বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
উত্তরবঙ্গ
 

ইউটিউব দেখে ড্রাগন ফল চাষ শিখে দিশা দেখাচ্ছেন করণদিঘির কুইতোরের অজিত

সংবাদদাতা, করণদিঘি: ড্রাগন ফল চাষ করে দিশা দেখাচ্ছেন উত্তর দিনাজপুর জেলার করণদিঘি ব্লকের কুইতোর গ্রামের কৃষক অজিত মাহাত। আরও ড্রাগন ফল চাষ করে তিনি বাকিদের পথ দেখাতে চান। ড্রাগন ফল চাষি হিসেবে অজিত এখন এতটাই জনপ্রিয় যে, করণদিঘি ব্লকের বিভিন্ন গ্ৰামের পাশাপাশি অন্যান্য জেলা থেকে এসেও তাঁর কাছ থেকে ফলের চারা নিয়ে যাচ্ছেন। তাঁদেরকে তিনি চাষের খুঁটিনাটি শিখিয়ে দিচ্ছেন। অজিতবাবু বলেন, আমার ড্রাগন ফলের চাষ দেখতে প্রতিদিন দূরদূরান্ত থেকে প্রচুর লোকজন আসেন।
ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ বেশি থাকায় উত্তর দিনাজপুর জেলার টুঙ্গিদিঘি হাট এবং রায়গঞ্জের বাজারে কেজি প্রতি ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অজিতবাবু বলেন, এক বিঘা জমিতে ড্রাগন ফল চাষ করে বছরে প্রায় এক লক্ষ টাকা আয় হচ্ছে।
করণদিঘি ব্লকের আলতাপুর-২ পঞ্চায়েতের অজিতবাবু আর পাঁচ জন কৃষকের মতোই ধান, গম, ভূট্টা চাষ করতেন। এই  চাষে রাসায়নিক সার সহ শ্রমিক দিয়ে খরচ অনেকটাই বেশি। ফসল বিক্রি করে লাভ খুব একটা হয় না। ইউটিউবে একদিন ড্রাগন ফল চাষের ভিডিও দেখে আগ্রহ জন্মায় অজিতের। তিনি জানতে পারেন, এই ফল হৃদরোগ, ক্যান্সার সহ ২২ রকমের রোগে ওষুধের কাজ করে। তারপরই মাঠে নামেন অজিতবাবু। শুরুতে নিজের বিঘা সাতেক জমির অল্প অংশে ড্রাগন ফল চাষ শুরু করেন। প্রথমবার বলে একটু চিন্তা ছিল। তাই খুব বেশি জমিতে চাষ করার ঝুঁকি নেননি। ভেবেছিলেন যদি ক্ষতি হয়, খুব একটা সমস্যা হবে না তাতে। হুগলির এক চাষির কাছে থেকে পাঁচ বছর  আগে ২০টি ড্রাগন ফলের চারা নিয়ে আসেন অজিতবাবু। এই চাষে খুব বেশি খরচ হয় না। গাছের পরিচর্যা করলে ফলন ভালো হয়। অজিতবাবু এখন এক বিঘা জমিতে ড্রাগন ফল চাষ করছেন। পাশাপাশি ড্রাগন ফলের গাছের ফাঁকে ফাঁকে আঙুর চাষও চলছে। তিনি বলেন, পাঁচ বছর আগে লাগানো গাছে ফলের সংখ্যা বাড়ছে। চারাও তৈরি করছি। উত্তর দিনাজপুর জেলা ছাড়াও বিভিন্ন জেলা থেকে এই চারা কিনতে আসছেন চাষিরা।

6th     December,   2023
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ