বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
বিনোদন
 

ভালোর কদর করে কলকাতা: বিদ্যুৎ

নিজের শর্তেই সাজিয়ে চলেছেন সিনেমার সংসার। ‘ম্যান অন মিশন’ বিদ্যুৎ জামাল ব্যক্তি জীবনটাকেও ফুরফুরে করে রাখেন শর্তহীন দুঃসাহসিকতায়। সোমবার কলকাতার দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নারুলা ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি এবং জেআইএস ইউনিভার্সিটির প্রাঙ্গণ বিদ্যুতের আগমনে তাই উচ্ছ্বসিত। জেআইএস গ্রুপের আয়োজিত অনুষ্ঠানে সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ক্র্যাক’-এর সেই ভয়ঙ্কর সুন্দর অ্যাকশনের ব্যাখ্যা দিয়ে নায়ক বললেন, ‘লোকে মিশন ইম্পসিবল, ফাস্ট অ্যান্ড দ্য ফিউরিয়াস- এর গল্প বলে। ‘ক্র্যাক’-এ আমি দুই বাড়ির মাঝখানে শূন্যে দড়ির উপর দিয়ে হেঁটেছি। সেতুর মাথায় সাইকেল চালিয়েছি। আমার বিশ্বাস এবার বিশ্ব সিনেমার দর্শক ভারতীয় অ্যাকশন ছবি নিয়েও চর্চা করবেন।’
কলকাতার কদর
সেনা অফিসার বাবার সৌজন্যে বিদ্যুতের কলকাতা যোগ সেই স্কুলবেলা থেকে। পড়তেন কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়ে। ‘বাংলা বীরের ভূমি। স্বাধীনতা সংগ্রামীদের জন্মভূমি। এখানে প্রচুর বন্ধু আছে আমার। কলকাতার মানুষের অনুযোগ ভারতীয় ছবির বাজেট বাড়লেও তেমন অ্যাকশন ফিল্ম তৈরি হচ্ছে না। আমার কলকাতায় আসার কারণ, এই শহর ভালো জিনিসের কদর করতে জানে। আশা করি আমার ‘ক্র্যাক’ কলকাতার মানুষের পছন্দ হবে।’ এছবির একটি গানের দৃশ্যে রয়েছেন রুক্মিণী মৈত্র। সেজন্যও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করলেন বিদ্যুৎ। 
স্বামী বিবেকানন্দের দর্শন
মায়ের উৎসাহে কেরালার একটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ রপ্ত করেছেন কালারিপায়াত্তু। ভারতের নিজস্ব মার্শাল আর্ট। সেই দীর্ঘ আবাসিক জীবনেই স্বামী বিবেকানন্দের ভাবধারায় অনুপ্রাণিত হন তিনি। বলছিলেন, ‘স্বামীজির ব্রহ্মচর্য, ওঁর বাণী, দর্শনই আমাকে তৈরি করেছে। আমি আজ যা করতে পেরেছি সবই স্বামীজির অনুপ্রেরণায়। বলতে পারেন স্বামী বিবেকানন্দ আমার পথ প্রদর্শক।’ 
অ্যাকশন ও অভিনয়
অ্যাকশনের তো গুরুকুল আছে। অভিনয়ের? বিদ্যুৎ বললেন, ‘পর্যবেক্ষণ। বারো বছরে আঠারোটা ছবিতে অভিনয় করতে করতে আমি নিজেকে প্রস্তুত করছি। প্রতিদিন জীবন থেকে যা শিখি অভিনয়ে সবটা ঢেলে দিই।’
কাশ্মীরের খুশি 
কাশ্মীরের ভূমিপুত্র জন্মেই দেখেছিলেন ইতিউতি রক্তের ছিটে লাগা ভূস্বর্গ। বাবার বদলির দৌলতে থাকতে হয়েছে দেশের নানা সেনা ছাউনিতে। তবুও আজীবন বিদ্যুতের ভাষায় জন্মভূমির স্মৃতিমেদুরতা। ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারে বিদ্যুতের প্রতিক্রিয়া অবশ্য সাবধানী ও কূটনৈতিক, ‘আমার বাবা সেনাবাহিনীতে ছিলেন। দাদুও। আমার মামা দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছেন। আমার নানাজিও শহিদ হয়েছেন যুদ্ধে। আমার স্কুলের সহপাঠী কার্গিল যুদ্ধে প্রাণ দিয়েছেন। তাই আমার কাছে কাশ্মীর, কেরালা কিংবা গোটা উত্তর-পূর্ব ভারত আলাদা কোনও অঞ্চল নয়। মানুষ যদি খুশি থাকে। সুখে, শান্তিতে থাকে তাহলে আমিও শান্তিতে, খুশিতে থাকি। ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করার পর কাশ্মীরের মানুষ যদি খুশি হন, তাহলে আমিও খুশি।’
বাংলা ছবি
বিদ্যুৎ বঙ্গ সংস্কৃতি ভালোবাসেন। প্রযোজক বিদ্যুৎ বাংলা ছবি প্রযোজনা করতে চান। তাঁর কথায়, ‘প্রচুর মানুষের সঙ্গে কথা বলতে শুরু করেছি। শুধু অ্যাকশন ছবিই নয়, বাংলার মাটির গন্ধ মাখা সাহিত্য নির্ভর ছবিও তৈরি করব খুব শিগগির।’
প্রিয়ব্রত দত্ত

28th     February,   2024
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ