ঠিকঠাক ছিল। হাতে ঘড়ি, পকেটে মোবাইল ফোন, আধার কার্ড সবই পাওয়া গিয়েছে। গায়ে কোনও আঘাত বা ক্ষতের চিহ্ন ছিল না। কিন্তু নবীনের পায়ে জুতো ছিল না। তাহলে জুতো কোথায় গেল? আইনজীবীদের প্রশ্ন, জুতো খুলে  যদি তিনি আত্মহত্যা করেন তাহলে মোবাইল ফোন, ঘড়ি, স্কুটারে রেখে দিতে পারতেন। আর যদি দুর্ঘটনাজনিত কারণে জলে পড়ে গিয়ে থাকেন, তাহলে তাঁর মোবাইল ফোন, হাতঘড়ি ছিটকে না পড়ে শুধু পা থেকে জুতো বা চটি খুলে গেল কীভাবে? 
শিলিগুড়ি বার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক আলোক ধারা বলেন, আমরা এখনই বলছি না নবীন আত্মহত্যা করেছে বা ওঁকে খুন করা হয়েছে। আমরা চাই, পুলিস মৃত্যুর সঠিক কারণ খুঁজে বের করুক। তদন্তে নবীনের ফোনের কললিস্ট পরীক্ষা করে দেখা হোক, সেদিন ওঁর কোথায় কার সঙ্গে কথা হয়েছে। তাহলেই বোঝা যাবে নবীন একা গজলডোবা গিয়েছিল না, তাঁর সঙ্গে আরও কেউ ছিল। যেখানে স্কুটার পাওয়া গিয়েছে সেখান থেকে মার্ডার মোড়ে জলে এত তাড়াতাড়ি মৃতদেহ ভেসে আসতে পারে না। নবীনের মৃত্যু নিয়ে আমরা ওঁর পরিবারে পাশে রয়েছি। এদিকে, এখনও শোক কাটিয়ে উঠতে পারেনি নবীনের পরিবার। এদিনও কেউই ঠিকমতো কথা বলতে পারেননি। 

6th     December,   2023
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ