Bartaman Patrika
আমরা মেয়েরা
 

মায়ের পুজোয় মেয়েরা

শুভমস্তু সংস্থার চার মহিলা পুরোহিত এবার দুর্গাপুজোর আসর সাজিয়ে বসছেন। ৬৬ পল্লির দুর্গাপুজোয় পৌরোহিত্য করবেন তাঁরা। আগামিকাল খুঁটি পুজোর মাধ্যমে সেই কাজের শুভারম্ভ। তার ঠিক আগেই নিজেদের পুজোপদ্ধতি ও নতুন চমকের কথা জানালেন নন্দিনী ভৌমিক। তাঁর সঙ্গে কথায় কমলিনী চক্রবর্তী।

শুভমস্তুর চার কন্যা এবার দুর্গা পুজোর কাজে হাত দিলেন। ৬৬ পল্লির দুর্গাপুজোয় পৌরোহিত্য করবেন তাঁরা। শুভমস্তু সংগঠনটিকে মহিলাদের পৌরোহিত্যে অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে পথপ্রদর্শক বললে হয়তো ভুল হবে না। পথপ্রদর্শক এই অর্থে যে, পৌরোহিত্যের সংজ্ঞাটাই বেশ একটু বদলে দিয়েছেন তাঁরা। ধার্মিক অনুষ্ঠান মানে যে শুধু মন্ত্রপাঠ নয়, তার সঙ্গেই জড়িয়ে রয়েছে সামাজিক আরও নানা প্রথা, গান ও পুরাণের গল্প— তা-ই স্পষ্ট করেছেন এই সংস্থার মহিলা পুরোহিতরা। 
গত বছর দুর্গাপুজোর ঠিক আগেই কথা হয়েছিল নন্দিনী ভৌমিকের সঙ্গে। শুভমস্তুর চার কন্যার অন্যতম তিনি।  দুর্গাপুজোয় পৌরোহিত্য বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি তখন বলেছিলেন, ‘মায়ের বুঝি এখনও ইচ্ছে নয় যে তাঁর পুজোয় আমরা পৌরোহিত্য করি। তাই সরস্বতী পুজোর কাজ টুকটাক করলেও দুর্গাপুজোয় এখনও হাত দিইনি।’ তারপর একটা গোটা বছর গড়িয়ে গিয়েছে। আগামী দুর্গাপুজো আসন্ন। আর ইতিমধ্যেই নতুন চমক। ৬৬ পল্লির পুজোয় পৌরোহিত্য করবে শুভমস্তু। হঠাৎ এমন সিদ্ধান্ত? প্রশ্ন করলাম নন্দিনীকে। তিনি বললেন, ‘আমরা শুভমস্তুর কন্যারা, রুমা, নন্দিনী, সেমন্তী, পৌলোমী— কখনওই ভাবিনি দুর্গাপুজোয় পৌরোহিত্য করব। বরং নিজেদের সামাজিক অনুষ্ঠানেই সীমাবদ্ধ রাখতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ওই যে বললাম, মায়ের হয়তো এবছর খুব ইচ্ছে হয়েছে মেয়ের হাতে পুজো পাওয়ার। তাই তাঁরই ইচ্ছায় আমরা মেয়েরা দুর্গাপুজোয় হাত দিয়েছি।’ শুভমস্তুর কাজের মাধ্যমে একটা সামাজিক সংস্কার শুরু করেছিলেন এই চার মহিলা। সেই সংস্কারমূলক কাজেই আবদ্ধ থাকতে চেয়েছিলেন তাঁরা। নন্দিনী বললেন, ‘সমাজ বদলানো তো মুখের কথা নয়, তার জন্য প্রচুর পরিশ্রম ও অধ্যবসায় লাগে। আমরা সেই অধ্যবসায় নিয়ে কাজে নেমেছি।’ তাঁরা মনে করেন মানুষের মধ্যেই ভগবানের বাস। ফলে সামাজিক অনুষ্ঠান, বিয়ে, উপনয়ন, অন্নপ্রাশন ইত্যাদিতে পৌরোহিত্য করতে পারলেই ঈশ্বরের সেবা করা সম্ভব। তার জন্য আলাদা করে দুর্গাপুজো করতেই হবে এমন কোনও কথা নেই। কিন্তু মাত্র এক মাসের মধ্যেই সিদ্ধান্ত বদলে ফেললেন তাঁরা। আসলে গত বছর দ্বাদশীর দিন ৬৬ পল্লির পুরোহিত মহাশয় মারা যান। তারপর পুজো কমিটি যোগাযোগ করে নন্দিনীর সঙ্গে। কিন্তু তিনি তো নিজের সিদ্ধান্তে অনড়। যুক্তি দিয়ে বললেন সামাজিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমেই তাঁরা ঈশ্বরের সেবা করতে আগ্রহী। কিন্তু অপর পক্ষও নাছোড়বান্দা। তাঁরা বললেন বারোয়ারি দুর্গাপুজোও একরকম সামাজিক অনুষ্ঠানই বটে। অতএব পুজোর কাজে হাত দিলে তাঁদের সিদ্ধান্ত থেকে মোটেও সরে যাওয়া হবে না। 
‘দুর্গাপুজোয় পৌরোহিত্য করা মানেই প্রবল পড়াশোনা করা। সেই কারণেই আমাদের একটু দ্বিধা ছিল। আর সেই পড়াশোনাটাকেই ট্রাম্পকার্ড করে শুভমস্তুর টিমকে রাজি করিয়ে ফেললেন ৬৬ পল্লির উদ্যোক্তারা।’ বললেন নন্দিনী। কথায় কথায় নন্দিনীর গবেষণার প্রতি টান ও মনোযোগের দিকটি উঠে এসেছিল। আর সেই তাসটাই খেলে দিলেন পুজো কমিটির প্রেসিডেন্ট। বললেন, ‘আপনি যখন পড়াশোনা করতে এতই ভালোবাসেন, তখন আগামী এক বছর না হয় দুর্গাপুজো নিয়েই পড়াশোনা করুন। দুর্গাপুজোর বিভিন্ন দিক বিষয়ে গবেষণা করুন। সেগুলো নিজেদের মতো করে সাজিয়ে নিন। বাকি কাজ তো পরেও হতে পারে। কিন্তু মায়ের যখন এতই ইচ্ছে মেয়েদের হাতে পুজো পাওয়ার তখন সেই কাজটা তো তুচ্ছ করা চলে না।’ কথার মারপ্যাঁচে নন্দিনী ও তাঁর দলের অন্যরাও দেখলেন তাঁরা নিজেদের অজান্তেই ‘হ্যাঁ’ বলে ফেলেছেন! 
শুভমস্তুর যে কোনও কাজেই মূল চিত্রনাট্য বা স্ক্রিপ্ট লেখেন নন্দিনী। তাই তিনিই মূলত গবেষণার কাজটা করেন। কেমনভাবে সাজাবেন অনুষ্ঠান, তার কাঠামোটাও গড়ে ফেলেন তিনি। সেই কাঠামোর উপর মাটি ও রঙের প্রলেপ লাগান বাকিরা। সেমন্তী ও পৌলোমীর গান আর রুমার মন্ত্রের জোগানে অনুষ্ঠান এক অনন্য মাত্রা পায়। এক্ষেত্রেও তেমনটাই হতে চলেছে। প্রচুর পড়াশোনার মাধ্যমে চিত্রনাট্যের সিংহভাগ পরিকল্পনা ইতিমধ্যেই ছকে ফেলেছেন নন্দিনী। তবে এবার যে অন্যরকম দুর্গাপুজোর আয়োজন সে বিষয়ে তিনি আহ্বায়কদের প্রথমেই জানিয়ে দিয়েছিলেন। নন্দিনীর কথায়, ‘যে কোনও অনুষ্ঠানই আমরা একটা অন্য ঘরানায় করি। পুজোতেও তার ব্যতিক্রম যে হবে না তা প্রথমেই জানালাম পুজো কমিটির সদস্যদের। আমার কথায় সঙ্গে সঙ্গেই রাজি হলেন তাঁরা। বললেন এই ভিন্ন ধারার পুজোর আয়োজনের আশাতেই নাকি তাঁরা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন।’ অতএব কাজে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা তাঁরা প্রথম থেকেই পেয়ে গিয়েছিলেন। পুজোর মূল দিকগুলো থাকবে কি না, এই নিয়ে অবশ্য প্রশ্ন উঠেছিল। নন্দিনী বললেন পুজোর সব অনুষ্ঠান বজায় রেখেই তাঁরা পরিকল্পনা করেছেন। চিত্রনাট্যও সাজিয়েছেন সেই অনুযায়ী। তাতে ষষ্ঠীর বোধন, সপ্তমীতে নবপত্রিকা স্নান, অষ্টমী ও নবমীর সন্ধিক্ষণের সন্ধি পুজো এবং দশমীর বিসর্জন পুজো সবই থাকবে। তবে আয়োজনে নতুনত্বের ছোঁয়া দেবেন তাঁরা। 
এদিকে অক্টোবর মিটলে তো বিয়ের মরশুম। নভেম্বর, ডিসেম্বর তো বিয়ের ঠেলায় দম ফেলারও সময় পান না তাঁরা। আর তার ঠিক আগেই দুর্গা পুজো । অতএব কঠিন পরীক্ষা। কিন্তু সব কাজই সহজ হয়ে গেল ক্রমশ। মা দুর্গাই বুঝি সুগম করে দিলেন তাঁদের পথ। দুর্গা বোধে মগ্ন হয়ে উঠলেন তাঁরা চারজনই। এবং ক্রমশ পুজোর পদ্ধতি, ধারা, নতুন পন্থা সবই যেন জলের মতো স্পষ্ট  ভেসে উঠতে শুরু করল তাঁদের চোখের সামনে। কোথায় মন্ত্র পড়া হবে, কোন মন্ত্র কীভাবে বোঝানো হবে, কোথায় মন্ত্রের সঙ্গে গানের সঙ্গত থাকবে, সবই স্বচ্ছভাবে ভেবে ফেলতে শুরু করলেন নন্দিনী। এবং গানের ব্যবহার, মন্ত্রের সঙ্গে গানের সামঞ্জস্য, মন্ত্রের সহজ ব্যাখ্যা সবই ধাপে ধাপে মিলে যেতে লাগল। এক অসম্ভব স্নিগ্ধ ভাবে মন ভরে উঠতে লাগল এবং তাঁরা বুঝতে পারলেন এই কাজের জন্য তাঁরা প্রস্তুত। 
পুজোর সংকলন প্রসঙ্গেও একটু খোলসা করেই বললেন নন্দিনী। তাঁর কথায়, ‘অনেকেই জিজ্ঞেস করেন, কোন মতে পুজো হচ্ছে। এই ‘মত’ শব্দটায় আমাদের আপত্তি রয়েছে। আমরা মনে করি মত একটাই— হিন্দু মত। আমাদের পুরাণ খুবই সমৃদ্ধ। পৌরাণিক কাহিনিগুলো একত্রিত করে তারই থেকে একটা সংকলন করা হয়েছে। এবং সেই সংকলনে মন্ত্র যেমন রয়েছে তেমনই সহজে কিছু গল্পও বলা হয়েছে। আর মন্ত্র ও গল্পের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে সংগীত।’ গান না থাকলে পুরো ব্যাপারটাই ভীষণ শুষ্কং কাষ্ঠং হয়ে যাবে বলে মনে করেন নন্দিনী।   গানের মাধ্যমে পুজো পদ্ধতিতে এক অন্য মাধুর্য আসবে বলে জানালেন তাঁরা। একটা নাটকীয় ভাব আনা হবে গানে, গল্পে। প্রাচীন সাহিত্যের ওপর ভর করে, পুজোর প্রতিটি আঙ্গিক রক্ষা করে নতুনভাবে সাজানো হবে শুভমস্তুর প্রথম দুর্গাপুজোটিকে।   খুবই আন্তরিকভাবে পুজো প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে চান তাঁরা। মানুষের সঙ্গে সংযোগ তৈরি করে পুজো করবেন তাঁরা। ফলে পুজো প্রক্রিয়াটা খুব দীর্ঘ হবে না। কিন্তু তাতে বোঝানোর ব্যাপারটা অসম্ভব স্পষ্ট হয়ে ওঠে। মন্ত্রে উচ্চারণ, তার সঙ্গে গানের মিলন সবই ভীষণ অন্য ধরনের একটা আবহ সৃষ্টি করবে। ফলে গোটা অনুষ্ঠানটাই ভিন্ন স্বাদ বহন করবে শ্রোতা ও দর্শকদের কাছে। 
তাঁরা পুজোটাকে, তার সমস্ত আঙ্গিককে উপলদ্ধি করবেন। পুজোর মতো পুজো হবে আর প্যান্ডেলের সামনে লোকে নিজেদের মতো গল্প করবে, এমনটা শুভমস্তুর কাজে কখনওই সম্ভব নয়। আন্তরিকতার সঙ্গে শিক্ষার এক অসামান্য মেলবন্ধন ঘটবে শুভমস্তুর দুর্গাপুজোয়। নন্দিনীর কথায়, ‘আমাদের কবি, মনীষীরা  ঋষির মতো কবিতা লিখে গিয়েছেন, তার সুরও অনবদ্য। সেইগুলোকেও কাজে লাগিয়ে স্ক্রিপ্ট তৈরি হচ্ছে। তবে দুর্গাপুজোয় মন্ত্রের প্রাবল্য বেশি। ফলে সেগুলোকে অটুট রেখে গানের সংখ্যা কমানো হয়েছে ঠিকই। কিন্তু তাই বলে তার প্রাধান্য কিছু কমেনি।’
সন্ধ্যারতিটাকেই এক অনন্য মাত্রা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে শুভমস্তুর তরফে। এই চিত্তাকর্ষক সন্ধ্যারতিকে সম্পূর্ণ রূপে মনোমুগ্ধকর করতে তাই নিয়ম মতো রিহার্সালও দিচ্ছেন তাঁরা। আর থাকছে চণ্ডীপাঠের নতুনত্ব। সেখানে সংস্কৃতের পাশাপাশি বাংলার ব্যবহার উল্লেখযোগ্য। লোককে বোঝানো যখন উদ্দেশ্য, তাঁদের কাছে ব্যাপারটা সহজ করে তুলে ধরা যখন কাম্য তখন শুধু সংস্কৃতই বা কেন? বাংলা কেন নয়? আমাদের  মাতৃভাষায় চণ্ডীপাঠ হলে তা গল্পের মতো লোকের মনে গেঁথে যাবে।  তাঁরা দুর্গাপুজোর মাহাত্ম্য উপলব্ধি করতে পারবেন। এবং পুজোপদ্ধতি তাঁদের কাছে আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে। 
ফলে এই সব দিক ভেবেই এবার ৬৬ পল্লিতে এক নতুন ধরনের দুর্গাপুজোর আয়োজন করেছে শুভমস্তু। সেখানে স্ত্রী আচারের প্রাধান্য থাকবে, মন্ত্রের গুরুত্ব থাকবে, পুজো পদ্ধতি বজায় থাকবে অথচ অনুষ্ঠানে একটা নতুনত্ব ধরা পড়বে। পুজোর মাধ্যমে সামাজিক এক উত্তরণ ঘটানো হবে। সবাই দেখবেন নারী শক্তির শুভ উদ্‌যাপন। দশভুজার আরাধনায় জীবন্ত দশভুজারা এক নতুন ধরনের নজির গড়ে তুলবেন যা সাবেকি নিয়মগুলোকেই নবরূপে উপস্থাপন করবে। আর তাঁদের এই পুজো পদ্ধতি হয়ে উঠবে চিরন্তন।              
21st  August, 2021
এখন মেয়েরা

দিব্যা গোপিনাথ একজন সাধারণ মেয়ে। হঠাৎই তিনি বিখ্যাত হয়ে উঠেছেন। আর তাঁকে বিখ্যাত করে তুলেছে একটি লার্নিং অ্যাপ। বাইজু’স অ্যাপের কথা বলছি। দিব্যা তাঁর স্বামীর সঙ্গে মিলে এই অ্যাপটি তৈরি করেছেন। বরাবরই পড়াশোনার প্রতি আকৃষ্ট ছিলেন। বিশেষত অঙ্ক আর বিজ্ঞান। বিশদ

21st  August, 2021
প্রগতি এখন হাতের মুঠোয়

নারীপ্রগতি কি শুধুই অলীক কল্পনা? নাকি প্রগতির পথে ক্রমশ এগিয়ে চলেছে মেয়েরা? নারীকেন্দ্রিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা স্বয়ম-এর ডিরেক্টর অনুরাধা কাপুর-এর সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজলেন কমলিনী চক্রবর্তী। বিশদ

14th  August, 2021
পৃথিবীর  অর্ধেক আকাশ

নারীর স্বাধীনতা না থাকলে দেশ স্বাধীন হয় না। এই ধারণা আমাদের দেশের একাংশ মানুষের। বিশ্লেষণ করলেন শুভঙ্কর মুখোপাধ্যায়। বিশদ

14th  August, 2021
বাঙালি মেয়ের
সুড়ঙ্গ সন্ধান

কলকাতার মেয়ে অ্যানি সিংহ রায়ের নামটি খবরের শিরোনামে পৌঁছেছিল পেশাগত কারণে। তিনিই ভারতের একমাত্র মহিলা টানেল ইঞ্জিনিয়ার। মাটি কেটে সুড়ঙ্গ খোঁড়েন! পাতালরেলের লাইন বসান। এই কাজে একমাত্র মহিলা হওয়ায় বহু ব্যঙ্গ-বিদ্রুপের শিকারও হতে হয়েছে তাঁকে। বিশদ

07th  August, 2021
এখন মেয়েরা

মারিয়া পেনের বয়স ১৭ বছর। মার্কিন দেশের এক প্রত্যন্ত গ্রামে হাইস্কুলের ছাত্রী সে। হঠাৎই গরমের ছুটিতে তার জীবন বর্ণময় হয়ে ওঠে। সৌজন্যে নাসা। আরে হ্যাঁ, মহাকাশের কারবারি নাসায় এখন স্কুল পড়ুয়ারাও টুকটাক ইন্টার্নের কাজ পাচ্ছে। যেমনটি পেয়েছে মারিয়া পেনে। বিশদ

07th  August, 2021
ঘরকন্নার টুকিটাকি

প্লাস্টিকের কাপ রোজ ব্যবহার করতে করতে তাতে বুঝি চায়ের লালচে ছোপ পড়েছে? তাই সেই কাপে চা খেতে আর মন চাইছে না। উপায় কিন্তু হাতের মুঠোয়। প্লাস্টিকের কাপ ডিশ ধোয়ার সময় বেকিং সোডা ও সাবান একসঙ্গে ব্যবহার করুন। দাগ ছোপ সবই চলে যাবে।  বিশদ

07th  August, 2021
সাফল্যের উড়ানে মেয়েরা

মেয়েরা পাখা মেলার স্বপ্ন দেখে। শুধু একটু সাহায্য চাই তাদের। সমাজের নিম্নস্তরের মেয়েদের ওড়ার সেই স্বপ্নটি দেখাচ্ছে উড়ান স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। খবরে কমলিনী চক্রবর্তী। বিশদ

31st  July, 2021
 এখন মেয়েরা ​​​​

বন্দনা বাহাদুরের জীবনটা শুরু হয়েছিল নেহাতই সাধারণভাবে। গ্রামের মেয়েটির গ্রামেই বিয়ে হল। তাও বেশ অল্প বয়সে। অচিরেই তিন সন্তানের জননী। সাধারণ এক গৃহবধূ। তবু তিনি স্বপ্ন দেখতেন বড় কিছু করার। সেই স্বপ্নে ভর দিয়েই শুরু করলেন পড়াশোনা। বিশদ

31st  July, 2021
সৃজনীশক্তি নিয়ে
কল্যাণে ব্রতী দুই কন্যা

মানুষের পাশে থাকাই মূল মন্ত্র। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে এগিয়ে চলেছেন কুন্তী দে ও সুস্মিতা নন্দী শেঠিয়া। তাঁদের কথায় অতনু মজুমদার।
বিশদ

24th  July, 2021
সুরে সুরে কইব কথা

গানেই আছে প্রাণের টান। তা বুঝতে কোনও ভাষা বা সংস্কৃতির মিল দরকার হয় না। সুরের সাধনায় একে অপরের অন্তরকে ছুঁয়ে যাওয়া যায়। বললেন শিল্পী পার্বতী বাউল। তাঁর সাক্ষাৎকারে কমলিনী চক্রবর্তী।
বিশদ

24th  July, 2021
প্রযুিক্তর সঙ্গে মীনাক্ষী

রাজস্থানের একটি প্রত্যন্ত গ্রামে নার্সের কাজ করেন মীনাক্ষী। মূলত প্রসূতি মহিলাদের ডেলিভারি করানোর কাজই করেন তিনি। কিন্তু সম্প্রতি এক অদ্ভুত সমস্যায় পড়েছিলেন মীনাক্ষী।
বিশদ

17th  July, 2021
জাইনাবের লক্ষ্য

উত্তরপ্রদেশের মেয়ে জাইনাব  হঠাৎই খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে স্রেফ নিজের কর্মকৃতিত্বের জোরে। মাত্র কয়েক বছর আগে শিশুশ্রমিক হিসেবে কাজ করতে হতো মেয়েটিকে।
বিশদ

17th  July, 2021
মা-মেয়ে মিলে

এষণা আর ইস্তা। মা-মেয়ের যুগলবন্দিতে চলে নানা ধরনের প্রসাধনী সামগ্রী বানানোর কাজ। লকডাউনে আর সবার মতো হতাশা-উদ্বেগ ঘিরে ধরেছিল তাদেরও। তবে বাকিদের সঙ্গে এই মায়ের একটাই তফাত। তিনি বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুর মা। লিখেছেন অন্বেষা দত্ত।
বিশদ

17th  July, 2021
মা সারদার চরিত্র যে কোনও
অভিনেত্রীর কাছে লোভনীয়

 

ছোটপর্দায় ‘করুণাময়ী রাণী রাসমণি’ ধারাবাহিকের সামান্য পটপরিবর্তন হয়েছে। রাসমণির অমৃতলোকে যাত্রার পর, গল্পের কেন্দ্রে এসেছেন শ্রীশ্রীমা সারদাদেবী। এই চরিত্রে অভিনয় করছেন ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী সন্দীপ্তা সেন। তাঁর সঙ্গে কথা বললেন অভিনন্দন দত্ত।
বিশদ

17th  July, 2021
একনজরে
দেশজুড়ে সরকারি সংস্থা বিক্রির কড়া সমালোচনা চলছে। তবু মোদি সরকার অনড়। সিংহভাগ ক্ষেত্রেই সরকারের উপস্থিতি যে কমিয়ে আনা হবে, সরাসরি একথা জানিয়ে দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। বুধবার তিনি বলেছেন, দুটি ভাগে সরকারি সংস্থাকে বিভাজিত করা হচ্ছে। ...

হাওড়া সিটি পুলিস প্রায় ৪৫ কেজি নিষিদ্ধ চীনা মাঞ্জা উদ্ধার করল। মঙ্গল ও বুধবার জাগাছা থানার বিভিন্ন জায়গা থেকে উদ্ধার করা হয় এই বিপুল পরিমাণ সুতো। ...

দীর্ঘ ১১ মাসের আইনি কচকচানির অবসান। ডেফিনেটিভ এগ্রিমেন্টে সই না হলেও আসন্ন আইএসএলে খেলবে এসসি ইস্ট বেঙ্গল। টার্মশিটের ভিত্তিতেই ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে অংশ নেবে লাল-হলুদ। বুধবার ...

একই বিষয় নিয়ে দুটি মামলা। প্রথমটির উল্লেখ না করেই দ্বিতীয়টি দায়ের করা হয়েছে। এমন অভিযোগে বাঁকুড়ার মেজিয়া এলাকা থেকে বেআইনি কয়লা তোলার দ্বিতীয় মামলাটি বুধবার খারিজ করলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দেবাংশু বসাক। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

হঠাৎ নেওয়া সিদ্ধান্তে বিপদে পড়তে পারেন। চলচিত্র ও যাত্রা শিল্পী, পরিচালকদের শুভ দিন। ধনাগম হবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭২৩ - অণুবীক্ষণ যন্ত্রের আবিষ্কারক ওলন্দাজ বিজ্ঞানী আন্তেনি ভান লিউভেনহুকের মৃত্যু
১৮৬৯ - রহস্য কাহিনীকার ও সম্পাদক দীনেন্দ্র কুমার রায়ের জন্ম
১৯১০: নোবেল জয়ী সমাজসেবী মাদার টেরিজার জন্ম
১৯২০ - মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নারীদের ভোটাধিকার স্বীকৃত হয়
১৯২০: অভিনেতা ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯২৭ - ইন্ডিয়ান ব্রডকাস্টিং কোম্পানি কলকাতায় প্রথম বেতার সম্প্রচার শুরু করে
১৯৩৪: কবি ও গীতিকার অতুলপ্রসাদ সেনের মৃত্যু
১৯৪৩ - আজাদ হিন্দ ফৌজ আনুষ্ঠানিকভাবে গঠিত হয়
১৯৫৫ - সত্যজিত্ রায়ের চলচ্চিত্র ‘পথের পাঁচালী’র মুক্তি লাভ
১৯৫৬: রাজনীতিক মানেকা গান্ধীর জন্ম
১৯৬৮: চিত্র পরিচালক মধুর ভাণ্ডারকরের জন্ম 
২০০৩ - লেখক ও ঔপন্যাসিক বিমল করের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.৩৭ টাকা ৭৫.০৮ টাকা
পাউন্ড ১০০.১১ টাকা ১০৩.৫৭ টাকা
ইউরো ৮৫.৫৯ টাকা ৮৮.৭১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৮, ২০০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৫,৭৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৬, ৪৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৪, ০০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৪, ১০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৯ ভাদ্র ১৪২৮, বৃহস্পতিবার, ২৬ আগস্ট ২০২১। চতুর্থী ২৯/৪৪ অপরাহ্ন ৫/১৪। রেবতী নক্ষত্র ৪২/৫১ রাত্রি ১০/২৯। সূর্যোদয় ৫/২০/৫২, সূর্যাস্ত ৫/৫৬/১২। অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৫৩ গতে ৩/৩ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৭/০ মধ্যে পুনঃ ১০/২৩ গতে ১২/৫৪ মধ্যে। বারবেলা ২/৪৭ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ১১/৩৮ গতে ১/৪ মধ্যে।
৯ ভাদ্র ১৪২৮, বৃহস্পতিবার, ২৬ আগস্ট ২০২১। চতুর্থী অপরাহ্ন ৫/৩৪। রেবতী নক্ষত্র রাত্রি ১১/৫৫। সূর্যোদয় ৫/২০, সূর্যাস্ত ৬/০। অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৪৩ গতে ৩/৪ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৭/৩ মধ্যে ও ১০/১৯ গতে ১২/৪৪ মধ্যে। কালবেলা ২/৫০ গতে ৬/০ মধ্যে। কালরাত্রি ১১/৪০ গতে ১/৫ মধ্যে।
১৭ মহরম।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
তৃতীয় টেস্ট: প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ড ২৯৮/৩ (চা বিরতি) 

08:49:20 PM

কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ফের কাবুল বিমানবন্দরের বাইরে দ্বিতীয় বিস্ফোরণ

08:44:00 PM

কাবুল বিস্ফোরণে ১৩ জনের মৃত্যু, রয়েছে একাধিক শিশুও 

08:21:08 PM

করোনা: গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আক্রান্ত ৭১৭, মৃত ৯ 

08:03:25 PM

কাবুল বিমানবন্দরের বাইরে বিস্ফোরণ, হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি 

07:54:59 PM

কমতে পারে কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের দুটি ডোজের ব্যবধান: সূত্র 

06:01:10 PM