দেশ

মহারাষ্ট্রে যেখানেই প্রচারে যাবেন সেখানেই হারবেন মোদি, রাজ্যে জয় নিয়ে প্রত্যয়ী শারদ

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: এতদিন বিজেপি প্রচার করত, রাহুল গান্ধী যেখানে ভোটপ্রচারে যাবেন, সেখানেই তাঁর দল হারবে। রাহুলকে ভোটের প্রচারে আসার আমন্ত্রণ জানাতেন বিজেপির ছোট-বড়-মেজ নেতারা। এবার মোদিকে নিশানা করে সেই একই সুর ইন্ডিয়া জোটের নেতাদের গলায়। নরেন্দ্র মোদির বিজয় রথ থামিয়ে দিয়ে মহা বিকাশ আঘাড়ি জোটের নেতারা বলছেন, মহারাষ্ট্র গোটা দেশে বিজেপি সম্পর্কে একটা মিথ ভেঙে দিয়েছে। বিজেপি এবং নরেন্দ্র মোদিকে যে পরাজিত করা যায় না, এরকম একটি ধারণা বিজেপি দীর্ঘদিন ধরে প্রচার করেছে। মহারাষ্ট্রে বিজেপি এবার ২৩ থেকে নেমে এসেছে ৯ আসনে। শারদ পাওয়ার বলেছেন, এবার লোকসভা ভোটে যেখানেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জনসভা এবং রোড শো করেছেন, সেখানেই আমাদের দল জয়ী হয়েছে। সেই কারণে আমরা প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমরা চাইছি আসন্ন বিধানসভা ভোটে প্রধানমন্ত্রী আবার প্রচারে আসুন। তিনি যত আসবেন, ততই মানুষ বিজেপিকে প্রত্যাখ্যান করবে। 
আর তিন মাস। মহারাষ্ট্র থেকে বিজেপি বিদায় আসন্ন।  শনিবার মুম্বইয়ে ইন্ডিয়া জোটের আশাতীত সাফল্যের পর এই দাবি করেছে ইন্ডিয়া জোটের অন্তর্গত মহা বিকাশ আঘাড়ি জোটের শরিক। উদ্ধব থ্যাকারে (শিবসেনা), শারদ পাওয়ার (এনসিপি) এবং কংগ্রেসের পৃথ্বীরাজ চৌহান যৌথ সাংবাদিক সম্মেলন করে মহারাষ্ট্রবাসীকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। শারদ পাওয়ার বলেন, আর তিন মাস পর মহারাষ্ট্রে সরকার বদলে যাবে। এদিন ঘোষণা করা হয়েছে, আগামী কয়েকমাসের মধ্যে লোকসভা ভোট হবে এবং সেই ভোটেও শিবসেনা, এনসিপি ও কংগ্রেস একজোট হয়ে ইন্ডিয়া জোটের ছাতার তলায় লড়াই করবে। আসন সমঝোতার আলোচনাও শুরু হয়েছে। তাঁরা বলেন, মহারাষ্ট্রের লোকসভা ভোটের ফলাফল থেকেই স্পষ্ট যে, আগামী কাল বিধানসভা ভোট হলেই বিজেপি সরকারের পতন হবে। 
একদিকে যেখানে মহারাষ্ট্রে ইন্ডিয়া জোট এখন থেকেই আসন্ন বিধানসভা ভোটের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে, সেখানে বিজেপি জোটের সম্পূর্ণ ছত্রভঙ্গ দশা। অজিত পাওয়ার গোষ্ঠীকে নিয়ে ভোটে না লড়াই করার প্রবল চাপ বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বের উপর। আবার একনাথ সিন্ধের সঙ্গে আসন সমঝোতার ফর্মুলা নিয়ে এখন থেকেই উঠছে আপত্তির সুর। তাঁর সঙ্গে যতজন বিধায়ক শিবসেনা ভেঙে চলে এসেছিলেন, তাঁদের সকলকেই প্রার্থী করতে হবে বলে দাবি করেছেন একনাথ সিন্ধে। বিজেপি সেটা মেনে নেবে না। তাই এখন থেকে শুরু হয়েছে দ্বন্দ্ব। 
শুধুই মহারাষ্ট্র নয়, হরিয়ানা এবং ঝাড়খণ্ডেও উজ্জীবিত ইন্ডিয়া জোট নেমে পড়ছে বিধানসভা প্রস্তুতিতে। এই দুই রাজ্যে বিজেপির বর্তমান জোট এবং প্রাক্তন জোট শরিকদের কাছে টানারও চেষ্টা শুরু করা হয়েছে। হরিয়ানায় লোকসভা ভোটে জাঠ, দলিত, কৃষক ফ্যাক্টর বিজেপির বিরুদ্ধে গিয়েছে। সেই ক্ষোভই বিধানসভায় আবার কাজে লাগাতে মরিয়া ইন্ডিয়া জোট। আর ঝাড়খণ্ডে হেমন্ত সোরেনকে জেলে পাঠানোর ইস্যুকে আরও বেশি করে সামনে আনা হবে।  
1Month ago
কলকাতা
রাজ্য
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

পারিবারিক সম্পত্তি সংক্রান্ত আইনি কর্মে ব্যস্ততা। ব্যবসা সম্প্রসারণে অতিরিক্ত অর্থ বিনিয়োগের পরিকল্পনা।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৮৫ টাকা৮৪.৫৯ টাকা
পাউন্ড১০৬.৪৩ টাকা১০৯.৯৫ টাকা
ইউরো৮৯.৬৩ টাকা৯২.৭৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা