বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
চারুপমা
 

কেশচর্চার নানারকম

গরমে চুলের পরিচর্যা কীভাবে করবেন? বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলে লিখেছেন অন্বেষা দত্ত।

কোকিলের ডাক যতই কানে আসুক, বাতাসের ফুরফুরে ভাব ক্রমেই কমছে। বেলা বাড়তেই বেশ মালুম হচ্ছে তা। এই গরমে চুলের যত্ন করা খুবই মুশকিল। যতই নিয়মিত শ্যাম্পুর অভ্যাস থাক, চুল বারবার ঘেমেনেয়ে জানান দেবে বড়ই কাহিল দশা তার। সঙ্গে জট পড়বে, তার সঙ্গে পড়ে যাবে চুলও। 
চুল নিয়ে ত্রাহি মধুসূদন অবস্থা যখন, তখন ভাবতেই হবে সমাধান। ঘরোয়া উপায়ে কিছু যদি করা যায়? সম্প্রতি কলকাতায় একটি অনুষ্ঠানে এসছিলেন ব্রাজিলের হেয়ার এক্সপার্ট ফিলিপ রাবেলো। ওই অনুষ্ঠানে ফিলিপ এবং গোদরেজ প্রফেশনাল-এর বিশেষজ্ঞ নাজিবুর রহমানের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হল। ঘরোয়া উপায়, অর্থাৎ অ্যালোভেরা বা অন্য ভেষজ কোনও উপাদান দিয়ে স্বস্তি পেতে চান? পাল্টা প্রশ্ন করলেন রাবেলো। তারপর হাসতে হাসতে বললেন, এটা আমি ব্রাজিলেও দেখি। নারকেল তেল বলুন, অলিভ অয়েল বা অ্যালোভেরা জাতীয় সব প্রাকৃতিক উপাদান চুলে মাখছে, এদিকে খাচ্ছে জাঙ্ক ফুড! তাতে কি লাভ হয়? বরং আমার মতে, যেসব জিনিস দিয়ে আপনারা ভাবেন রূপচর্চা করবেন, তার মধ্যে যেগুলো খাওয়া সম্ভব, সেগুলো সরাসরি খেয়ে উপকৃত হোন! চুলের পরিচর্যার জন্য অন্য জিনিসের উপরে ভরসা রাখুন।’ কী রকম? রাবেলোর মতে, ‘স্পেশাল কিছু ট্রিটমেন্ট আছে তার জন্য। সেগুলো কাজে লাগান। গরমে আর্দ্রতাও একটা বড় সমস্যা তৈরি করে আপনাদের এখানে। তাই হেয়ার স্টাইলিং বলুন বা যত্ন, তার জন্য যত বেশি হেয়ার ড্রায়ার বা আয়রন ব্যবহার করবেন, তত ক্ষতি হবে চুলের। গ্রেপ সিড অয়েল (আঙুরের বীজ) একটা ভালো উপাদান সূর্য থেকে বাঁচার জন্য। প্রফেশনাল ট্রিটমেন্টে সেটা পাবেন। মসৃণ চুল গরমে ম্যানেজ করতেও সুবিধা হবে।’
কিন্তু সবাই ট্রিটমেন্ট করে মসৃণ চুল না-ই চাইতে পারেন। কেউ তো বলতে পারেন, তাঁর কার্লস ভালো করে রাখার জন্য কী কী করা দরকার? তাছাড়া প্রফেশনাল ট্রিটমেন্টের পর চুলের আরও ক্ষতি হয়ে যাবে কি না, সেই ভয়ও থাকে। কারণ সেই সব উপাদানে কড়া রাসায়নিক থাকে। হেয়ার ফল বাড়িয়ে দিতে পারে সেটা। নাজিবুর বললেন, ‘গরমে সব রকম চুলেই জট বেশি পড়ে। তবে কার্লি হেয়ার বা কোঁকড়া চুলের জন্য বিশেষ কিছু তেল আছে। আর্গান অয়েল যেমন ভীষণ ভালো। এছাড়া সানফ্লাওয়ার অয়েল এবং নারকেল তেলও ভালো। এইসব তেলে সমৃদ্ধ প্রোডাক্ট বেছে নিতে পারেন। সেগুলোকে বলে ফিনিশিং অয়েল। এতে চিটচিটে ভাব হয় না। ময়েশ্চার বেসড হওয়ায় চুলে দেওয়ার পরে মিশে যায়, চুল হাল্কা ও নরম থাকে। শ্যাম্পু করে কন্ডিশনিং করুন। তারপর বাইরে বেরনোর আগে সপ্তাহে তিন দিন সামান্য কয়েক ফোঁটা এই তেল চুলে দিতে পারেন। চুল একরকম ‘রিচার্জড’ হবে এতে। বাড়ির সাধারণ তেল আর ফিনিশিং অয়েল-এর মধ্যে তফাতটা একবার ব্যবহার করলেই বুঝতে পারবেন। এই তেল মাখলে ফ্রিজি ব্যাপারটা বা জট পড়ার প্রবণতাও কমে।’ রাবেলো যোগ করলেন, ‘মনে রাখবেন ত্বকের রোমকূপের মতো চুলেরও পোরস থাকে। এক একজনের ক্ষেত্রে তা এক একরকম স্তরের। এই সব তেল সেই পোরোসিটি ঠিক করে। সেই জায়গাটা পূরণ করে। আর অত্যধিক তাপমাত্রার মধ্যেও চুল ভালো রাখে।’      
ঘরোয়া উপায় নিয়ে যতই ঠাট্টা করুন, ভারতীয় বিশেষ করে, বাঙালিদের কাছে একটা বড় ভরসার জায়গা এইসব উপাদান। ফলে চুলের যত্নে ঘরোয়া পথের সন্ধান চাই-ই চাই। দাবি শুনে নাজিবুর বলেন, ‘ডিম খুব ভালো একটা জিনিস। এতে ভিটামিন ই থাকে। স্ক্যাল্প এবং গোটা চুলের যত্ন হয় এতে। যাদের অয়েলি চুল, তাদের বলব চুলের গোড়ায় শুধু সাদা অংশটা লাগান। আর যাদের চুল শুষ্ক রুক্ষ, তাদের বলব চুলে শুধু কুসুমের অংশটা লাগান। এর সঙ্গে দই যোগ করুন, নাহলে প্রচণ্ড গন্ধ হয়। দইয়ে থাকে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। তবে চুলে কালার থাকলে দই দেওয়া উচিত নয়।’ রাবেলো জানালেন, ‘আমি ঘরোয়া বা প্রাকৃতিক জিনিস নিয়ে শুধু মজা করতে কথাগুলো বলিনি। দেখুন এখন ন্যানো টেকনোলজি এসে গিয়েছে। এখন সবকিছুর পার্টিকেল আমরা ব্যবহার করতে পারি হেয়ার কেয়ার-এ। তাই একগাদা অলিভ অয়েল বা নারকেল তেল দিলেই চুল ভালো হবে, তা নয়। প্রযুক্তির সাহায্যে অনেক জিনিস চুলের যত্নে যোগ করতে পেরেছি। সেগুলি সবই সক্রিয় উপাদান।’
ভারতীয় মহিলাদের অনেকেই লম্বা চুল রাখতে চান। পছন্দও করেন। এমন চুলের জন্য কী কী বিষয় খেয়াল রাখতে হবে? কত ঘন ঘন হেয়ারকাট করা উচিত? নাজিবুর বললেন, ‘এটা ঠিকই, লম্বা চুলে ভারতীয় নারীর একটা ব্যতিক্রমী রূপ ধরা পড়ে। কিন্তু লম্বা চুল রাখা মানে তার যত্নটাও অনেকটা বেশি হবে। এটা মাথায় রাখবেন। দেখুন হেয়ারস্টাইলিং আজকাল সবাই পছন্দ করেন। এটা বস্তুত একটা স্টেটমেন্ট তৈরি করে। যাঁরা লম্বা চুল রাখতে চান, তাঁদের বলব হাফ ইঞ্চি থেকে এক ইঞ্চির মতো ট্রিম করান। ছ’সপ্তাহে কিংবা দু’মাসে একবার। এই সময়ের মধ্যে কাটলে চুলে ভালো গ্রোথও হবে, চুলের নীচের দিকটা পাতলা হয়ে বিশ্রী ত্রিভুজের মতো হয়ে যাবে না। দেখুন লম্বা চুল মানে কিন্তু পুরো চুলটাই ভালো রাখা।’ ব্রাজিলের বিশেষজ্ঞ বললেন, ‘একেবারেই তাই। স্বাস্থ্যকর চুল লম্বা হলে দেখতে ভালো লাগে। শুধু লম্বা রাখব, কিন্তু মেনটেন করব না এটা হবে না। আবার লম্বা চুল রাখব ভেবেও একবার ঝোঁকের বশে অনেকটা হেয়ারকাট করে ফেললেন, এটাও চলবে না।’
 

23rd     March,   2024
অক্ষয় তৃতীয়া ১৪৩১
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ