রাজ্য

দক্ষিণবঙ্গে বর্ষা এসপ্তাহেই, বেশি মাত্রায় বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: চলতি সপ্তাহের মধ্যেই দক্ষিণবঙ্গে মৌসুমি বায়ু বা বর্ষা ঢুকবে বলে আশা করছে আবহাওয়া দপ্তর। তবে তার কোনও নির্দিষ্ট সময় রবিবারও জানানো হয়নি। দক্ষিণবঙ্গসহ দেশের আরও কিছু অংশে চার-পাঁচ দিনের মধ্যেই বর্ষা প্রবেশ করবে, তাদের পূর্বাভাসে গত শুক্রবার থেকে জানাচ্ছে আবহাওয়া দপ্তর। পূর্বাভাসটি বজায় ছিল রবিবারও। আলিপুর আবহাওয়া অফিসের অধিকর্তা হবিবুর রহমান বিশ্বাস জানান, তবে বজ্রগর্ভ মেঘ থেকে ঝড়বৃষ্টির প্রবণতা দক্ষিণবঙ্গে এবার বাড়বে। প্রাকবর্ষার বৃষ্টি শুরু হতে চলেছে দক্ষিণবঙ্গে। পাশাপাশি পশ্চিমাঞ্চলের কিছু এলাকায় আজ সোমবারও তাপপ্রবাহ পরিস্থিতি থাকবে। তবে মৌসুমি বায়ু ঢুকলেও তা খুব একটা সক্রিয় হবে না, মনে করছেন আবহাওয়াবিদরা। ফলে আপাতত উত্তরবঙ্গের মতো, দক্ষিণবঙ্গে বড় এলাকা জুড়ে বেশি মাত্রায় বৃষ্টির বিশেষ সম্ভাবনা নেই। আবহাওয়া অধিকর্তা জানান, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে কোনও নিম্নচাপ বা ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হলে মৌসুমি বায়ু সক্রিয়ভাবে প্রবেশ করত দক্ষিণবঙ্গে। কিন্তু এরকম কিছু ঘটার ইঙ্গিত রবিবার পর্যন্ত নেই। ফলে বর্ষা সাধারণ গতিতেই প্রবেশ করবে দক্ষিণবঙ্গে। 
উত্তরবঙ্গের হিমালয় সংলগ্ন পাঁচ জেলায় পরিস্থিতি একেবারে অন্যরকম। আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহার জেলায় কোথাও ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি চলবে বলে আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে। আজ সোমবার ও আগামী কাল মঙ্গলবার আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার ও জলপাইগুড়ি জেলার কিছু অংশে অতিভারী বৃষ্টির আশঙ্কা বা ‘লাল’ সতর্কতা থাকছে। সাধারণভাবে ওই পাঁচ জেলাতেই হবে হাল্কা থেকে মাঝারি বৃষ্টি। এই জেলাগুলির বিভিন্ন স্থানে রবিবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৭০ থেকে ২৫ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয়েছে। সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে আলিপুরদুয়ারের হাসিমারা এলাকায়। উত্তর-পূর্ব অসম ও হিমালয় সংলগ্ন উত্তরবঙ্গের উপর দুটি পৃথক ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। উত্তর-পশ্চিম বিহার থেকে মেঘালয় পর্যন্ত বিস্তৃত নিম্নচাপ অক্ষরেখা উত্তরবঙ্গের উপর দিয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতির জন্য বঙ্গোপসাগর থেকে জলীয় বাষ্প ঢুকে তা উত্তরবঙ্গের দিকে গিয়ে পাহাড়ে ধাক্কা খেয়ে প্রচুর বৃষ্টির মেঘ তৈরি করছে। এই কারণে প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছে সিকিমে। 
দক্ষিণবঙ্গের উপকূলীয় ও কাছাকাছি এলাকায় বায়ুমণ্ডলের নীচের স্তরে প্রচুর জলীয় বাষ্প রয়েছে। চড়া রোদে তাপমাত্রাও বেশি আছে। এর জেরে ভ্যাপসা গরম চলছে। কলকাতায় সোমবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা (৩৬.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস) স্বাভাবিকের চেয়ে ২.৪ ডিগ্রি বেশি ছিল। বাতাসে সর্বনিম্ন আপেক্ষিক আর্দ্রতাও ছিল  ৫৭ শতাংশ। দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় বজ্রগর্ভ মেঘ তৈরি হচ্ছে। শনিবার বাঁকুড়া, পশ্চিম বর্ধমান, পূর্ব বর্ধমান জেলায় ভারী বৃষ্টি হয়েছে। ঝাড়খণ্ডের দিকে তৈরি হওয়া ওই বজ্রগর্ভ মেঘ কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকার দিকে শনিবার আসেনি। এটা হলে শনিবার গরম থেকে কিছুটা সাময়িক স্বস্তি মিলত। 
1Month ago
কলকাতা
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

গুরুজনের থেকে অর্থকড়ি লাভ হতে পারে। স্বার্থান্বেষী আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দূরত্ব রেখে চলুন। মনে চাঞ্চল্য।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৮১ টাকা৮৪.৫৫ টাকা
পাউন্ড১০৬.৫৫ টাকা১১০.০৬ টাকা
ইউরো৮৯.৫৫ টাকা৯২.৭১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা